fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রাথমিকভাবে করা হবে স্ক্রিনিং, করোনা পরীক্ষার জন্য আসানসোল জেলা হাসপাতালে বসলো মেশিন

শুভেন্দু বন্দোপাধ্যায়, আসানসোলঃ প্রতি ঘন্টায় অন্ততঃ দুজন মানুষের লালারস বা সোয়াব পরীক্ষা করা হবে আসানসোল জেলা হাসপাতালে। যাতে জানা যাবে তারা প্রাথমিকভাবে করোনায় আক্রান্ত কিনা। রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তরের পক্ষ থেকে “ট্রুনেট” নামে একটি মেশিন বুধবার বসানো হলো জেলা হাসপাতালের প্যাথোলজিতে। মেশিনটির দুটি পার্ট বা অংশ আছে।

 

 

জেলা হাসপাতালের সুপার ডাঃ নিখিল চন্দ্র দাস এদিন বলেন, দুটি মেশিনে দু’ধরনের পরীক্ষা হবে। একটি মেশিনে থেকে বোঝা যাবে রিবিও নিউলিক এ্যাসিড বা আরএনএ আছে কিনা। আর দ্বিতীয়টাতে জানা যাবে আরএনএর পরিমাণ কত। এই মেশিনে যার নমুনার পরীক্ষা হচ্ছে, তাতে প্রাথমিক পর্যায়ে জানা তিনি করোনায় আক্রান্ত কিনা। সুপার আরো বলেন, এখানে পরীক্ষার রিপোর্ট নেগেটিভ হলে ধরে নেওয়া হবে, ঐ ব্যক্তি কোভিড ১৯ এ আক্রান্ত নন৷ এখানে পরীক্ষার রিপোর্ট পজিটিভ এলে, কোভিড ১৯ নিশ্চিত করতে তার লালারস পরীক্ষার জন্য কলকাতায় পাঠানো হবে। এই মেশিনে প্রতি ঘন্টায় দুজনের পরীক্ষা করা যাবে। এর ফলে জেলা হাসপাতালে আসা মানুষদের সোয়াব পরীক্ষার জন্য প্রতিদিন যে কলকাতায় পাঠাচ্ছি, তা আর করতে হবেনা।প্রাথমিকভাবে এই মেশিনে স্ক্রিনিং করে নেওয়া হবে।

 

 

জেলা হাসপাতালের প্যাথোলজিস্ট ডাঃ রূপক চট্টোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে প্যাথোলজির টেকনিশিয়ানরা প্রশিক্ষণ নিয়ে এই কাজ করবেন। তাদের প্রশিক্ষনও দেওয়া হচ্ছে, এই মেশিনে পরীক্ষার জন্য। তবে কবে থেকে এই মেশিনে পরীক্ষা শুরু হবে, তা রাজ্য স্বাস্থ্য দপ্তর জেলা হাসপাতালকে জানায়নি।

উল্লেখ্য, গত মার্চ মাসের শেষে আসানসোলের সাংসদ তথা কেন্দ্রীয় প্রতিমন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্য মন্ত্রীর কাছে আসানসোলে করোনা পরীক্ষার জন্য একটি সেন্টার করার লিখিত প্রস্তাব পাঠিয়েছিলেন। এখনও পর্যন্ত সেই প্রস্তাব বাস্তবায়িত হওয়ার কোন প্রক্রিয়া চোখে পড়েনি।
আসানসোল পুরনিগমের মেয়র জিতেন্দ্র তেওয়ারি এদিন সেই কথা মনে করিয়ে দিয়ে বলেন, রাজ্য সরকার ও স্বাস্থ্য দপ্তর নিজেদের দায়িত্ব পালন করতে কতটা বদ্ধপরিকর তা বুধবার আসানসোল জেলা হাসপাতালে প্রাথমিকভাবে করোনা পরীক্ষার মেশিন বসানোতেই প্রমান হয়ে গেছে। এতে আসানসোলের মানুষেরা উপকৃত হবেন।

Related Articles

Back to top button
Close