fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

২০০ বছর পর এথেন্সের মসজিদে প্রথম জুমার নমাজ

এথেন্স: অটোমান সাম্রাজ্যের পতনের ২০০ বছর পর এই প্রথম স্থাপিত হওয়া মসজিদে জুমার নমাজ পড়ার সুযোগ পেয়েছেন গ্রীক মুসলিমরা। গত শুক্রবার সামাজিক দূরত্ব মেনে সেখানে জুমার নমাজ পড়ার অনুমতি দেয় গ্রীক প্রশাসন। ইমামতি করেন মরক্কো বংশোদ্ভূত ৪৯ বছর বয়সী গ্রীক নাগরিক জাকি মাহমুদ। এরপরেই গ্রীসের ধর্ম বিষয়ক সচিব জর্জিয়াস ক্যালানন্টিস জানান, ‘মসজিদটি সকলের কাছে গণতন্ত্র ও ধর্মীয় স্বাধীনতার একটি বার্তা পৌছে দেবে।’

১৯৭৯ সাল থেকেই মসজিদটি চালু করার বিরোধিতা করে আসছিল স্থানীয় অর্থডক্স চার্চ। সর্বশেষ ২০০৬ সালে সরকার মসজিদটি চালু করার অনুমতি দিলেও নানা আইনি জটিলতায় তা চালু করা হয়নি। এরপর ২০১৬ সালে ২২ আগস্ট এথেন্সে মসজিদ নির্মাণের ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করা হয়, একইসঙ্গে মসজিদ নির্মাণের জন্য একটি বিল অনুমোদন করা হয়। বিলে উল্লেখ করা হয়, ‘মসজিদটি এথেন্সের উপকণ্ঠ ভোটানিকোসে নির্মাণ করা হবে। আর এটি নির্মিত হবে গ্রীক নৌবাহিনীর অব্যবহৃত ঘাঁটিতে। এ জন্য ৯ লাখ ৪৬ ইউরো সমপরিমাণ অর্থ বরাদ্দ করা হবে।’

আরও পড়ুন: বাংলা ত্রিপুরার দুই বন্ধুর ৩৯ বছর পর পুনর্মিলন ঘটালো হ্যাম রেডিও

তথ্য বলছে, গ্রীসে ১৮২৯ সালে ওসমানিয়া শাসন অবসানের পর থেকে এথেন্সে আর মসজিদ তৈরি করা হয় নি। ওসমানিয়া সাম্রাজ্যের রাষ্ট্রীয় ধর্ম ‘ইসলাম’ থাকায় গ্রীসে এখনো ১০ লক্ষ মুসলমান বসবাস করেন। কিন্তু, ওসমানিয়া সাম্রাজ্যের অবসানের পর অর্থোডক্স চার্চ গ্রীসের ধর্মীয় কর্তৃত্ব পায়। সে সময় থেকে একের পর এক মসজিদসহ মুসলমান যুগের অনেক ঐতিহাসিক চিহ্ন নিশ্চিহ্ন করা হয়। এমনকী, ঐতিহাসিক জিসটারাকিস মসজিদকে কারাগার এবং লোকশিল্প যাদুঘরে রূপান্তর করা হয়। কিন্তু, বর্তমানে পরিস্থিতি বদলেছে। মধ্যপ্রাচ্য এবং উত্তর আফ্রিকা থেকে দলে দলে শরণার্থীর আসায় মসজিদ নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা অনেকটা বেড়ে গ্রীসে। তাছাড়া, ইউরোপীয় ইউনিয়নভুক্ত দেশগুলির রাজধানীর মধ্যে এথেন্সেই কেবল কোনও মসজিদ নেই। তাই, কূটনৈতিক কারণে নতুন করে মসজিদ নির্মাণের অনুমোদন দেয় গ্রীক সরকার।

Related Articles

Back to top button
Close