fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

করোনা আবহে বেসরকারি স্কুল গুলির ফি বৃদ্ধিতে কড়া হুশিয়ারি শিক্ষামন্ত্রীর

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: ফের করোনা আবহে বেসরকারি ও আন-এডেড স্কুলগুলিকে ফি বৃদ্ধি জন্য কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। একই সঙ্গে স্কুল শিক্ষা দফতরের পক্ষ থেকেও বেসরকারি ও আন এডেড স্কুলগুলিকে ফের চিঠি পাঠানো হল। বৃহস্পতিবার এক ভিডিও বার্তায় শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘কোনমতেই করোনার দুর্দিনে বেসরকারি স্কুল গুলির ফি বৃদ্ধি করা যাবে না। নইলে কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে। প্রাইভেট বিদ্যালয়গুলিকে ইতিমধ্যেই দ্বিতীয়বার জানানো হল যে, তাঁরা এই মুহূর্তে ফি বৃদ্ধি করতে পারবে না। স্কুলের মাহিনা বাবদ টাকা না দিলে অনলাইনে শিক্ষায় যোগ দিতে না পারার সিদ্ধান্ত সঠিক নয়। সবাইকেই সেই সুযোগ দিতে হবে। এ ব্যাপারে সরকারের মনোভাব যথেষ্ট কঠোর। আশা করি প্রাইভেট স্কুলগুলি সরকারের এই মনোভাব অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবেন এবং অভিভাবকদের উপর মানসিক চাপ তৈরি করা থেকে বিরত থাকবেন। দেশের এই করুন পরিস্থিতিতে সকলে সবার পাশে থাকুন।’

এর আগে বিভিন্ন স্কুলের অভিভাবকদের কাছ থেকে ফি বৃদ্ধি নিয়ে বিস্তর অভিযোগ আসছিল। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে স্কুল শিক্ষা দপ্তরের পক্ষ থেকে ১০ এপ্রিল হুঁশিয়ারি দেওয়া চিঠি সংশ্লিষ্ট স্কুল সহ সিবিএসই ও সিআইএসসিই বোর্ডের কাছেও পাঠানো হয়। এর আগে রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী ও স্কুল শিক্ষা দপ্তরের তরফ থেকে একাধিকবার আবেদন, পরামর্শ দেওয়ার পরও বহু বেসরকারি স্কুল এখনও ফি বৃদ্ধি করে চলেছে। বর্ধিত ফি না দিতে পারলে পড়ুয়াদের অনলাইন ক্লাস থেকে ব্রাত্য রাখা হবে বলে অভিভাবকদের উপর চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে স্কুলের তরফ থেকে। এমন বহু অভিযোগ স্কুল শিক্ষা দপ্তরের কাছে জমা পড়েছে।

আরও পড়ুন: মহারাষ্ট্রের হিন্দু সন্ন্যাসী হত্যা, গণপিটুনি রোধ আইন চাইছেন ইসলামিক পন্ডিত

তাই একই সঙ্গে স্কুল শিক্ষা দফতরের পক্ষ থেকেও দপ্তরের সচিব মণীশ জৈন রাজ্যের সব প্রাইভেট ও আন-এডেড স্কুলগুলিকে আবারো চিঠি দিলেন। চিঠিতে বলা হয়েছে, আগে চিঠি পাঠিয়ে বলা সত্ত্বেও আমরা প্রাইভেট স্কুলের অভিভাবকদের থেকে বহু অভিযোগ পাচ্ছি যে, স্কুল কর্তৃপক্ষ চিঠিতে বলা আবেদন মানছে না। যেখানে রাজ্য একটা কঠিন সময়ের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে সেখানে পড়ুয়াদের স্বার্থরক্ষা করা সবথেকে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হওয়া উচিত। আপনাদের অনুরোধ করা হচ্ছে পূর্ববর্তী চিঠিতে যে আবেদন করা হয়েছে তা মানতে। এই সংক্রান্ত বিষয়ে কোনও সমস্যা হলে দপ্তরকে জানাতে পারে স্কুল। কিন্তু, আবেদন না মানলে তা গুরুত্ব সহকারে দেখা হবে বলেও হুঁশিয়ারি দেওয়া হয়েছে চিঠিতে। কোরোনা ভাইরাস নিয়ে তৈরি পরিস্থিতিতে বহু বেসরকারি প্রাইভেট ও আন-এডেড স্কুল প্রতি বছরের মতোই ফি বৃদ্ধি করে চলেছে। কোথাও কোথাও অন্য বছরের তুলনায় বেশি হারে বাড়ানো হয়েছে ফি। অভিভাবকদের এমন বহু অভিযোগ স্কুল শিক্ষা দপ্তরের কাছে আসে।

Related Articles

Back to top button
Close