fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গবিনোদনহেডলাইন

অভিনেতা মনু মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোক প্রকাশ মুখ্যমন্ত্রীর

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: বর্ষীয়ান অভিনেতা মনু মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোকজ্ঞাপন করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। টুইট করে শোকপ্রকাশ করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। এদিন টুইট বার্তায় তিনি লিখেছেন, ‘থিয়েটার ও সিনেমার জগতের কিংবদন্তি অভিনেতা মনু মুখোপাধ্যায়ের মৃত্যুতে গভীর শোকাহত। ২০১৫ সালে টেলি সম্মান পুরস্কার অনুষ্ঠানে ‘লাইফটাইম অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড’ দিয়ে সম্মানিত করা হয়েছিল তাঁকে। তাঁর পরিবার, সহকর্মী ও অনুরাগীদের জানাই সমবেদনা।’

প্রসঙ্গত, রবিবার সকালে প্রয়াত হন বাংলা ছবির বিশিষ্ট বর্ষীয়ান অভিনেতা মনু মুখোপাধ্যায়। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয় ৯০ বছরের এই অভিনেতার। ফেলুদা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বিদায়ের কয়েক দিন এবার ‘মছলিবাবা’ মনু মুখোপাধ্যায়ের প্রয়াণে শোকস্তব্ধ টলিঊড।
বেতার, মঞ্চ থেকে পর্দা, জীবনের শেষবেলা পর্যন্ত অভিনয় করেছেন শিল্পী। অবশ্য শেষের দিকে অসুস্থতার জন্য শয্যাশায়ী ছিলেন।’জয় বাবা ফেলুনাথ’ এর ‘ মছলিবাবা’র অসামান্য অভিনয়ের কথা চিরস্মরণীয় হয়ে থাকবে মানুষে মনে।

আরও পড়ুন: ‘আবারও রাজস্থানের সরকার ফেলতে মরিয়া চেষ্টা করছে বিজেপি’, অভিযোগ মুখ্যমন্ত্রী গেহলটের

মনু মুখোপাধ্যায়ের জন্ম টালায়। বাবা অমরেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায়ের মতোই তিনিও মঞ্চকেই বেছে নিয়েছিলেন। শুরুতে প্রম্পটার ছিলেন। ১৯৫৭ সালে বিশ্বরূপায় প্রম্পটার হিসেবে যোগ দেন। প্রথম উল্লেখযোগ্য অভিনয় ক্ষুধা নাটকে। কালী বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিপরীতে অভিনয় করেছিলেন। তবে তাঁর অভিনয় জীবনের মাইল ফলক সত্যজিৎ রায়ের ‘ জয় বাবা ফেলুনাথ’। অবশ্য তার আগে ১৯৫৯ এ জীবনের প্রথম ছবি মৃণাল সেনের ‘ নীল আকাশের নিচে’। তবে ‘ জয় বাবা ফেলুনাথের’ মছলিবাবা তাঁকে অভিনেতা হিসেবে প্রতিষ্ঠা দিয়েছিল। রোল্যাণ্ড জোফির মতো বিশ্বখ্যাত পরিচালকের ছবিতে অভিনয় করেছেন। তাঁর উল্লেখযোগ্য অভিনীত ছবির তালিকায় রয়েছে ‘গণদেবতা’,’ মৃগয়া’, ‘ অশনিসংকেত’,’ বাকিটা ব্যক্তিগত,’পাতালঘর’,’শ্বেত পাথরের থালা’, ইত্যাদি। এছাড়াও বহু বেতার নাটক, টিভি ধারাবাহিকে অভিনয় করেছেন মনু মুখোপাধ্যায়।
চলে গেলেন শিল্পী। রয়ে গেল তাঁর অভিনয়ের স্মৃতি।

Related Articles

Back to top button
Close