fbpx
দেশহেডলাইন

জেলবন্দী অর্ণবের নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করলেন মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  রিপাবলিক টিভির কর্ণধার অর্ণব গোস্বামী অভিযোগ করেছিলেন, জেলে তিনি নিপীড়নের শিকার হয়েছেন। তাঁকে পরিবারের লোকজনের সঙ্গে দেখা করতে দেওয়া হয়নি। এই অভিযোগ শুনে সক্রিয় হলেন মহারাষ্ট্রের রাজ্যপাল। তিনি রাজ্য সরকারকে জানিয়েছেন, অর্ণবকে নিয়ে উদ্বেগের যথেষ্ট কারণ আছে।  সোমবার সকালে রাজ্যপাল ভগত্‍ সিং কোশিয়ারি মহারাষ্ট্রের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখের সঙ্গে কথা বলেন। জেলবন্দী অর্ণবের নিরাপত্তা ও স্বাস্থ্য নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেন। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে রাজ্যপাল বলেন, অর্ণবের সঙ্গে তাঁর পরিবারের লোককে দেখা করতে দেওয়া হোক।

সোমবার রাজ্যের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অনিল দেশমুখের সঙ্গে এব্যাপারে কথা বলেন রাজ্যপাল। তালোজা জেলে নিয়ে যাওয়ার সময় অর্ণব অভিযোগ করেছিলেন, তাঁকে শনিবার বিকেলে আলিবাগ জেলে শারীরিক নিগ্রহ করা হয়েছে। পরিবারের সঙ্গেও দেখা করতে দেওয়া হয়নি। রাজ্যপাল অর্ণবের পরিবারের সঙ্গে অর্ণবকে দেখা করার অনুমতি দিতে বলেন দেশমুখকে। অর্ণবের স্ত্রীও তাঁর স্বামীকে শারীরিক নিগ্রহের অভিযোগ তুলেছিলেন। গত চার তারিখ স্থাপত্যবিদ অন্বয় নায়েকের আত্মহত্যা মামলায় অর্ণব সহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছিল মহারাষ্ট্র পুলিশ। তিনজনকেই আগামী ১৮ তারিখ পর্যন্ত বিচারবিভাগীয় হেপাজতের নির্দেশ দেয় আদালত।

অর্ণবের স্ত্রী সাম্যব্রতা রায় গোস্বামী এদিন বিবৃতি দিয়ে বলেছেন, ‘আমার স্বামী চার রাত জেলে কাটিয়েছেন। আজ সকালে একটা ব্ল্যাক আউট করা পুলিশ ভ্যানে তাঁকে তালোজা জেলে নিয়ে যাওয়া হয়। তিনি বারবার বলেছেন, তাঁর জীবন বিপন্ন। কেউ তাঁর কথায় কান দেয়নি।’ জেলে অত্যাচারের প্রসঙ্গ তুলে অর্ণবের স্ত্রী বলেন, ‘আমার স্বামী উকিলের সঙ্গে কথা বলতে চেয়েছিলেন। জেলার তাঁকে মারধর করেছেন। তিনি এখন হাতজোড় করে সুপ্রিম কোর্টের কাছে আবেদন জানাচ্ছেন, দয়া করে তাঁর ব্যাপারে হস্তক্ষেপ করা হোক। তাঁকে জামিন দেওয়া হোক।’ আত্মহত্যায় প্ররোচনা দেওয়ার মামলায় গ্রেফতার হন রিপাবলিক টিভির এডিটর ইন চিফ অর্ণব গোস্বামী। তাঁকে ১৪ দিনের জেল হেপাজতে পাঠানো হয়।

 

 

 

 

 

 

Related Articles

Back to top button
Close