fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

বীরভূমে করোনা রোগীর সংখ্যা তিন থেকে বেড়ে ছয়, মানা হচ্ছে না লকডাউনের নিয়মকানুন

প্রদীপ্ত দত্ত, সিউড়ি: বীরভূমে এই মুহূর্তে করোনা সংক্রমিত রোগীর সংখ্যা তিন থেকে বেড়ে ছয়। এর আগে রামপুরহাট মহকুমায় তিনজন করোনা আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মেলার পরই বীরভূম জেলাকে গ্ৰীনজোন থেকে অরেঞ্জ জোন হিসাবে ঘোষণা করা হয় । নতুন করে আরও তিনজন করোনা আক্রান্ত রোগীর সন্ধান মিলতেই উদ্বেগ ছড়িয়েছে জেলার প্রশাসনিক মহলে। প্রকাশ্যে ঘোষণা না হলেও প্রশাসনিক সূত্রে জানা গেছে, নতুন তিনজন কোভিড ১৯ পজিটিভ ব্যাক্তির মধ্যে একজনের বাড়ি রামপুরহাট এলাকায় অন্য দুইজনের বাড়ি দুবরাজপুর থানা এলাকায়।

রামপুরহাটের বছর আঠারোর ওই বাসিন্দা বাড়ি ফিরেছিলেন ২৬এ এপ্রিল কলকাতার মেটিয়াবুরুজ এলাকা থেকে। ২৮ এপ্রিল তাকে রামপুরহাট মেডিক্যাল কলেজে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য গিয়েছিলেন। সেখান থেকে তাকে সরকারি কোয়ারেন্টাইনে নিয়ে যায়। সূত্রের খবর ওই ব্যাক্তির লালা রসের রিপোর্ট মুর্শিদাবাদ মেডিকেল কলেজ থেকে আসার আগেই মঙ্গলবার বিকেলে কোয়ারিন্টাইন কেন্দ্রের অ্যাম্বুল্যাস্নে করে বাড়ি পাঠিয়ে দেওয়া হয়। বুধবার রামপুরহাট স্বাস্থ্য জেলায় রিপোর্ট আসে ওই ব্যাক্তির করোনা পজিটিভ হওয়ার। ইতিমধ্যে ওই ব্যাক্তি বাড়ির লোকসহ আরও বেশ কয়েকজনের সংস্পর্শে আসেন বলেন খবর। রিপোর্ট আসার আগেই স্বাস্থ্য দপ্তর কেন ও ব্যাক্তিকে বাড়ি পাঠিয়ে দিল তার কোন সদুত্তর দিতে পারেনি।

আরও পড়ুন: ভিনরাজ্যে আটকে দুর্গত বাঙালিদের পাশে দাঁড়িয়ে মানবতার ঐতিহ্য রক্ষা হিন্দু জাগরণ মঞ্চের

দুবরাজপুরে আক্রান্ত অন্য দুই ব্যাক্তির মধ্যে একজন ক্যানসার আক্রান্ত ও তাঁর ভাইপো ২৭ এপ্রিল সরাসরি মুম্বাই থেকে অ্যাম্বুলেন্সে বাড়ি ফেরেন। পুলিশের বক্তব্য যেটুকু সময় বাড়িতে তাঁরা ছিলেন বাড়ি ও গ্ৰামের অনেকের সংস্পর্শে আসেন তাঁরা আসেন। দোকানও খুলেছিলেন হোম কোয়ারান্টিনে থাকার কোন শর্ত তাঁরা মেনে।

বক্রেশ্বর কোয়ারান্টিনে থাকা ওই দুই ব্যাক্তির সঙ্গে আরও ৩৩ জন ছিল, যাদের লালারস নতুন করে পরীক্ষা করা হবে বলে জানিয়েছে জেলা স্বাস্থ্য দফতর।  চূড়ান্ত গাফিলতির কারণে এই তিনজন ব্যাক্তির দ্বারা বহু মানুষের সংক্রমিত হওয়ার আশঙ্কা প্রকাশ করছে জেলা প্রশাসন। লকডাউন মেনে চলার সবরকম প্রচার স্বত্বেও জেলায় বহু মানুষ ভীড় জমাচ্ছেন বাজারে, দাবি দাওয়া নিয়ে প্রশাসনিক অফিসে কোনরকম নিয়ম না মেনে। এতে উদ্বেগ বাড়ছে প্রশাসনের। সূত্রের খবর এভাবে চললে বীরভূম দ্রুত রেড জোনে পরিণত হবে।

Related Articles

Back to top button
Close