fbpx
একনজরে আজকের যুগশঙ্খদেশ

দীপাবলীর আগে সুখবর, ৩ শতাংশ ডিএ বাড়ল কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের  

নিজস্ব প্রতিনিধি: কয়েক মাস আগেই কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী ও অবসরপ্রাপ্তরা অতিরিক্ত ১১ শতাংশ মহার্ঘভাতা পেয়েছেন। এবার দীপাবলীর আগে ফের কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মীদের মহার্ঘভাতা বাড়ছে ৩ শতাংশ হারে। বৃহস্পতিবার এই বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করল কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক। এর সুবিধা পাবেন কেন্দ্রীয় সরকারের অবসরপ্রাপ্ত কর্মীরাও। এতদিন ডিএ ছিল ২৮ শতাংশ। এবার সেটা বেড়ে হল ৩১ শতাংশ। বাড়তি মহার্ঘভাতায় উপকৃত হবেন প্রায় ৪৭ লক্ষেরও বেশি কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী এবং ৬৮ লক্ষ পেনশন প্রাপক। টুইটে এই সুখবর জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী অনুরাগ ঠাকুর।

উল্লেখ্য, করোনা পরিস্থিতিতে গত বছর কেন্দ্রীয় কর্মীদের মহার্ঘ ভাতা প্রদান বন্ধ রাখা হয়েছিল। তবে করোনা সঙ্কট কাটিয়ে ফের চাঙ্গা হচ্ছে কোষাগার। রাজস্ব আদায় বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই বকেয়া ডিএ এবার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে অর্থমন্ত্রক। বৃহস্পতিবার সকালে  বৈঠক করে বকেয়া ডিএ দেওয়ার সিদ্ধান্তে সায় দেয় কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। ঠিক হয়, ৩ শতাংশ হারে বাড়ানো হবে ডিএ এবং ডিআর। এই ডিআর পেনশনভোগীদের জন্য।  নতুন হারে বর্ধিত ডিএ মিলবে চলতি বছরের ১ জুলাই থেকে। এই বাড়তি ডিএ দিতে কেন্দ্রকে বছরে খরচ করতে হবে অতিরিক্ত ৯৪৮৮.৭০ কোটি টাকা। আর অবসরপ্রাপ্তদের ডিয়ারনেস রিলিফ-সহ মোট কেন্দ্রের বাজেট দাঁড়াচ্ছে ৩৪,৪০০ কোটি টাকা। দীপাবলীর আগে বাড়তি মহার্ঘভাতা হাতে আসার খবরে স্বভাবতই উচ্ছ্বসিত কেন্দ্রীয় সরকারি কর্মী এবং পেনশনভোগীরা।

এদিকে কেন্দ্র ডিএ বাড়ালেও পশ্চিমবঙ্গ সরকার এ ব্যাপারে উদাসীন বলে অভিযোগ করেছে রাজ্যের কো-অর্ডিনেশন কমিটি।  রাজ্য সরকারের কাছে একই হারে মহার্ঘ ভাতা বৃদ্ধির দাবি তুলে প্রেস বিবৃতিতে দলের সাধারণ সম্পাদক বিজয় সিংহ’র বক্তব্য, ”যখন নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম আকাশছোঁয়া, পেট্রোপণ্যের মূল্যের সীমাহীন বৃদ্ধি সেই মুহূর্তে রাজ্য সরকারি কর্মচারীদের প্রতিনিয়ত বেতনহ্রাস এবং পাহাড় প্রমাণ বঞ্চনা। তাই আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে রাজ্য সরকারের কাছে কেন্দ্রীয় হারে মহার্ঘভাতা দেওয়ার জন্য দাবি জানাচ্ছি। ইতিমধ্যে গত ৮ সেপ্টেম্বর , ২০২১ আমাদের সংগঠনের পক্ষ থেকে বকেয়া মহার্ঘভাতা দেওয়ার দাবিতে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দেওয়া হয়েছে। বর্তমানে বকেয়া মহার্ঘভাতার পরিমাণ আরও ৩ শতাংশ বৃদ্ধি পেল। সুতরাং সরকার যদি এই প্রাপ্য বকেয়া মহার্ঘভাতা দেওয়ার কোনও সদিচ্ছা না দেখায়, তাহলে সরকারি কোষাগার থেকে প্রাপ্ত বেতনভুক কর্মচারীরা বৃহত্তর আন্দোলন সংগ্রামের পথে নামতে বাধ্য হবেন।”

Related Articles

Back to top button
Close