fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সোনার দোকানে ক্রেতা সেজে ঢুকে লক্ষাধিক টাকার গহনা নিয়ে চম্পট দুই দুষ্কৃতীর

দিব্যেন্দু রায়, কাটোয়া: কাটোয়ার দাঁইহাট বাজারের একটি সোনা রুপোর গহনার দোকানে ক্রেতা সেজে ঢুকে লক্ষাধিক টাকার গহনা নিয়ে চম্পট দিল দুই দুষ্কৃতী। যদিও শেষ মুহূর্তে দোকান মালিক বিষয়টি বুঝতে পেরে চিৎকার করে ওঠলে স্থানীয়রা ওই দুই দুষ্কৃতী ধরার চেষ্টাও করে।কিন্তু তাদের হাত ফসকে বাইক নিয়ে চম্পট দেয় ওই দুই দুষ্কৃতী। সোমবার সকালের এই ঘটনা ঘিরে চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়। দোকানদারের দাবি, তার হলমার্কযুক্ত ২ লক্ষ ২০ হাজার টাকার গহনা কেপমারি করে পালিয়েছে ওই দুষ্কৃতীরা। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।

জানা গেছে, ঘটনাটি ঘটেছে গণেশচন্দ্র দাস নামে জনৈক এক ব্যবসায়ীর দোকানে৷ দাঁইহাট বাজারে তাঁর সোনা রুপোর দোকান রয়েছে৷ এদিন সকাল প্রায় পৌনে এগারোটা নাগাদ দুই ব্যক্তি বাইকে চড়ে তার দোকানে আসে ক্রেতা সেজে।

গণেশবাবু বলেন,”দু’জনের মধ্যে একজন দোকানের দরজার কাছে টুলের উপর এসে বসে পড়ে৷ অপরজন তার কাছে এসে মাদুলি দেখাতে বলে। মাদুলি দেখানোর পর সে কানের দুল দেখতে চায়৷ তখন আমি একটা দুলের প্যাকেট বের করি। তাতে ১৬ জোড়া সোনার দুল ছিল।এরপর ওই ব্যক্তি লকেট দেখাতে বললে আমি কানের দুলের প্যাকেটটি দোকানের শোকেসের উপর রেখে পিছু ফিরে লকেট বের করছিলাম। কিন্তু তার আগে ওই ব্যক্তি টাকার একটি বাণ্ডিল টেবিলের উপরে রেখে দিয়েছিল৷ আমি লকেট বের করার আগেই সে লুকিয়ে দুলের প্যাকেটটা টাকায় বাণ্ডিলের সঙ্গে রেখে নিজের প্যান্টের পকেটে ভরে নেয়। বিষয়টা বুঝতে পেরে আমি চিৎকার করে উঠি। ততক্ষণে ওরা দোকানের বাইরে এসে বাইক স্টার্ট দিতে শুরু করে দেয়।” স্থানীয় সুত্রে খবর, গণেশবাবুর চিৎকার শুনে স্থানীয় কয়েকজন তার দোকানের সামনে ছুটে আসেন।

আরও পড়ুন:করোনায় আক্রান্ত হলেন কংগ্রেস নেতা আবু হাসেম খান চৌধুরী

ওই দুই দুষ্কৃতী তারা ধরেও ফেলেন।কিন্তু শেষ মুহূর্তে স্থানীয় লোকজনের হাত ফসকে তারা বাইক নিয়ে চম্পট দেয়। পুলিশ জানিয়েছে, দোকানের সিসিটিভির ফুটেজ দেখে দুই দুষ্কৃতী চিহ্নিত করে তাদের সন্ধানে তল্লাশি চালানো হচ্ছে।

Related Articles

Back to top button
Close