fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কোলাঘাটের দেহাটি লকগেটের জলনিকাশি অবস্থা বেহাল, সঙ্কটে চাষিরা

ভাস্করব্রত পতি, তমলুক: প্রশাসনিক ব্যর্থতায় পূর্ব মেদিনীপুরের কোলাঘাটের দেহাটি লকগেটের সব গেট দিয়ে ঠিকমতো জল নিষ্কাশণ হয় না। ফলে কোলাঘাট ব্লকের বেশ কয়েকটি গ্রামের ফুলচাষের জমি এখন জলের তলায়। ক্রমশই বাড়ছে চাষিদের মধ্যে। একদিকে লকডাউনে তাঁরা রীতিমত ক্ষতিগ্রস্থ। এরপর এভাবে জলডোবা হয়ে চাষের ক্ষতি বেড়েছে কয়েকগুণ।
এই ব্লকের বৃন্দাবনচক, সিদ্ধা-১, সাগরবাড়, খন্যাডিহী, পুলশিটা গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকার জল বের হয়ে থাকে দেহাটি খাল হয়ে রূপনারায়ণে। এই গ্রাম পঞ্চায়েত এলাকাগুলির সব থেকে নিচু গ্রামগুলি হল উত্তর জিয়াদা, শ্রীধরবসান, দেউলবাড়, কয়াআয়মাচক প্রভৃতি।

সাম্প্রতিক নিম্নচাপজনিত অতিবৃষ্টির কারণে এই মৌজাগুলির বর্ষার জল ঠিকমত না বের হওয়ার এলাকার ফুলের চাষ, নিচু এলাকার পুকুরের মাছ ও গ্রামীণ রাস্তা ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ফলে আসন্ন দুর্গাপুজোর মরসুমে ফুল যোগানের উপর এর প্রভাব পড়বে। এছাড়াও বক্সীতলা, খন্যাডিহি, পূর্ব স্যাওড়াবেড়িয়া প্রভৃতি এলাকার যে সমস্ত গ্রামে মাঠের জমিতে ফুলের চাষ হয়ে থাকে, সেই এলাকার চাষও ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে।

আরও পড়ুন: কনভয় গাড়ির সঙ্গে অপর গাড়ির ধাক্কা, অল্পের জন্য রক্ষা পেলেন অন্ধ্রপ্রদেশের প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী এন চন্দ্রবাবু নাইডু

উপরোক্ত এলাকার ফুলচাষি সহ সর্বস্তরের কৃষকদের নিয়ে উত্তর জিয়াদা হাইস্কুলে এক কৃষক কনভেনশন অনুষ্ঠিত হয়। কনভেনশনে থেকে দ্রুত ওই লকগেট সংস্কার ও এলাকার খালগুলোতে জমে থাকা সমস্ত রকম আবর্জনা পরিষ্কার এবং ক্ষতিগ্রস্ত চাষের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণ প্রদানের বিষয়ে বিডিও এবং সেচ দফতর ও গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসে ডেপুটেশন কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়। কনভেনশনে বক্তব্য রাখেন কৃষক সংগ্রাম পরিষদের সম্পাদক নারায়ণ চন্দ্র নায়ক। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন পরিষদের সভাপতি গোপাল সামন্ত সহ সভাপতি মধুসূদন ভৌমিক সহ অন্যান্য নেতৃবৃন্দ।

Related Articles

Back to top button
Close