fbpx
কলকাতাপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

ভোট কাটলে বিজেপির সুবিধা হবে, মনে করছে কিছু মুসলিম নেতা, পীরজাদা আব্বাসকে কাছে পেতে চাইছে বাম-কংগ্রেস

মোকতার হোসেন মন্ডল: ভোট কাটলে বিজেপির সুবিধা হবে, এমনটাই মনে করছেন কিছু মুসলিম নেতা আর তাই মুসলিমদের একাংশ চাইছেন, ফুরফুরা দরবার শরীফের পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী আগামী বিধানসভা ভোটে যেন প্রার্থী না দেন এদিকে পীরজাদা আব্বাসকে কাছে পেতে চাইছে বামকংগ্রেস শাসক দলের অনেকে যোগাযোগ করছে বলে জানা গেছেফুরফুরার এক জনপ্রিয় পীরজাদা বলছেন, মুসলিম ভোট ভাগাভাগি হলে বিজেপির সুবিধা হবে তাই এমন কিছু করা উচিত নয়, যাতে সাম্প্রদায়িক শক্তি সুযোগ পায়এক অধ্যাপক জানান, বিজেপির সুবিধা হবে এমন কিছু কাজ করা ঠিক হবেনা আব্বাস সিদ্দিকী প্রার্থী দিলে জিততে পারবে না, আবার বিজেপির সুবিধা হবেতবে আব্বাস সিদ্দিকী বলছেন, সাংবিধানিক রাজনীতি করতেই তিনি প্রার্থী দেবেন দলিত,সংখ্যালঘুদের অধিকার নিয়ে রাজনৈতিক লড়াই হবে

[আরও পড়ুন- বিজেপির নবান্ন অভিযানে জল কামানে রাসায়নিক মেশানোর অভিযোগে অমিত শাহকে চিঠি লকেটের]


এদিকে পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর জনসভায় ভালো ভিড় হচ্ছে আর তাই বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের নেতারা যোগাযোগ করছেন জোটের জন্য এমনটাই জানাচ্ছেন আব্বাস ঘনিষ্ঠ লোকেরা পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকীর কাছের এক নেতা জানান, ডিসেম্বর, জানুয়ারিতে দলের আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করবে কিন্তু তার আগেই বহু রাজনৈতিক নেতা যোগাযোগ করছেন বামকংগ্রেসের নেতারা জোট করতে চাইছেন কিন্তু তারা প্রকাশ্যে লিখিত কিছু করতে চাইছেন না তৃণমূল কংগ্রেসের নেতারাও যোগাযোগ করছেন আমরা প্রকাশ্য জোট চাই, গোপনে কিছু হবেনাকিন্তু প্রকাশ্যে জোট না হলে কী করবেন? ওই নেতার জবাব,’আদিবাসী, সংখ্যালঘু,দলিতদের নিয়ে একাই লড়বো তারপর যা হয় হবেকিন্তু এতে যে বিজেপির সুবিধা হবে পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী অবশ্য বলছেন, দিদিমনির জন্যই বিজেপি ১৮টি আসন পেয়েছে যদি আমার কারণে বিজেপি আসে তাহলে নিশ্চয় আমার ভোট আছে তাহলে আমার ভোট এমনি এমনি দেবো কেন?”