fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

জেলায় বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, ব্যর্থতার অভিযোগ স্বাস্থদপ্তরের বিরুদ্ধে

নিজস্ব সংবাদদাতা, রায়গঞ্জ: লাফিয়ে লাফিয়ে বাড়ছে উত্তর দিনাজপুর জেলায় করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। শনিবার নতুন করে আরও ১৩ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে বলে প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। যদিও বেসরকারী মতে সংখ্যাটা আরও বেশি। করোনা পজিটিভের সংখ্যা বাড়তে থাকায় আতঙ্কিত সাধারন মানুষ।

উল্লেখ্য, প্রথম দিকে উত্তর দিনাজপুর জেলা গ্রীন জোনে থাকলেও পরিযায়ী শ্রমিকরা জেলায় প্রবেশ করার সঙ্গে সঙ্গে করোনা পজিটিভের সংখ্যা বাড়তে শুরু করে। রায়গঞ্জ, ইটাহার, কালিয়াগঞ্জ, হেমতাবাদ, করনদিঘী, চাকুলিয়া, চোপড়া সহ জেলার বিভিন্ন প্রান্তে একই ছবি ধরা পড়েছে। যদিও ইতিমধ্যে রায়গঞ্জ কোভিড হাসপাতাল থেকে তিনজন করোনা আক্রান্ত রোগী সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরে গিয়েছেন। ইতিমধ্যেই ট্রেনে করে জেলায় ফিরে এসেছেন অনেক পরিযায়ী শ্রমিক। অভিযোগ উঠেছে ভীন রাজ্য থেকে আসলেও সামান্য থার্মাল চেকিং ছাড়া আর কোনরকম পরীক্ষা করা হচ্ছে না তাদের। শ্রমিকেরা নিজে থেকে স্বাস্থকেন্দ্র বা হাসপাতালে পরীক্ষার জন্য গেলেও অনেক ক্ষেত্রে ফিরিয়ে দেওয়া হচ্ছে বলে অভিযোগ করেছেন শ্রমিকেরা। সব মিলিয়ে করোনা সংক্রমণ ক্রমশ জাঁকিয়ে বসছে জেলাতে।

আরও পড়ুন: আমফান আবহে ফের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে খোঁচা দিয়ে টুইট রাজ্যপালের
সম্প্রতি হরিয়ানার পানিপথ থেকে কালিয়াগঞ্জে ফিরেছেন ২৬ জন শ্রমিক। ট্রেন থেকে নামার পর শুধু থার্মাল চেকিংএর পর এই শ্রমিকদের ছেড়ে দেওয়া হয়। কিন্তু লালারস পরীক্ষার জন্য এই শ্রমিকেরা থানা,হাসপাতালে গেলেও কোনো সহযোগিতা মেলেনি। বাধ্য হয়ে পরিবার থেকে দূরে থাকতে একটি স্কুলে আশ্রয় নিয়েছেন তারা। শিবু বর্মন নামে এক শ্রমিক বলেন, “পরিবারকে রক্ষা করার জন্য আমরা সব পরীক্ষা করাতে চেয়েছিলাম। কিন্তু তাপমাত্রা মাপা ছাড়া কিছু করা হয় নি। নিজেদের উদ্যোগে স্কুলে আশ্রয় নিয়েছি। এমনকী কোনো খাবার দেওয়া হচ্ছে না প্রশাসনের পক্ষ থেকে।”

জেলা বিজেপি সভাপতি বিশ্বজিত লাহিড়ী বলেন, ” ভীন রাজ্য থেকে আসা শ্রমিকেরা খুব অসহায় অবস্থায় রয়েছেন। ট্রেন থেকে নামার পর আসল পরীক্ষা না করেই বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। হাসপাতালে পরীক্ষার জন্য গেলে নাম ঠিকানা লেখে ছেড়ে দেওয়া হচ্ছে। কনটেনমেন্ট এলাকাগুলিতে খাবার পাচ্ছে না মানুষ। অথচ প্রশাসন উদাসীন। স্বাস্থদপ্তরের পরিস্থিতি মোকাবিলায় সম্পূর্ণ ব্যর্থ।”

Related Articles

Back to top button
Close