fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

খড়দহ পুলিশের তৎপরতায় ব্যাঙ্ক প্রতারণার শিকার হওয়া চিকিৎসক দম্পতি ফেরত পেলেন ২১ লক্ষ টাকা

ওড়িশা থেকে ধৃত ২ প্রতারক

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: ব্যারাকপুর পুলিশ কমিশনারেটের অন্তর্গত খড়দহ থানার পুলিশের তৎপরতায় ব্যাঙ্ক প্রতারণার শিকার হওয়া চিকিৎসক দম্পতি ফেরত পেলেন ২১ লক্ষ টাকা। মাত্র ২ সপ্তাহের মধ্যে তাদের নিজেদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে ওই টাকা ফেরত পান বলে জানা গিয়েছে। এই ঘটনায় খুশি খড়দহের ডাক্তার দম্পতি ডা: শ্যামল হাজরা ও ডা: অপর্ণা হাজরা। এদিকে এই ব্যাঙ্ক প্রতারণার ঘটনায় খড়দহ থানার পুলিশ উরিষ্যা থেকে ইতিমধ্যেই গ্রেফতার করেছে ২ প্রতারককে। জানা গিয়েছে, তাদের নাম ঋষি প্রতাপ সিং ও হরিশ বেহরা।

পুলিশ সূত্রের খবর, ধৃতরা ওই চিকিৎসক দম্পতির ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট থেকে দুদিন আলাদা আলাদা ভাবে চেকের মাধ্যমে মোট ২১ লক্ষ টাকা তুলে নেয় নিজেদের অ্যাকাউন্টে। তবে আশ্চর্যের বিষয় ওই প্রতারকরা নকল চেক ব্যবহার করে উড়িষ্যা থেকে নিজেদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সেই টাকা তুলেছিল। ডাক্তার দম্পতির দাবি, তাদের হাতেই রয়েছে ব্যাংকের আসল চেক। ওড়িশার ব্যাংক অফ বরোদার নকল চেক ব্যবহার করে দুষ্কৃতীরা এই জালিয়াতি করেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

ব্যারাকপুরের বিএন বসু মহকুমা হাসপাতালের উচ্চ পদস্থ চিকিৎসক হলেন ডা : অপর্ণা হাজরা। ব্যাংক প্রতারণার শিকার হওয়া চিকিৎসক ডা: অপর্ণা হাজরা বলেন, “গত ২৮ সেপ্টেম্বর আমি যখন কোভিড আক্রান্তদের চিকিৎসা পরিষেবা দিতে ব্যস্ত ছিলাম বিএন বসু মহকুমা হাসপাতালে, তখন হঠাৎ করেই আমার মোবাইলের ভোডাফোন সিম কার্ড ব্লক করে দেওয়া হয়। তবে সেটা নিয়ে আমি খুব একটা চিন্তিত ছিলাম না তখন, কারণ আমার জিও মোবাইল ফোন চালু ছিল। তারপর আমি দুদিনের মধ্যে অন্য সিমকার্ড কিনে নিই। একইভাবে চলতি মাসের ৬ তারিখ আমার স্বামী ডা: শ্যামল হাজরার ভোডাফোন মোবাইল নম্বরও একই ভাবে ব্লক করা হয়। পরে তার মোবাইলে ব্যাঙ্ক অফ বরোদা, সোদপুর শাখা থেকে মাসিক স্টেটমেন্ট আসে। সেখানে বলা হয়, তার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে চেকের মাধ্যমে ৭ লক্ষ টাকা তোলা হয়েছে। তখন আমি আমার অ্যাকাউন্ট চেক করলে বুঝতে পারি আমার ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে আগেই ১৩ লক্ষ টাকা তোলা হয়েছে। এরপর আমরা খড়দহ থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করি।”

পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে জানতে পারে পুরো জালিয়াতি চক্র সংগঠিত হয়েছে ওড়িশা থেকে। পুলিশ ঘটনার তদন্তে নেমে ওড়িশা থেকে দুই প্রতারককে গ্রেফতার করে। এদিকে এরই মধ্যে দুই দফায় ওই দম্পতির পুরো টাকাটাই অ্যাকাউন্টে ফেরতও পাঠানো হয় বলে জানিয়েছে তারা। পুলিশ ওড়িশা থেকে ২ দুষ্কৃতীকে গ্রেফতার করে খড়দহে নিয়ে আসে। ধৃতদের জেরা করছে খড়দহ থানার পুলিশ। ভিন রাজ্যে বসে কিভাবে চলছে এই ব্যাংক জালিয়াতি চক্র তা খতিয়ে দেখছে খড়দহ থানার পুলিশ কর্মীরা।

Related Articles

Back to top button
Close