fbpx
কলকাতাহেডলাইন

কৃষকদের জন্য অবিলম্বে কর্ম নিয়শ্চয়তা প্রকল্প চালু করার দাবি তুলল বামেরা

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লকডাউনে কৃষকদের জন্য অবিলম্বে কর্ম নিয়শ্চয়তা প্রকল্প চালু করার দাবি তুলল বামেরা। এই মর্মে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দেওয়ার পাশাপাশি সরাসরি মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলার আবেদনও জানিয়েছে সিপিএম সহ অন্যান্য বাম দলগুলির কৃষক সংগঠনের যৌথ মঞ্চ কৃষক সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি।  এই সমন্বয় কমিটির আহ্বায়ক তথা সিপিএমের কৃষক সংগঠন কৃষক সভার রাজ্য সম্পাদক অমল হালদার বলেন, ‘করোনা ও লকডাউনে শ্রমিকদের পাশাপাশি কৃষকদেরও চরম দুরবস্থা।

কেন্দ্রীয় ও রাজ্যের অপরিকল্পিত লকডাউন পরিস্থিতিতে রাজ্যের কৃষকরা তাঁদের উৎপাদিত ফসল খুবই কম দামে বিক্রি করতে বাধ্য হচ্ছেন। লকডাউন শুরু হওয়ার পর অন্তত ১২ থেকে ১৫ দিন কৃষিপণ্যের কোনওরকম পরিবহন ব্যবস্থা ছিল না। বিকল্প ব্যবস্থা না করেই গ্রামীণ হাটগুলি বন্ধ করে দেওয়ায় কৃষকরা নামমাত্র দামে ফসল বিক্রি করেছেন। আর এর সঙ্গে যুক্ত হয়েছে প্রাকৃতিক দুর্যোগ। সম্প্রতি অতিবৃষ্টি ও শিলাবৃষ্টির কারণে বোরো ধান, সবজি সহ সমস্ত কৃষি ক্ষেত্রের সঙ্গে যুক্ত কৃষিজীবী মানুষ ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত। এই সমস্ত ক্ষতিগ্রস্ত কৃষকের উপযুক্ত ক্ষতিপূরণের ব্যবস্থা করা অত্যন্ত জরুরি।’

আরও পড়ুন: সম্পদ সংগ্রহের লক্ষ্যে নজিরবিহীন পদক্ষেপ মমতা প্রশাসনের দাবি স্বপন দাস গুপ্তের

এর পাশাপাশি বোরো ধান কাটাকে একশ দিনের কর্ম নিশ্চয়তা প্রকল্পকে অন্তর্ভুক্ত করার দাবিও জানান তিনি।
লকডাউন গরীব প্রান্তিক কৃষকদের আর্থিক দূরাবস্থা দূর করতে অবিলম্বে কর্মনিশ্চয়তা প্রকল্প চালু করার দাবি জানিয়ে অমল হালদার বলেন, গ্রামীণ শ্রমজীবীরা খাদ্যদ্রব্য না পেয়ে অনাহারে, অর্ধাহারে দিন কাটাচ্ছেন। এই পরিস্থিতিতে কৃষক ও গ্রামীণ শ্রমজীবীরা যাতে নতুন করে ঋণগ্রস্ত হয়ে আত্মহত্যার পথ বেছে নিতে বাধ্য না হন, সেই জন্য মুখ্যমন্ত্রীকে যথাযথ ভূমিকা পালন করতে হবে। এঁদের স্বার্থে অবিলম্বে কর্মনিশ্চয়তা প্রকল্প চালু করতে পঞ্চায়েত দফতরের দ্রুত পদক্ষেপ করা জরুরি। পাশাপাশি ভিনরাজ্য থেকে যে সমস্ত শ্রমিকরা গ্রামে ফিরে আসছেন তাঁদেরকেও এই কাজে যুক্ত করতে হবে।’

Related Articles

Back to top button
Close