fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

খড়দহ ফেরিঘাটের লোহার জেটি সংস্কার করে পুনরায় চালু হল ভেসেল পরিষেবা

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: প্রায় তিন মাস বন্ধ থাকার পর পুনরায় চালু হল উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহ এবং হুগলির রিষড়ার মধ্যে ফেরি সার্ভিস। আমফান ঝড়ের পরে পরিকাঠামোগত কিছু ত্রুটি দেখা দিয়েছিল খড়দহ ফেরিঘাটের লোহার জেটিতে। জেটির একাংশ ভেঙে গিয়েছিল। যার ফলে যাত্রীদের নিরাপত্তায় প্রশাসনের নির্দেশে বন্ধ হয়ে গেছিল খড়দহের গঙ্গা পাড়ের এই ফেরি সার্ভিস। সাধারন মানুষের সুবিধার্থে রাজ্য সরকারের ভূতল পরিবহণ দপ্তর এই ফেরিঘাট সংস্কারের কাজ শুরু করেছিল। দ্রুত খড়দহের গঙ্গা পাড়ের লোহার জেঠি সংস্কার করে বৃহস্পতিবার ফের এক অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে চালু করা হল খড়দহ ও রিষরার মধ্যে গঙ্গা বক্ষে ফেরি চলাচল।

রাজ্য ভূতল পরিবহন দফতরের আধিকারিক রজত বিশ্বাস, উত্তরপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক প্রবীর ঘোষালের উপস্থিতিতে এবং খড়দহ পুরসভার পৌর প্রশাসক কাজল সিনহার উপস্থিতিতে পুনরায় শুরু হল খড়দহ এবং ঋষরার মধ্যে ফেরি চলাচল। আপাতত দুটি অত্যাধুনিক ভেসেল দিয়ে পুনরায় শুরু হচ্ছে উত্তর ২৪ পরগনার খড়দহ ও হুগলী জেলার রিষরার মধ্যে ফেরি সার্ভিস, এমনটাই জানালেন রাজ্য ভূতল পরিবহন দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক রজত বিশ্বাস। উত্তরপাড়ার তৃণমূল বিধায়ক প্রবীর ঘোষাল বলেন, “বেশ কিছুদিন এই ফেরি সার্ভিস বন্ধ থাকায় মানুষ সমস্যায় পড়ছিল। এই গঙ্গার ঘাট দিয়ে দুই পাড়ে প্রত্যেকদিন অন্তত ১০ হাজার মানুষ যাতায়াত করে। তাই মানুষের যোগাযোগ ব্যবস্থা সুগম করতে আজকের পর থেকে এই ঘাটে ফেরি সার্ভিস সচল হবে।”

[আরও পড়ুন- টানা বৃষ্টির কারনে বেহাল মালদার ৩৪ নম্বর জাতীয় সড়ক]

জানা গেছে, শুক্রবার থেকে নিয়মিত চলবে এই ফেরি সার্ভিস। প্রতি ৩০ মিনিট অন্তর এই ফেরি চলাচল চালু থাকবে দুই পাড়ের মধ্যে। নতুন করে ফেরি সার্ভিস চালু হওয়ায় দুই পাড়ের অসংখ্য নিত্য যাত্রীদের যাতায়াতের সমস্যা মিটবে বলে মনে করা হচ্ছে। একই সঙ্গে যাত্রী নিরাপত্তার স্বার্থে দুই পাড়েই এদিন থেকেই চালু করা হয়েছে জল সাথী প্রকল্প। জল সাথী প্রকল্পে যুক্ত কর্মীদের প্রশাসনের পক্ষ থেকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে যে, জেটি থেকে ভেসেল ওঠা পর্যন্ত তারা যেন যাত্রীদের সুরক্ষাযর দিকে নজর দেন। খড়দহ পুরসভার পৌর প্রশাসক কাজল সিনহা বলেন, “মানুষের চাহিদার কথা মাথায় রেখেই রাজ্য সরকার এই জেটিটি দ্রুততার সঙ্গে সংস্কার করে দিল। এখন থেকে নিত্য যাত্রীরা খুব সহজেই উত্তর ২৪ পরগনা ও হুগলি জেলার সঙ্গে যোগাযোগ রেখে নির্দিষ্ট গন্তব্যে পৌঁছাতে পারবে ।”

 

Related Articles

Back to top button
Close