fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

শহরের প্রবেশ পথ আটকে করোনা মোকাবিলায় জেলা প্রশাসন

মিল্টন পাল, মালদা: শহরের প্রবেশ পথ আটকে করোনা মোকাবিলায় মালদা জেলা প্রশাসন। ফলে শহরের প্রবেশ পথের কেন্দ্র গুলি সিল করেছে পুলিশ। মালদা জেলায় লকডাউনে জরুরী পরিষেবা বাদ দিয়ে বন্ধ সমস্ত দোকান বাজার হাট। এরই মধ্যে কোভিড আক্রান্ত মালদার জেলা প্রশাসনিক ভবনের আধিকারিকেরা, পুলিশ আধিকারিক সহ সাধারন মানুষ। তাদের কেউ হোম আইসোলেশনে আবার অতিরিক্ত অসুস্থরা নারায়নপুরের কোভিড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। লকডাউনের রবিবার কিছু কিছু জায়গায় গোপন ভাবে দোকান খোলায় পুলিশ বিশেষ নজরদারিও চালায়।

স্বাস্থ্য দফতর সূত্রের খবর মালদায় নতুন করে আক্রান্তের সংখ্যা ৯৮ জন। মোট আক্রান্তের সংখ্যা ১,৭১১ জন। সুস্থ হয়েছে ১,১১৮জন। মৃত্যু হয়েছে ৭ জনের। লকডাউনে শহরের প্রবেশ পথে পুলিশ ব্যরিকেড দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। যাতে কোনওভাবেই কেউ প্রবেশ করতে না পারে। লকডাউনে আরও কড়াকড়ি মালদা শহর। এমনকি মালদা শহরের প্রবেশ করার প্রধান রাস্তাগুলিও পুলিশি ব্যারিকেড দিয়ে ঘিরে ফেলা হলেও প্রতিনিয়ত চলছে ইংরেজবাজার থানার পুলিশের নজরদারি।

[আরও পড়ুন- ৫২ জন শিক্ষক-শিক্ষিকার বিজেপি টিচার্স সেলে যোগ পুরুলিয়ায়]

করোনা সংক্রমণ রুখতে পুলিশ এবং প্রশাসন কড়া হাতে এবার ময়দানে নেমেছে। গোষ্ঠী সংক্রমণ এড়াতেই পুলিশ ও প্রশাসনের এই বিশেষ ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। মালদা শহরের রথবাড়ি, আইটিআই কলেজ মোড়, গৌড়রোড, সাহাপুর দ্বিতীয় সেতু রাস্তাগুলি ইংরেজবাজার শহরের ঢোকার প্রধান প্রবেশদ্বার। আর সেইসব রাস্তায় পুলিশি ব্যারিকেড দিয়ে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। বহিরাগত কোন যানবাহনকে শহরে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না চলছে পুলিশের কড়া নজরদারি।

মালদা মার্চেন্ট চেম্বার অফ কর্মাসের সম্পাদক জয়ন্ত কুন্ডু বলেন, জেলায় করোনা মোকাবিলায় লকডাউনের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। প্রশাসনের পাশে থেকে আমরা সমস্ত রকম সহযোগিতা করব। মানুষ সচেতন হলে করোনা মোকাবিলায় মানুষ জয়ী হবে। যদিও জেলা পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া বলেন, মানুষকে সচেতন করতে এই উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। পুলিশ প্রশাসনও নজর রাখছে শহর জুড়ে।

Related Articles

Back to top button
Close