fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

মুম্বাই হামলাকারীদের পুরস্কৃত করা উচিত, দাবি জেলবন্দি রানার

নিজস্ব সংবাদদাতা, শিকাগো: অনুশোচনার লেশমাত্র নেই। উল্টে আমেরিকার আদালতে দাড়িয়ে পাকিস্তানের কাছে পুরস্কারের দাবি জানিয়েছে ২২/১১ মুম্বই হামলার অন্যতম চক্রী তাহাউর রানা। তাঁর মতে, মুম্বইয়ে এমন নৃশংস হামলার জন্য আমার পদক পাওয়া উচিত। শুধু তাই নয়, এই হামলার সঙ্গে যুক্ত জঙ্গিদেরও সর্বোচ্চ সম্মান দেওয়া উচিত পাকিস্তান সরকারের।’ এখানেই শেষ নয়। লস্করের চাঁই রানার বক্তব্য, ‘ভারতের সঙ্গে যা হওয়া উচিত, ঠিক সেটাই হয়েছে। মনে রাখতে হবে ২৬/১১ মুম্বইয়ে লস্কর হানা সাহসিকতার নজির। এটাই হওয়া উচিত।’ কেননা, হামলার চক্রান্তের সঙ্গে যুক্ত থাকায় রীতিমতো গর্বিত সে। ওয়াকিবহাল মহল মতে, সাম্প্রতিককালে কোনও জঙ্গির মুখে এমন স্বীকারোক্তি শোনা যায়নি। এমনকি, রানার একের পর এক বিস্ফোরক বক্তব্য শুনে অবাক হয়েছেন বিচারকও।

এদিকে জানা যাচ্ছে, চলতি বছরের জুন মাসে রানাকে গ্রেপ্তার করে আমেরিকার পুলিশ। জেরার মুখে মুম্বই হামলার সঙ্গে যুক্ত থাকার কথা স্বীকার করার পর তাঁকে শিকাগোর জেলে রাখা হয়। এরপরই তাহাউর রানাকে হেফাজতে নেওয়ার জন্য আমেরিকার কাছে আবেদন জানায় ভারতের বিদেশমন্ত্রক। সেই সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছে। গত ১৩ নভেম্বর লস অ্যাঞ্জেলসের আদালতে বিচারক জ্যাকলিন চেলোনিয়ান জানিয়েছেন, আগামী বছরই ভারতের হাতে তুলে দেওয়া হতে পারে রানাকে। বন্দি প্রত্যর্পণের মামলার শুনানি হবে একুশ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি। মার্কিন অ্যাটর্নি নিকোলা টি হান্না বলেছেন, ১৫ লক্ষ মার্কিন ডলারের বিনিময়ে জামিন চেয়েছিল তাহাউর রানা। কিন্তু ভারতের হাতে তুলে দেওয়ার আগে কোনওভাবেই রানার জামিন মঞ্জুর করা হবে না। লস অ্যাঞ্জেলসের ওই আদালতের আশঙ্কা, জামিন পেলে রানা পালিয়ে যেতে পারে।

মুম্বইয়ের হামলার অন্যতম চক্রী ডেভিড হেডলি কোলম্যান ছিল রানার বন্ধু। পাক বংশোদ্ভূত রানা কানাডায় ব্যবসা করতেন। জানা গিয়েছে, লস্করের সঙ্গে সরাসরি যোগাযোগ ছিল তার। এমনকী, নিজের অফিস খুলে জঙ্গি কার্যকলাপ চালাত রানা। নানা উপায়ে লস্করকে সহযোগিতা করত। এমনকী, রানার ব্যবসাকে ঢাল করেই হেডলি বার কয়েক ভারতে এসেছে। সেই সময় সে রেইকি চালিয়ে গিয়েছে। আপাতত আমেরিকার জেলে রয়েছে ডেভিড হেডলিও।

Related Articles

Back to top button
Close