fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

দিল্লি হিংসায় অস্ত্রের জোগান দিতে অর্থ সরবরাহ করেছিল কংগ্রেস নেতা, জেরায় জানালেন উমর খালিদ

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: দিল্লি হিংসা নিয়ে সম্প্রতি চার্জশিট পেশ করেছে দিল্লি পুলিশ। সেখানে হিংসার সঙ্গে জড়িত লোকজন ও তাদের পরিকল্পনার বিষয়ে বিস্তারিত বলা হয়েছে। উমর খালিদকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। এই জিজ্ঞেসাবাদে উমর খালিদ স্বীকার করেছেন যে হিংসার জন্য অস্ত্রশস্ত্র মেরঠ থেকে আনা হয়েছিল। এর অস্ত্রের টাকা কংগ্রেসের প্রাক্তন কাউন্সিলর ইসরাত জাহান জোগান দিয়েছিলেন। CAA এবং NRC ইস্যুতে গত ফেব্রুয়ারি মাসে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল পুরো দেশ। দেশের বিভিন্নি প্রান্ত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয়।  আগুন জ্বলেছিল দেশের রাজধানী দিল্লীতে। এই হিংসার চার্জশিট সামনে আসতেই বিভিন্ন তথ্য বেরিয়ে আসছে। জানা গিয়েছে যে, এই হিংসার অর্থ সরবরাহ করেছিল খোদ কংগ্রেস নেতা। চার্জশিটের রিপোর্ট অনুযায়ী, দিল্লী হিংসায় হিন্দুদের টার্গেট করে করা হয়েছিল এবং কেন্দ্র সরকারকে অস্থির করে দেওয়াই ছিল হিংসার মূল উদেশ্য। ২৭৪ দিন ধরে হিংসার পরিকল্পনা করা হয়েছিল।

দিল্লী দাঙ্গার বিষয়ে উমর খালিদ স্বীকার করেছে্ন যে, পরিকল্পনা করে মেরঠ থেকে অস্ত্রশস্ত্র আনা হয়েছিল। শুধুমাত্র হিন্দুদের লক্ষ্য করে এই হিংসার ঘটনা হয়েছিল। হিংসার মূল কারণই ছিল যে, কেন্দ্রীয় সরকারকে অস্থির করে তোলা।  উমর খালিদ আরও স্বীকার করেছেন যে, উত্তর-পূর্ব দিল্লিকে হিংসায় জ্বালিয়ে দেওয়ার জন্য অস্ত্রের টাকা কংগ্রেস নেতা ইসরাত জাহান দিয়েছিলেন।

[আরও পড়ুন- মহারাষ্ট্রের আবাসন ভেঙে পড়ার ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৩৩]

উল্লেখ্য, দিল্লি হিংসায় প্ররোচনা দেওয়ার অভিযোগে গ্রেফতার হয়েছিল দিল্লি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্র উমর খলিদ। উমরের বিরুদ্ধে বেআইনি কার্যকলাপ প্রতিরোধ আইনে (UAPA) মামলা দায়ের হয়। গত ফেব্রুয়ারি মাসে সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন ও এনআরসির প্রতিবাদে উত্তপ্ত হয়ে উঠেছিল গোটা দেশ। রাজধানী দিল্লিতেও দেখা দিয়েছিল প্রতিবাদের আগুন। তার চরম পরিণতি ছিল ২৩ থেকে ২৬ ফেব্রুয়ারি উত্তর-পূর্ব দিল্লিতে দাঙ্গা। যার বলি হয়ে হয় ৫০-এর বেশি মানুষকে। আহত হয়েছিলেন ৪০০ জনের মতো মানুষ। এই হিংসার ঘটনায় এবার জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সংসদের প্রাক্তন সদস্য উমর খালিদকে গ্রেফতার করে দিল্লি পুলিশ। গ্রেফতারির পর তাঁকে দীর্ঘক্ষণ জেরা করে দিল্লি পুলিশ। সাপ্লিমেন্টারি চার্জশিটে সিপিএম নেতা সীতারাম ইয়েচুরি স্বরাজ অভিযানের নেতা যোগেন্দ্র যাদব, ভীম আর্মির প্রধান চন্দ্রশেখর, উমর খালিদ-সহ আরও কিছু নেতার নাম উল্লেখ করে বলে সূত্রে খবর। এই নিয়ে ইতিমধ্যেই ক্ষোভে ফুঁসছেন বিরোধীরা।

উমর খালিদকে জিজ্ঞেসাবাদ করে আরও জানা যায় যে, দিল্লী হিংসা নিয়ে অভিযুক্ত সফুরা জারগর নামে এক ব্যক্তি হোয়াটসএপ গ্রুপে বিভিন্ন জায়গায় রাস্তা আটকে রাস্তার মোড়ে মোড়ে দাঙ্গা করার জন্য লাগাতার উস্কানিতে যুক্ত ছিল। দিল্লি হিংসার আরেক অভিযুক্ত শেহজাদ খান এই হিংসাকে পুরো দেশে ছড়িয়ে দেওয়ার জন্য পরিকল্পনা করছিল। সে আরও জানিয়েছে যে, দিল্লী হিংসায়  আরেক অভিযুক্ত তাবরেজ মহিলাদের পাথর ছোঁড়ার কাজে উদ্বুদ্ধ করেছিল।

Related Articles

Back to top button
Close