fbpx
দেশহেডলাইন

বুদ্ধ-বিতর্ক, ”বুদ্ধের জন্ম নেপালেই, ভারতে নয়’, বলল দিল্লি

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রামচন্দ্রের পর এবার গৌতম বুদ্ধ! বিবার বণিকসভার এক অনুষ্ঠানে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শংকর গৌতম বুদ্ধকে ‘ভারতীয়’ বলে দাবি করে বসেন। যা নিয়ে তীব্র বিতর্কের সৃষ্টি হয়। তীব্র প্রতিক্রিয়া আসে নেপালের তরফ থেকে। ভারতের ক্ষুদ্র প্রতিবেশী রাষ্ট্রের দাবি, ভারতে নয়, গৌতম বুদ্ধ নেপালে জন্মেছিলেন। এবং সেটা প্রমাণিত সত্য। ভারত যতই নিজেদের মতো দাবি করুক। ইতিহাস তাতে বদলাবে না। নেপালের তরফে এই কড়া প্রতিক্রিয়া আসার পর বিবৃতি দেয় নয়াদিল্লিও। দিল্লির তরফেও নেপাল সরকারের দাবি মেনে নেওয়া হয়।

গতকাল সিআইআই আয়োজিত এক ভারচুয়াল সমাবেশে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর বলেন,”নৈতিকতার দিক থেকে বিচার করতে হলে, ভারতের দুজন মানুষকে গোটা বিশ্ব আজও মনে রাখে। একজন হলেও গৌতম বুদ্ধ, আরেকজন মহাত্মা গান্ধী।” বিদেশমন্ত্রী যেভাবে গৌতম বুদ্ধকে ‘ভারতীয়’ বলে দাবি করেছেন, তা একেবারেই ভালভাবে নেয়নি কাটমাণ্ডু। নেপালের বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র জয়শংকরের  বক্তৃতার তীব্র প্রতিবাদ করে বলেন,”ভারতেরই সম্রাট অশোক নেপালের লাম্বিনিতে বুদ্ধের জন্মস্থানে একটি সৌধ নির্মাণ করেছিলেন। সেই সৌধটি যে কোনও ভিত্তিহীন দাবির থেকে অনেক শক্তিশালী।”

কাঠমাণ্ডুর প্রশাসনিক কর্তা থেকে নেপালের কমিউনিস্ট পার্টি কিংবা নেপাল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতারা তীব্র প্রতিবাদ জানান। শেষ পর্যন্ত গৌতম বুদ্ধকে নিয়ে বিতর্কের মাঝে ব্যাখ্যা দিল নয়াদিল্লি।  সংবাদমাধ্যমকে বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র অনুরাগ শ্রীবাস্তব স্পষ্ট বলেন, ‘মহামানব গৌতম বুদ্ধের জন্ম যে নেপালেই হয়েছিল, এ ব্যাপারে কোনও সন্দেহ নেই।’ নয়াদিল্লি জানিয়ে দিয়েছে,”বিদেশমন্ত্রী জয়শংকর বুদ্ধদেবকে ভারতীয় বলে দাবি করেননি। তিনি শুধু বলতে চেয়েছেন ভারত বৌদ্ধ সংস্কৃতির ধারক ও বাহক। গৌতম বুদ্ধ যে নেপালে জন্মেছিলেন তাতে কোনও সন্দেহ নেই।”তিনি আরও বলেন, ‘বিদেশমন্ত্রী এক ভাবে কথাটা বলেছিলেন। নেপালের কিছু সংবাদমাধ্যম বিষয়টির অন্যরকম ব্যখ্যা করেছে। যার ফলে বিতর্ক তৈরি হয়েছে। কিন্তু বিতর্কের কোনও অবকাশ নেই। এটি ঐতিহাসিক এবং প্রত্নতাত্ত্বিক নথি দ্বারা প্রমাণিত যে, গৌতম বুদ্ধের জন্ম হয়েছিল নেপালের লুম্বিনিতে।’

আরও পড়ুন: করোনা শূন্য সুন্দরী প্রধানমন্ত্রীর দেশ

ইন্ডিয়ান ইন্ডাস্ট্রিয়াল কনফেডারেশনের শীর্ষ সম্মেলনে ভাষণ দিতে গিয়ে বিদেশমন্ত্রী এস জয়শঙ্কর গান্ধীজি এবং গৌতম বুদ্ধের দর্শনের কথা উল্লেখ করে ভারতের পথ চলার কথা বলেছিলেন। তাতেই ভুল বোঝাবুঝি তৈরি হয়। নেপালের বিদেশ মন্ত্রক বিবৃতি দিয়ে বলে, ‘২০১৪ সালে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি নেপালের পার্লামেন্টে ভাষণ দিয়েছিলেন। সেই বক্তৃতায় মোদী বলেছিলেন, ‘নেপাল হল এমন এক দেশ যেখানে বিশ্ব শান্তির প্রেরণা বুদ্ধের জন্ম হয়েছিল।’ জয় শঙ্করের এই বক্তব্য নিয়ে টুইটারে রসিকতাও শুরু হয়ে যায়। অনেকে বলেন, কয়েকদিন আগে শ্রীরামচন্দ্রের জন্ম নেপালে বলে দাবি করেছিলেন সে দেশের প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি। জয়শঙ্কর বোধহয় তার পাল্টা দিতে চেয়েছেন!

Related Articles

Back to top button
Close