fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মালদার হবিবপুর এলাকায় তৃণমূল কর্মীর মৃতদেহ উদ্ধার

মিল্টন পাল,মালদা: মালদার হবিবপুর থানা এলাকা থেকে রক্তাত্ব মৃতদেহ উদ্ধার। ঘটনায় এলাকায় চাঞ্চল্য। সোমবার ঘটনাটি ঘটেছে মালদার হবিবপুর থানার ঋষিপুর অঞ্চলের শ্রীরামপুর এলাকায়। মৃত ব্যাক্তি তৃণমূল দলের সক্রিয় কর্মীর। মৃতদেহ ময়না তদন্তে পাঠিয়ে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

পুলিশ সুত্রে জানা গিয়েছে, মৃতের নাম সুবোধ প্রামানিক(৪০)। বাড়ি হবিবপুর থানার ঋষিপুর অঞ্চলের কালিতলাএলাকায়।পেশায় কাট ব্যবসায়ী। সে কালিতলা বুথের তৃণমূলের সক্রিয় কর্মী ছিলেন। মৃতের ছেলে রাজ প্রামানিক জানায়,রবিবার বিকালে সে বাড়ি থেকে বের হয় জমিতে জল দেওয়ার নাম করে। মোটর বাইকে করে তার জমি শ্রীরামপুর এলাকায়  জমিতে যায়। সোমবার সকালে স্থানীয় লোকেরা জমির পাশে তার রক্তাক্ত মাথা থেঁতলানো মৃতদেহ দেখতে পাই। স্থানীয়রা ঘটনা দেখতে পেয়ে হবিবপুর থানায় খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য মালদা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায়।ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করা হয়েছে মোটর বাইকটি।

যদিও স্থানীয় তৃণমূল নেতা সৌগত সরকার বলেন,কে বা কারা নৃশংস ভাবে খুন করলো তার সঠিক তদন্ত চাই। কারন এর আগেও ওই এলাকায় রাজনৈতিক বিবাদ হয়েছিল। আর সেই কারনেই এই খুন হয়ে থাকতে পারে। জেলা বিজেপির সহ সভাপতি অজয় গাঙ্গুলি বলেন, তৃণমূলের নিজেদের দলের গোষ্ঠী কোন্দল ও পারিবারিক বিবাদে ঘটনাটি ঘটেছে। মালদা জেলা থেকে তৃণমূলের পায়ের তলার মাটি সরে যাচ্ছে। সেই জন্য নিজেদের গোষ্ঠী দ্বন্দ ঢাকতে আর শাক দিয়ে মাছ ঢাকা যাবে না। সেটা প্রকাশ্যে চলে আসছে। নিজেদের দলের গোষ্ঠীদ্বন্দ খুন পর্যন্ত গড়াচ্ছে। প্রশাসন সঠিক নিরপেক্ষ তদন্ত করলে জানতে পারবে এক গোষ্ঠী আরেক গোষ্ঠী এই খুনের সঙ্গে জড়িত আছে।

আরও পড়ুন: আরামবাগের এসডিপিও নেতৃত্ব দিয়ে খুন করাচ্ছে বিজেপিকে: সাংসদ সৌমিত্র খাঁ

পুলিশের প্রাথমিক অনুমান ভারী বস্তু দিয়ে তার মাথায় পিছন দিকে থেকে একাধিকবার মারা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে তার মোটরবাইকটি উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে কি কারণে খুন এর পেছনে কেইবা রয়েছে সে বিষয়ে এখনও পরিষ্কার সম্পূর্ণ না হলেও পুলিশ বিষয়টি নিয়ে তদন্ত শুরু করেছে। পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া বলেন,খুনের মামলা রজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close