fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বোমাবাজির ঘটনায় দুই দাপুটে তৃণমূল নেতা হাজতবাসের নির্দেশ দিল আদালত 

নিজস্ব প্রতিনিধি, ভগবানপুর (পূর্ব মেদিনীপুর): পবিত্র ঈদের দিনে এলাকায় বোমাবাজি করার ঘটনায় গ্রেফতার দুই দাপুটে তৃণমূল নেতার হাজতবাসের নির্দেশ দিল কাঁথি মহকুমা আদালত। অভিযুক্তরা হল পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ভগবানপুর থানা লালপুর গ্রামের হারুন রশিদ ও আজিমুল হোসেন। রবিবার দুই অভিযুক্ত তৃণমূল নেতাকে কাঁথি মহকুমা আদালতে তোলা হলে বিচারক তাদের জামিন নাকচ করে জেল হাজতের নির্দেশ দেন।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে দুই তৃণমূল নেতার গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব দীর্ঘদিনের। এনিয়ে এলাকায় ব্যাপক বোমাবাজি করত দুই পক্ষই বলে অভিযোগ। এর আগে এলাকায় বোমাবাজির ঘটনায় বেশ কয়েকজন গ্রেফতার হয়েছিল দুই তৃণমূল নেতার অনুগামীরা। গত ২৫ শে মে অর্থাৎ পবিত্র ঈদের দিনে দুই তৃণমূল নেতা গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরমে ওঠে। দুই পক্ষই একের পর এক এলাকায় বোমাবাজি করতে থাকে বলে অভিযোগ। ঘটনার খবর পেয়ে এলাকায় পৌঁছায় ভগবানপুর থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী।

পুলিশকে লক্ষ্য করে একের পর এক বোমাবাজি করে দুই পক্ষই বলে অভিযোগ। বোমাবাজি ফলে এক পুলিশ কর্মী সহ বেশ কয়েকজন আহত হয়। তাদের উদ্ধার করে ভগবানপুর গ্রামীন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে নামানো র‍্যাফ ও কম্বাটফোর্স। তারপরেই পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। এরপর পুলিশ একটি স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু করে ঘটনার তদন্ত শুরু করে।

ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে দুই পক্ষের  অনুগামীদের গ্রেফতার করে পুলিশ।এলাকায় মদত দেওয়ার ও বোমাবাজি যুক্ত থাকার অভিযোগে এলাকায় দাপুটে তৃণমূল নেতা হারুন রশিদ ও আজিমুর হোসেনকে গ্রেফতার করে। তদন্তের কারণে  দুই অভিযুক্তকে কাঁথি মহকুমা আদালত থেকে নিজেদের হেফাজতে নেয় ভগবানপুর থানার পুলিশ। রবিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কাঁথি আদালতের বিচারক জামিন নাকচ করেন। ভগবানপুর থানার পুলিশের কথায় গোটা এলাকায় চিরুনি তল্লাশি শুরু হয়েছে। এলাকা থেকে আগ্নেয়াস্ত্র ও বোমা উদ্ধার করা হয়েছে। এলাকার জোরদার পুলিশি টহল চলছে।

Related Articles

Back to top button
Close