fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শ্রমিক স্পেশালকে ‘করোনা এক্সপ্রেস’! রাজ্যের মানুষকে ভাইরাস বলায় মুখ্যমন্ত্রীকে ক্ষমা চাইতে হবে: রাজু

সঞ্জিত সেনগুপ্ত, শিলিগুড়ি: শ্রমিক স্পেশাল ট্রেনকে করোনা এক্সপ্রেস বলায় মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে রাজ্যবাসীর কাছে ক্ষমা চাইতে বললেন দার্জিলিংয়ের বিজেপি সাংসদ রাজু বিস্ত। সাংসদ এর কথায় মুখ্যমন্ত্রী শ্রমিক স্পেশালকে এক্সপ্রেস বলে বাইরে আটকে থাকা রাজ্যের মানুষকে অপমান করেছেন। কেননা এর মধ্য দিয়ে তাদের তিনি ভাইরাস বলছেন।

সোমবার লিখিত বিবৃতিতে এই সাংসদ বলেন,’ ভিনরাজ্যে কাজের জন্য গিয়ে এখানকার মানুষ এখন যে সংকট ও বিপদের মধ্যে রয়েছেন তাতে মুখ্যমন্ত্রীর ধরনের ব্যবহার তাদের কাটা ঘায়ে নুনের ছিটা দিচ্ছে। অবিলম্বে এদের কাছে মুখ্যমন্ত্রীর ক্ষমা চাওয়া উচিত।’

কাজ ও শিক্ষার জন্য যারা অন্য রাজ্যে গিয়েছিলেন তাদের সম্পর্কে মুখ্যমন্ত্রী কীভাবে এধরণের মন্তব্য করেন তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন রাজু বিস্ত। তিনি বলেন,’ বামফ্রন্টের ৩৪ বছর ও তৃণমূল সরকারের ৯ বছরে এই রাজ্যের অর্থনীতি ভেঙে গিয়েছে। তাই আজ করোনা এক্সপ্রেস বলে রাজ্যের মানুষকে ভাইরাস বলার আগে মুখ্যমন্ত্রীকে জবাব দিতে হবে কেন রাজ্যের এত মানুষকে কাজের জন্য অন্যরাজ্যে যেতে হয়েছিল। তৃণমূল সরকার ৯ বছরে কেন রাজ্যের মানুষকে রাজ্যে কাজের ব্যবস্থা করে দিতে পারেনি।’

এপ্রসঙ্গে সাংসদের কটাক্ষ, ‘ রাজ্যে বিনিয়োগের বিরোধিতা করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ক্ষমতায় এসেছেন। তাই তাঁর সরকার কাটমানি, সিন্ডিকেট রাজকেই কর্মসংস্থান ও উন্নয়ন ভাবে। সেজন্য আজ রাজ্যবাসীর মাথার উপর তৃণমূল সরকার ৪ লক্ষ ৭ হাজার কোটি টাকা ঋণের বোঝা চাপিয়ে দিয়েছে।’

মুখ্যমন্ত্রীর জন্যই ভিন রাজ্যে আটকে পড়া এখানকার মানুষরা সঙ্কটে পড়েছেন বলে দাবি করেন সাংসদ। কেননা তিনি জানান, প্রধানমন্ত্রী ৩০ এপ্রিল সব রাজ্যকে তাদের আটকে পড়া মানুষকে ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যবস্থা করার কথা বলেছিলেন।

সেই মতো সব রাজ্য বিভিন্ন রাজ্য থেকে তাদের শ্রমিকদের ফিরিয়ে নেওয়া শুরু করলেও পশ্চিমবঙ্গ সরকার ১৪ মে পর্যন্ত এব্যাপারে নিরব ছিল। শুধু তাই নয়, লকডাউনে সব রাজ্য বাইরে তাদের আটকে পড়া শ্রমিক ও মানুষদের ত্রাণ পাঠিয়েছে। সেখানে ব্যতিক্রম তৃণসূল সরকার। রাজু বিস্ত বলেন, ‘ বিপদের দিনে যাদের পাশে দাঁড়াননি আজ তাদের ভাইরাস বলছেন মুখ্যমন্ত্রী। এটা ভাবা যায় না।’

Related Articles

Back to top button
Close