fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

নব নির্মিত ফোল্ডেড ব্রিজের উদ্বোধনের পরেই চালু হল হাঁসখালি-বাদকুল্লা সড়ক পরিষেবা

শ্যামল কান্তি বিশ্বাস, হাঁসখালি: জনবহুল হাঁসখালি থেকে বাদকুল্লা পৌঁছানোর সড়কপথে ঘাঘারচড়ের ব্রিজ ভেঙে পড়ায় দীর্ঘ দিন সড়ক পরিষেবা বন্ধ ছিল। কংক্রিটের তৈরি এই ব্রিজটি বিগত দেড়মাস আগে ভেঙে পড়ায়, এলাকার জনগণ চরম দুর্ভোগ সহ বিপাকে পড়েন। সংশ্লিষ্ট এলাকার জনগনকে, নিরুপায় হয়ে জরুরিভিত্তিক পরিষেবা গ্ৰহণের ক্ষেত্রে বাদকুল্লা কিংবা হাঁসখালিতে পৌঁছানোর জন্য প্রায় সাত কিলোমিটার অতিরিক্ত ব্যবধানে চিত্রশালী ভায়া কাকমারির রাস্তা ব্যবহার করতে হচ্ছিল। দীর্ঘ দেড় মাসের ব্যবধানে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় আপৎকালীন পরিষেবা স্বরূপ ফোল্ডেড ব্রিজ নির্মাণ করে অবশেষে পরিষেবা চালু করা হল। কেন্দ্রের গার্ডেনরিচ শিপ বিল্ডার্স সংস্থার উদ্যোগে ৬০ লক্ষ টাকা ব্যয়ে এই ব্রিজটি নির্মিত হয়েছে।

আরও পড়ুন: মস্কোয় ফের চিনের মুখোমুখি ভারত

সম্প্রতি এই ব্রিজটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করতে আসেন, নদিয়া জেলা পরিষদের সভাধিপতি শ্রীমতি রিক্তা কুন্ডু। শ্রীমতি কুন্ডু সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বলেন, হাঁসখালি ব্লক কার্যালয়ের সঙ্গে জনবহুল বাদকুল্লা এলাকার সংযোগ স্থাপনে ঘাঘারচড়ের এই নব নির্মিত ব্রিজের গুরুত্ব অপরিসীম। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সম্মানীয় অতিথি নদিয়া জেলা শাসক বিভূ গোয়েল। তিনি তাঁর সংক্ষিপ্ত ভাষণে বলেন, এই ধরনের ফোল্ডেড ব্রিজ সাধারণত পাহাড়ি এলাকা কিংবা সেনাবাহিনীর প্রয়োজনে আপৎকালীন সময়ে তৈরি করা হয়ে থাকে। পরবর্তীতে এখানে স্থায়ী ব্রিজ নির্মিত হলে এই ব্রিজ তুলে নিয়ে অন্যত্রও পুনঃস্থাপন করা যেতে পারে।

আরও পড়ুন:মোদির ৭০তম জন্মদিন উপলক্ষে ৭০ সংকল্প বিজেপির

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য,এই ব্রিজের ধারণ ক্ষমতা চল্লিশ টন পর্যন্ত। অর্থাৎ চল্লিশ টনের উপরে কোনও ভারী গাড়ি এই পথে চলাচল করতে পারবে না। ষাট ফুট লম্বা এবং চোদ্দ ফুট চওড়া এই ব্রিজটি নির্মিত হওয়ায় এলাকার প্রায় দশটি গ্ৰামের জনসাধারণ ভীষণভাবে উপকৃত হবেন।

Related Articles

Back to top button
Close