fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রাতের অন্ধকারে বিজেপি কর্মীর গাড়ি ভাঙচুর, এলাকায় উওেজনা

মিলন পণ্ডা, চণ্ডীপুর (পূর্ব মেদিনীপুর): বিধানসভা নির্বাচন যতই এগিয়ে আসছে। ততই বিজেপি শক্তি বৃদ্ধি হচ্ছে। রাতের অন্ধকারে একের পর এক বিজেপি কর্মীর সমর্থকদের বাড়িতে বাড়িতে হামলা চালাচ্ছে শাসকদলের দুষ্কৃতীকারীরা বলে অভিযোগ। এমন ঘটনার সাক্ষী রইল পূর্ব মেদিনীপুর জেলার চণ্ডীপুর বিধানসভা চৌখালি এলাকায়। রাতের অন্ধকারে বিজেপির কর্মীর বাড়ির সামনে দাঁড়িয়ে থাকা গাড়ি ভাঙচুর চালালো শাসক দলের দুষ্কৃতীকারীরা। এই নিয়ে পুলিশের দ্বারস্থ হয়েছেন ওই বিজেপি কর্মীর। ঘটনা প্রকাশ্যে আসার পর এলাকায় রাজনৈতিক উত্তেজনা ছড়িয়েছে।

বিজেপির অভিযোগ, পূর্ব মেদিনীপুর জেলার চণ্ডীপুর বিধানসভা চৌখালি কুলপাড়া গ্রামের বাসিন্দা কৌশিক দাস দীর্ঘদিন ধরে বিজেপির সক্রিয় কর্মী ছিলেন। শুধু তাই নয় এলাকায় সক্রিয়ভাবে বিজেপি দলকে নেতৃত্ব দিতেন কৌশিকবাবু।এটা কোনও ভাবেই মেনে নিতে পারেনি শাসক দলের নেতাকর্মীরা। রাতের অন্ধকারে কৌশিকবাবুর বাড়ির সামনে থাকা গাড়িতে হামলা চালায় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীকারীরা বলে অভিযোগ। পরের দিন সকালে বিষয়টি নজরে আসে। এই নিয়ে চণ্ডীপুর থানার পুলিশের পুলিশের দ্বারস্থ হয়।

 

বিজেপি কর্মী কৌশিক দাস বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে এলাকায় বিজেপিতে নেতৃত্ব দিই। তাই রাতের অন্ধকারে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীকারীরা বেছে বেছে আমার গাড়িতে হামলা চালায়। গাড়িটি পুরোটা ভেঙে দিয়েছে’। তিনি আরও বলেন, ‘এলাকায় সক্রিয়ভাবে বিজেপিতে নেত্বয় দেওয়ার অপরাধে হামলা। থানায় অভিযোগ জানিয়েছি। চণ্ডীপুর ২ মণ্ডলের বিজেপি সভাপতি বিপ্লব মণ্ডল বলেন তৃণমূলের চরিত্র। রাতে অন্ধকারে নির্মন ভাবে হামলা চালায়। মানুষ আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে যোগ্য জবাব দেব’।

যদিও এই অভিযোগ পুরোপুরি অস্বীকার করেছে শাসকদল। পূর্ব মেদিনীপুর জেলার তৃণমূল কংগ্রেস সম্পাদক কণিষ্ক পণ্ডা দাবি করে বলেন, ‘এই নাটক করছে বিজেপি। এই সব করে প্রচারে আসার চেষ্টা করেছে। কিন্তু এই সব করে ভোট হয় না। ভোট মাঠে নেমে করতে হয়’।
চণ্ডীপুর থানার ওসি ইমরান মোল্লা বলেন, ‘বিষয়টি নজরে রয়েছে।ঘটনাটি তদন্ত করে দেখা হচ্ছে’।

যদিও তদন্তের কারণে বেশি কিছু জানাতে রাজি হননি ওসি ইমরান মোল্লা।

Related Articles

Back to top button
Close