fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

৮০ বেডের কোভিড হাসপাতাল হিসেবে গড়ে উঠল খড়দহের বলরাম সেবা মন্দির হাসপাতাল

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর খড়দহের বলরাম সেবা মন্দির স্টেট জেনারেল হাসপাতালকে নতুন ৮০ বেডের কোভিড হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তুলল। সোমবার দুপুরে উত্তর ২৪ পরগনার জেলা শাসক চৈতালী চক্রবর্তী ও ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা ফিতে কেটে নতুন এই কোভিড হাসপাতালের উদ্বোধন করলেন।

উত্তর ২৪ পরগনার ব্যারাকপুর মহকুমায় কোভিড রোগীদের সুবিধার্থে রাজ্য সাস্থ্য দফতরের পরিচালনায় উদ্বোধন হল নতুন ৮০ বেডের আরও একটি কোভিড হাসপাতাল। খরদহের বলরাম সেবা মন্দির স্টেট জেনারেল হাসপাতালকে সম্পূর্ণ রূপে করোনা হাসপাতাল হিসেবে গড়ে তোলা হল।

ব্যারাকপুর মহকুমায় করোনা আক্রান্ত কোনও রোগীকে যাতে চিকিৎসার জন্য এই মহকুমা থেকে বাইরে কোথাও নিয়ে যেতে না হয় সেই জন্য এই মহকুমায় চতুর্থ কোভিড হাসপাতাল গড়ে তুলল রাজ্য স্বাস্থ্য দফতর।
এর আগে ব্যারাকপুর মহকুমার মধ্যে কামারহাটিতে সাগর দত্ত মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল,ব্যারাকপুর শহরে টেকনো গ্লোবাল হাসপাতাল, নৈহাটি হাসপাতালকে কোভিড হাসপাতাল করা হয়েছে। উত্তর ২৪ পরগনার জেলা শাসক চৈতালী চক্রবর্তী ও ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা সোমবার দুপুরে ফিতে কেটে খড়দহ বলরাম সেবা মন্দির স্টেট জেনারেল হাসপাতালকে কোভিড হাসপাতাল হিসেবে উদ্বোধন করেন।

আরও পড়ুন:‘ভরসা করতে না পারলে প্রয়োজনে আমি প্রথমে করোনা ভ্যাকসিন নেব’, দেশবাসীর উদ্দেশে বার্তা কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রীর

উত্তর ২৪ পরগনার জেলা শাসক চৈতালী চক্রবর্তী বলেন, “এখন আর কোনও সরকারি হাসপাতালে করোনা আক্রান্তদের বেড পেতে সমস্যা হবে না। শুধু ব্যারাকপুর মহকুমাতেই আমরা ৪টি করোনা হাসপাতাল তৈরি করলাম। আমাদের নির্দিষ্ট হেল্প লাইন নম্বরে ফোন করলে বেড পেতে কোন সমস্যা হবে না রোগীদের। জেলায় আমাদের ৩১ টা সেফ হোম চালু আছে। উন্নতমানের চিকিৎসা পরিষেবা দেওয়া হচ্ছে রোগীদের। অধিকাংশ ক্ষেত্রে কোভিড রোগীরা এখন বাড়িতেই সুস্থ হচ্ছেন ।”

ব্যারাকপুরের পুলিশ কমিশনার মনোজ ভার্মা বলেন, “নিজেরা সচেতন থাকলে সুস্থ থাকা যাবে। মাস্ক ব্যবহার, স্যানিটাইজার ব্যবহার, হালকা গরম জলে স্নান করা উচিত সকলের। বার বার সাবান দিয়ে হাত ধুতে হবে। নিজে পরিষ্কার থেকে সমাজকে রক্ষা করতে হবে।”

বর্তমানে ব্যারাকপুর মহকুমায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বৃদ্ধি পাওয়ায় খড়দহে নতুন এই করোনা হাসপাতাল চালু করা হল, যার ফলে উপকৃত হলেন ব্যারাকপুর মহকুমাবাসী।

Related Articles

Back to top button
Close