fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বাংলায় যে গণতন্ত্র নেই আজ ফের প্রমাণিত হল: অর্জুন সিং

সাংসদ অর্জুন সিংয়ের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনায় উত্তপ্ত ব্যারাকপুর, প্রতিবাদে পথ অবরোধ বিজেপির

অলোক কুমার ঘোষ, ব্যারাকপুর: ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনার প্রতিবাদে এদিন বিজেপি কর্মীরা ব্যারাকপুর, নৈহাটি, পানপুর, বাসুদেবপুর এলাকায় পথ অবরোধ কর্মসূচী পালন করে। অন্যদিকে হালিশহরের বোলদেঘাটায় তৃণমূলের যে পার্টি অফিসে আগুন লাগানো হয়েছিল সোমবার সেখানে তৃণমূল ছাত্র পরিষদের পক্ষ থেকে ধর্না কর্মসূচী পালন করা হয় এবং সাংসদ অর্জুন সিংয়ের গ্রেফতারের দাবি জানানো হয় প্রশাসনের কাছে। গোটা বিষয়টি নিয়ে বলতে গিয়ে নৈহাটির বিধায়ক পার্থ ভৌমিক বলেন, “বিজেপির সঙ্গে মানুষ নেই। অর্জুনের দল থেকে সবাই তৃণমূল ফিরছে। ও হতাশ হয়ে গুন্ডামি শুরু করেছে। ওকে চ্যালেঞ্জ করে বলছি, ও যদি এক বাপের ব্যাটা হয় তবে সিআরপিএফ বাদ দিয়ে এসে সুবোধের সঙ্গে লড়াই করে জিতে দেখাক, বুঝব ওর কত দম। দিলীপ ঘোষ বলেছিল বদলা হবে, অর্জুন সেই মত কাজ করছে ।” উত্তপ্ত হালিশহরে সোমবার সকাল থেকে চলছে বীজপুর থানার পুলিশের টহল অভিযান।

আরও পড়ুন:সাবধানবাণী…বাতাসে ছড়াচ্ছে মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ! ‘হু’ কে চিঠি দিয়ে দাবি গবেষকদের

 

এদিন শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের জন্মদিন হলেও আজকের দিনটা বিজেপি কর্মীরা রাস্তায় নেমে তৃণমূলের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ কর্মসূচি পালন করেই কাটাল।

সাংসদ অর্জুন সিং বলেন, “তৃণমূল পুলিশকে সঙ্গে নিয়ে যেভাবে বিজেপি কর্মীদের উপর হামলা করেছে তার বিচার জনতা করবে। পুলিশের কাছে অভিযোগ করে কোন ফল হবে না। আমরা তৃণমূলের এই হামলার ঘটনা দলীয় শীর্ষ নেতৃত্বের কাছে জানাচ্ছি ।”

প্রসঙ্গত রবিরাব রাতে তৃণমূল বিজেপি রাজনৈতিক সংঘর্ষে রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে উত্তর ২৪ পরগনার হালিশহর এলাকা। হালিশহর পুরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডের বোলদেঘাটা, বৈদ্যপাড়া এলাকায় রাতভর চলে বোমা, গুলির লড়াই। ভাঙচুর করা হয় বিজেপির একাধিক দলীয় কার্যালয়। বিজেপি কর্মীরাও পাল্টা আগুন লাগিয়ে দেয় তৃণমূল কংগ্রেসের একটি দলীয় কার্যালয়ে। উভয় রাজনৈতিক দলের সংঘর্ষের ঘটনায় বেশ কয়েকটি মোটর সাইকেল আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া হয়। এই ঘটনার জেরে গোটা হালিশহর পুরসভা এলাকা জুড়ে সোমবার সকাল থেকে চলে পুলিশি টহল। তৃণমূল ও বিজেপি কর্মীদের মধ্যে এই সংঘর্ষের ঘটনায় উভয় পক্ষের অন্তত ১০ জন জখম হয়েছে বলে খবর।

আরও পড়ুন:করোনা আবহে বিউবোনিক প্লেগ-এর হানা! সঠিক চিকিৎসা না হলে ২৪ ঘন্টার মধ্যে রোগির মৃত্যু

হালিশহরে বিজেপি তৃণমূল সংঘর্ষের সূত্রপাত হয় ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিংয়ের গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনাকে কেন্দ্র করে । ব্যারাকপুরের বিজেপি সাংসদ অর্জুন সিং রবিবার সন্ধ্যায় উত্তর ২৪ পরগনার হালিশহর পুরসভার ৯ নম্বর ওয়ার্ডে এক দলীয় কর্মীর বাড়িতে দলীয় কর্মসূচীতে যোগ দিয়েছিল।

অর্জুন সিংয়ের অভিযোগ, “আমি দলীয় কর্মীর বাড়ির বাইরে গাড়ি রেখেছিলাম। আমার দলের অন্য কর্মীদেরও গাড়ি সেখানে রাখা ছিল। হঠাৎ খবর পাই আমার গাড়িতে ভাঙচুর করা হচ্ছে। আমি বাইরে বেরিয়ে আসতেই ওরা পালিয়ে যায়। যারা ভাঙচুর করেছে তারা সবাই তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতী ছিল। বীজপুরের এক গুন্ডা সুবোধ অধিকারী পুলিশের সামনে দুষ্কৃতীদের নিয়ে এসে আমার গাড়িতে ভাঙচুর করেছে। তারপরই আমাদের কর্মীরা ওদের প্রতিরোধ করে। বাংলায় যে গণতন্ত্র নেই আজ ফের প্রমাণিত হল। সুবোধ অধিকারীর নেতৃত্বে আমাদের উপর হামলা হল।”

এদিকে অভিযোগ এই ঘটনার ছবি করতে গিয়ে আক্রান্ত হন বেশ কয়েকজন সাংবাদিক, কেড়ে নেওয়া হয় এক তাদের দামি মোবাইল ফোন। পরে কোনওরকমে আক্রান্ত সাংবাদিক প্রাণে বেঁচে বাড়ি ফেরে। গোটা ঘটনায় থমথমে হালিশহর।

Related Articles

Back to top button
Close