fbpx
গুরুত্বপূর্ণদেশহেডলাইন

করোনা যেন জাঁকিয়ে বসছে, ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা ৩০ হাজার ছুঁইছুঁই

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: যত দিন যাচ্ছে নোভেল করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ যেন জাঁকিয়ে বসছে। ভারতে আক্রান্তের সংখ্যা  ৩০ হাজার ছুঁইছুঁই। গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে মৃত্যু হয়েছে ৫১ জনের। ১৫৯৪ জনের শরীরে নতুন করে মিলেছে করোনার জীবাণু। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের তরফে জানানো হল, দেশে আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে ২৯,৯৭৪। সুস্থ হয়ে উঠেছেন ২২,০১০ জন। মৃত ৯৩৭। ২৩ শতাংশেরও বেশি রোগী সুস্থ হয়ে ফিরছেন।

করোনা সংক্রমণ জব্দ করতে লকডাউনের সময়সীমা আরও বাড়বে বলেই মনে করা হচ্ছে। সম্ভাব্য তারিখ ২১ মে। গ্রিন জোনে ছাড় দিয়ে অন্যত্র চলবে লকডাউন। তবে সরকারি তরফে এ নিয়ে কোনও ঘোষণা হয়নি এখনও পর্যন্ত।লকডাউনে থমকে পঠনপঠান। দেশে শিক্ষা ব্যবস্থা সংক্রান্ত আলোচনায় আজ রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠক মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়ালের। মিড-ডে-মিল ও সমগ্র শিক্ষা বিষয়ে ভিডিও কনফারেন্সে আলোচনা।

আরও পড়ুন: করোনা নির্মূল হলেও ফ্লু হয়ে বারবার ফিরবে: চিন

মঙ্গলবার বিকেলের বৈঠকে কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রকের যুগ্ম সচিব লব আগরওয়াল বলেন, ইন্ডিয়ান কাউন্সিল অব মেডিক্যাল রিসার্চ (আইসিএমআর) এই থেরাপি নিয়ে ট্রায়াল শুরু করেছে। সঠিক নির্দেশিকা না মেনে এবং এই থেরাপির নিয়ম না জেনেই যদি যথেচ্ছভাবে রোগীদের উপর প্রয়োগ করা শুরু হয় তাহলে ফল ভাল নাও হতে পারে। তিনি বলেন, সব থেরাপির একটা নির্দিষ্ট নিয়ম আছে। প্লাজমা থেরাপি সেই নিয়ম মেনে না করলে রোগীদের জন্য বিপজ্জনকও হতে পারে। প্লাজমা থেরাপি কোনও নতুন চিকিত্‍সাপদ্ধতি নয়। আগেও নানা সংক্রামক রোগের চিকিত্‍সায় এই থেরাপি ব্যবহার করা হয়েছে। করোনা রোগীদের উপরে এই থেরাপি কীভাবে প্রয়োগ করা যায় সেই নিয়ে গবেষণা চলছে বিশ্বজুড়েই। আইসিএমআর আগেই জানিয়েছিল, কোভিড পজিটিভ রোগীদের উপরে প্লাজমা থেরাপির প্রয়োগ করা যেতে পারে, তবে এই বিষয়ে চূড়ান্ত পর্যায়ের গবেষণা চলছে।

Related Articles

Back to top button
Close