fbpx
কলকাতাহেডলাইন

সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু রহস্য উদঘাটনে সিবিআই সঠিক পদ্ধতিতে এগোচ্ছে: জয়দীপ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: সুশান্তের মৃত্যু রহস্য সঠিক পথে এগোচ্ছে। মন্তব্য করলেন অল ইন্ডিয়া লিগাল এড ফোরামের সাধারণ সম্পাদক তথা বিশিষ্ট সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী জয়দীপ মুখোপাধ্যায়। বুধবার এক সক্ষাৎকারে তিনি একথা স্পষ্ট করেন যে, ‘যে পথে সিবিআই গোটা ঘটনায় বিভিন্ন কেন্দ্রীয় সংস্থাকে সঙ্গে নিয়ে তদন্ত এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছে তা প্রশংসনীয়।’

গত কয়েকদিনে দেশের প্রতিটি মানুষের চোখ মুম্বইয়ের ওপর। তার কেন্দ্রবিন্দুতে রয়েছে সুসান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু রহস্য। আসলে দেশের প্রতিটি নাগরিক সুশান্তের আকস্মিক মৃত্যু মন থেকে মেনে নিতে পারেনি। তাই সকলের মনের মধ্যেই এই মৃত্যু রহস্যকে ঘিরে তৈরি হয়েছে অদম্য জিজ্ঞাসা। ইতিমধ্যেই ভারতের মাদক নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো চলচ্চিত্র অভিনেত্রী তথা সুশন্তের প্রাক্তন প্রেমিকা রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করেছে। এবার সেই তদন্তে সিবিআই এর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হলেন জয়দীপ বাবু।

এদিন তিনি বলেন, ‘সিবিআই দল দক্ষতার সঙ্গে যে কাজ করছে তা বলা বাহুল্য। কারণ প্রথম দিন থেকেই তদন্তের গভীরতা মেপে নিয়ে বিভিন্ন কেন্দ্রীয় সংস্থাকে তদন্তের স্বার্থে যোগ করানোর আর্জি জানিয়েছিল কেন্দ্রের কাছে। কেন্দ্র কাল বিলম্ব না করে সেখানে ইডি ও এনসিবি মত কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকে সেখানে পাঠায়। তদন্তে আর্থিক কেলেঙ্কারির পাশাপাশি মাদক যোগ বেরিয়ে আসে। যার ফলে মাদক যোগে রিয়া চক্রবর্তীকে গ্রেফতার করে জেল হেপাজতে পাঠায় এনসিবি। কারণ তাদের কাছে নতুন করে জিজ্ঞাসাবাদের আর কিছু নেই। রাজপুতের মৃত্যুর তদন্তে মাদকের বিষয়টি সামনে আসার পর থেকেই রিয়া চক্রবর্তী, তার পরিবার এবং সুশান্ত সিং রাজপুতের ঘনিষ্ঠ কয়েকজনকে জেরা করা হচ্ছিল। প্রত্যেকের ১৬৪ ধারায় বয়ান রেকর্ড করা হচ্ছিল।’

[আরও পড়ুন- বউবাজারে বিপজ্জনক বাড়ি ভেঙে মৃত ১]

মাদক নিয়ন্ত্রণ ব্যুরো এছাড়া আরও কয়েকজনকে গ্রেফতার করেছে মাদককারবারীর অভিযোগে। এরআগে, একই ঘটনায় গত শনিবার রিয়া চক্রবর্তীর ভাই শৌভিক চক্রবর্তী এবং রাজপুতের প্রাক্তন হাউস ম্যানেজার দীপেশ সাওয়ান্তকে গ্রেফতার করা হয়।

জয়দীপ বলেন, ‘সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুকে আত্মহত্যা বলে মনে করা হলেও তার পরিবার অভিযোগ করে আসছে যে রিয়া চক্রবর্তী এবং তার পরিবার ওই মৃত্যুর জন্য দায়ী। মুম্বাই পুলিশ এবং বিহার পুলিশ (যে রাজ্যে সুশান্ত সিংয়ের পরিবার বসবাস করে) – এই দুই বাহিনীর মধ্যে তদন্ত নিয়ে টানাপোড়েন চলে এবং অবশেষে ভারতীয় সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে কেন্দ্রীয় তদন্ত ব্যুরো (সি বি আই)-কে তদন্তের ভার দেওয়া হয়। ওই তদন্তে যোগ দেয় অর্থ দপ্তরের তদন্ত শাখা এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। কারণ মি. রাজপুতের পরিবার অভিযোগ করেছিল যে তার মৃত্যুর পরে প্রায় ১৫ কোটি টাকা সরিয়ে ফেলেছেন রিয়া চক্রবর্তী।’

জয়দীপের কথায় স্পষ্ট সুশান্ত মৃত্যু রহস্যের তদন্ত এখনও জোর কদমে চলছে। এ বিষয়ে কিছু মন্তব্য করা ঠিক হবে না। তবে যে দিশাতে এগোচ্ছে তাতে শীঘ্রই এই মৃত্যু রহস্যের কিনারা করে ফেলবে সিবিআই।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close