fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

মালদায় বাজারে জালনোট চালাতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়লো দুষ্কৃতী

মিল্টন পাল, মালদা: সীমান্ত এলাকার বাজার গুলিতে এবার সক্রিয় জালনোট কারবারিরা। রবিবার পঞ্চায়েতের ব্যস্ততম বাজারে জালনোট চালাতে গিয়ে হাতেনাতে ধরা পড়লো এক জালনোটের কারবারী। আর এই জালনোট কারবারিদের সক্রিয়তা দেখে হতবাক ব্যবসায়ীরা। রবিবার সকালে মালদা থানার সাহাপুরের ১নম্বর বিমল দাস কলোনী এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে। এই ঘটনাকে ঘিরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায়। ওই জালনোট কারবারিকে গণধোলাই দিয়ে পুলিশের হাতে তুলে দেয় স্থানীয় ব্যবসায়ীরা। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মালদা থানার পুলিশ।

স্থানীয় পঞ্চায়েত সমিতির সদস্য সুশান্ত কুন্ডু বলেন, এই ব্যক্তি সপ্তাহ খানেক আগেই রবিবারের দিন এই এলাকায় বাজার করার নাম করে এক ব্যবসায়ীকে ২০০ টাকার নোট দেয়। সেই সময় ওই ব্যবসায়ী বুঝতে পারেনি। এদিনও ওই একই কায়দায় আবার আরেক ব্যবসায়ীকে ২০০০ হাজার টাকার জালনোট দিয়ে বাজার করার জন্য দেয় ওই কারবারি। কিন্তু এবার সে হাতে নাতে ধরা পড়ে যায়। বাজারের দোকানদাররা জিজ্ঞাসাবাদ করে। জানা যায় তার বাড়ি মালদা কালিয়াচক থানার সুজাপুর এলাকায়। তার নাম বাবুল হক। এতেই মানুষের আরও সন্দেহ হয়। সুদুর সুজাপুর থেকে সে এই গ্রামীন সাহাপুর এলাকায় বাজার কেন করতে এসেছিল। ঘটনাটি জানাজানি হতেই স্থানীয় ব্যবসায়ীরা তাকে ধরে ফেলে শুরু হয় গণধোলাই। এরপর মালদা থানায় খবর দিলে পুলিশ এসে তাকে উদ্ধার করে নিয়ে যায়। ধৃত বর্তমানে পুলিশি হেফাজতে রয়েছে।জালনোট কারবারিরা এই রাজ্যে এবার বাজার গুলিকে টার্গেট করে জালনোট চালানোর চেষ্টা করছে ।এই ঘটনা তার অন্যতম প্রমাণ।

মালদা মার্চেন্ট চেম্বার অফ কর্মাসের সম্পাদক জয়ন্ত কুন্ডু বলেন, বাজার গুলিতে এই ধরনের কারবার সক্রিয় ঘটনায় আমরা ব্যবসায়ীরা চিন্তিত। পুলিশ প্রশাসনকে বলবো অবিলম্বে ঘটনার তদন্ত করে অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।

জেলার পুলিশ সুপার অলোক রাজোরিয়া বলেন, ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে মালদা থানার পুলিশ। এই চক্রের মূল মাথার খোঁজ শুরু হয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close