fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

প্রয়াত প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা যশবন্ত সিং

টুইটে শ্রদ্ধাজ্ঞাপন প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষামন্ত্রীর

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: প্রয়াত প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী তথা বিজেপি নেতা যশবন্ত সিং। রবিবার সকাল ৬টা ৫৫ মিনিটে দিল্লির সেনা হাসপাতালে শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। ২০১৪ সালে নিজের বাড়িতেই মাথায় আঘাত পান তিনি। এরপর থেকে টানা ৬ বছর কোমায় ছিলেন তিনি। তাঁর মৃত্যুতে টুইট করে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং প্রমুখ। তাঁর মৃত্যুতে শোকস্তদ্ধ রাজনৈতিক মহল।

বিজেপি নেতা যশবন্ত সিং একজন বর্ষীয়ান রাজনীতিবিদ হিসেবে দক্ষতার সঙ্গে রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড সামলে এসেছিলেন তিনি। অটল বিহারী বাজপেয়ী সরকারে আমলে প্রতিরক্ষা, অর্থ ও বিদেশ মন্ত্রকের দায়িত্ব ছিল বর্ষীয়ান এই বিজেপি নেতার কাঁধে। রাজনীতিতে দীর্ঘ সময় ধরে সাংসদের ভূমিকায় দেখা গিয়েছে তাঁকে।

সুদীর্ঘ রাজনীতির জীবনে যশবন্ত সিং একজন দক্ষ রাজনীতিবিদ হিসেবে পরিচিত ছিলেন। ১৯৯৮ সাল থেকে ২০০২ সাল পর্যন্ত বিদেশ মন্ত্রক, পরে ২০০০ থেকে ২০০১ সাল পর্যন্ত প্রতিরক্ষা ও ২০০২ সাল থেকে ২০০৪ সাল পর্যন্ত অর্থ মন্ত্রকের দায়িত্ব অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে সামলেছেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইট করে জানিয়েছেন, ‘যশবন্ত সিংজি দেশের অনেক সেবা করেছেন। প্রথমে একজন জওয়ান হিসেবে ও তারপরে রাজনীতিবিদ হিসেবে নিজের কাজ করেছেন তিনি। অটলজির সরকারের সময় অর্থ, প্রতিরক্ষা ও বিদেশমন্ত্রী হিসেবে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে যশবন্ত সিংজির। তাঁর মৃত্যুতে শোকাহত।’ প্রধানমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে বলেন, ‘যশবন্ত সিংজিকে সব সময় মনে রাখা হবে রাজনীতি হিসেবে। বিজেপিকে শক্তিশালী তাঁর ভূমিকা অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য। ওঁনার পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানাই’।

আরও পড়ুন:সাইবার নিরাপত্তায় জোর! কলকাতা পুলিশের ৯টি ডিভিশনে পুজোর আগেই খুলছে সাইবার ল্যাব

প্রয়াত নেতার মৃত্যুতে শ্রদ্ধা জানিয়ে টুইট করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং। তিনি ‘বর্ষীয়ান বিজেপি নেতা ও প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী যশবন্ত সিংজির মৃত্যুতে গভীর শোকাহত। প্রতিরক্ষামন্ত্রী হিসেবে দেশের দায়িত্ব দক্ষতার সঙ্গে সামলেছেন তিনি। একজন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রী ও সাংসদ হিসেবে তাঁর ভূমিকা তুলে ধরেছিলেন তিনি’।

প্রসঙ্গত, রাজস্থানের বারমের জেলার জসোল গ্রামে যশোবন্তের জন্ম ১৯৩৮ সালের ৩ জানুয়ারি। মেয়ো কলেজ এবং ন্যাশনাল ডিফেন্স অ্যাকাডেমি উত্তীর্ণ যশোবন্ত ভারতীয় সেনাবাহিনীতে যোগ দেন ষাটের দশকে। রাজনীতিতে প্রবেশ ষাটের দশকে। শেষ দিকে। রাজ্যসভায় প্রথম পা রাখেন আশির দশকে।

২০০৯ সালে নিজের লেখা বই – ‘জিন্নাহ – ইন্ডিয়া, পার্টিশন, ইন্ডিপেন্ডেন্স’-এ মহম্মদ আলি জিন্নাহর প্রশংসা করায় গেরুয়া শিবির থেকে বহিষ্কার করা হয় যশবন্ত সিংকে।

পরে তাঁকে দলে নেওয়া হলেও ২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির তরফ থেকে তাঁকে টিকিট না দেওয়ায় দল ছাড়েন তিনি। নির্দল প্রার্থী হিসেবে রাজস্থানের বার্মার থেকে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও বিজেপির কর্ণেল সোনা রামের কাছে হেরে যান তিনি।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close