fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সরকারি খাস জমিতে ভুয়ো পাট্টা তৈরি করে বিক্রি করছে জমিমাফিয়ারা, অভিযোগ বাসিন্দাদের

শুভেন্দু  বন্দোপাধ্যায়, আসানসোল: আদিবাসী অধ্যুষিত এলাকার সরকারি খাস জমির জালিয়াতির মাধ্যমে ভুয়ো পাট্টা তৈরি করে শুরু করা হয়েছে বিক্রি। তা করছে জমি মাফিয়ারা। পশ্চিম বর্ধমান জেলার আসানসোল মহকুমার সালানপুর ব্লকের হোদলা মৌজায় এইরকমই জালিয়াতির মাধ্যমে জমি বিক্রির  অভিযোগ তুলেছেন এলাকার বাসিন্দারাই। তারা এই ব্যাপারে একজোট হয়ে এর বিরুদ্ধে সরব হয়ে  প্রতিবাদ জানিয়ে ভূমি ও ভূমি সংস্কার দফতরের কাছে তদন্তের দাবি তুলেছেন।

সালানপুর ব্লকের হোদলা মৌজাটি হচ্ছে মূলত ঝাড়খণ্ড লাগোয়া। এলাকার বেশিরভাগ জমি হচ্ছে বন দফতরের। এই হোদলা মৌজায় জনবসতি, স্কুল, বাজার সবকিছুই রয়েছে। তবে এলাকার একটা বড় অংশ রয়েছে ভেস্টেড বা সরকারি খাস জমি। সেইসব জমির জন্য অনেক সময় আবেদনের ভিত্তিতে আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া মানুষদের মূলত পাট্টা বিলি করা হয়।

[আরও পড়ুন- কালনা আদালতের জিআরও বিভাগে ফের ছাদের চাঙর ভাঙায় দফতর স্থানান্তরের দাবি]

কিন্তু সম্প্রতি এলাকার বাসিন্দারা দেখতে পান যে, যেসব জমি পাট্টার জন্য চিহ্নিত রয়েছে,  সেইসব জমিতে বড় বড় বাড়ি বা পাঁচিল তোলা  হচ্ছে। তারা বুঝতে পারেন যে, এই কাজ জমি মাফিয়াদের। সালানপুর ব্লকের হোদলা মৌজায় জমি মাফিয়াদের বাড়বাড়ন্ত দেখে মাইথন লেফটব্যাঙ্ক এলাকার বাসিন্দারা একত্রিত হয়ে প্রতিবাদে নামেন। আন্দোলনের নেতৃত্বে থাকা স্থানীয় বাসিন্দা বিজয় সিং বলেন,  আমরা ব্লক প্রশাসন, বিএলআরও ও পুলিশ প্রশাসনের নজরে বিষয়টি এনেছি।

তারা বলেন, আমাদের সন্দেহ গরীব মানুষের পাট্টা আদায় করে সেই জমি বিক্রি করে দিচ্ছে জমি মাফিয়ারা। আরও এক বাসিন্দা রোহিত রাম বলেন যে,  সরকারি জমি মাপ করে সঠিক তদন্ত করা হোক। আমাদের এটাই দাবি। শুক্রবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে অনুজ সিং, রাম কুমার মিশ্র, বান্টি গুপ্তা, মনোজ সিংরা এই দাবি করে বলেন,  এই কাজ বন্ধ না হলে জেলাশাসকের কার্যালয়ে আমরা যাব। প্রয়োজনে বিএলআরও অফিসও ঘেরাও করা হবে। সালানপুরের বিডিওর কাছেও আমরা যাব। পশ্চিম বর্ধমানের জেলাশাসক পূর্ণেন্দু কুমার মাজি এদিন বলেন, আমার কাছে এমন অভিযোগ কেউ করেননি। পেলে অবশ্যই ক্ষতিয়ে দেখে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close