fbpx
হেডলাইন

লোকাল চলতেই শিয়ালদায় ঢাকিদের চেনা ভিড়, খুশি পুজো উদ্যোক্তারা

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: বিগত কয়েক বছরের চেনা ছবিটা এবার দুর্গাপুজোর আগে হারিয়ে গিয়েছিল। পুজোর আগে তৃতীয়া কি চতুর্থীর দিন থেকেই শিয়ালদা বা হাওড়া স্টেশনে ‘শব্দব্রহ্ম’ তৈরি হতো। সেটা আর কিছুই নয় ঢাকের আওয়াজ। দলে দলে গ্রামবাংলা থেকে ঢাকিয়া আসতেন। পুজোর উদ্যোক্তারা তাঁদের নিয়ে যেতেন বিভিন্ন পুজো মণ্ডপে। এবার দুর্গাপুজোর আগে সেই ছবিটাই উধাও। কিন্তু লোকাল চলতেই শুরু করতেই শিয়ালদা স্টেশন চত্বরে দেখা মিললো বাকিদের। খুশি পুজোর উদ্যোক্তারাও।
বাকিদের কেউ এসেছেন বীরভূম, কেউ বর্ধমান কেউবা মুর্শিদাবাদ থেকে। করোনা সংক্রমণের আশঙ্কায় গত সাত মাসের বেশি বন্ধ ছিল লোকাল পরিষেবা। ফলে দূরের এইসব জেলা থেকে ঢাকিয়া দুর্গাপুজোর সময়ে কলকাতায় আসতে পারেন নি। মুর্শিদাবাদের কান্দির জগন্নাথ কাহার বলেন, ‘ সারাবছর পুজোর কদিনের অপেক্ষায় থাকি। দুর্গাপুজোয় রোজগার সবচেয়ে বেশি। তারপর কালিপুজো, জগদ্ধাত্রী পুজো রয়েছে। এবারতো দুর্গাপুজোয় ঘরে বসে কাটালাম। দেখি খালি পুজোয় কেমন বায়না হয়।’
পুজোর উদ্যোক্তারাও খুশি। মধ্য কলকাতার এক কালি পুজো কমিটির কর্তা সুদর্শন মুখোপাধ্যায় বলেন, ‘ ঢাকের আওয়াজ ছাড়া পুজো মণ্ডপ ফাঁকা ফাঁকা লাগে। দুর্গাপুজোর সময় খুব মনখারাপ ছিল। যাক লোকাল চললো বলে ঢাকি ভাইরা আসতে পারলেন। তবে কোভিড বিধিতে কোন শৈথিল্য নয়।’ অন্ধকার থেকে আলোয় ফেরার উৎসব দীপাবলী। করোনার কাঁটা মুক্ত হয়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চাইছেন সবাই। ঢাকের বোলে এবার মায়ের কাছে রোগমুক্তি, স্বাভাবিক জীবনে ফেরার আর্তি ফুটে উঠবে।

Related Articles

Back to top button
Close