fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

বিশ্বে মারণ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দেড় কোটির গণ্ডি পার করল

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার দাপট অব্যাহত। বাড়ছে মৃত্যু থেকে আক্রান্তের সংখ্যা। এক ভয়াবহ অবস্থায় পরিণত হয়েছে গোটা বিশ্ব। এই মুহূর্তে পৃথিবী এক কঠিন অসুখে ভুগছে। অর্থনৈতিক অবস্থা থেকে সামাজিক জীবন সবই আজ বিপর্যস্ত।বাড়ছে মৃত্যু থেকে আক্রান্তের সংখ্যা।

বিশ্বজুড়ে মারণ ভাইরাসে আক্রান্তের সংখ্যা দেড় কোটির গণ্ডি ছাড়িয়ে গিয়েছে। পরিসংখ্যান ওয়েবসাইট ‘ওয়ার্ল্ডমিটারের’ তথ্য অনুযায়ী, চিনের উহান থেকে ছড়িয়ে পড়া প্রাণঘাতী ভাইরাসে বিশ্বের ২১৩টি দেশের ১ কোটি ৫০ লক্ষ ৫ হাজার ৩২৮ জন আক্রান্ত হয়েছেন। তার মধ্যে আমেরিকায় আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ৪০ লক্ষের বেশি। মারণ ভাইরাসের ছোবলে প্রাণ হারিয়েছেন ৬ লক্ষ ১৬ হাজার ৭৭১ জন। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে জীবন-মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন ৬৩ হাজার ৬৪৯ জন।

গত বছরের ডিসেম্বরের শেষে এই মারণ ভাইরাসের আবির্ভাব হয়। এরপর যত দিন এগিয়েছে তত আরও বিধ্বংসী রূপ দেখিয়েছে এই ভাইরাস।

আরও পড়ুন:‘পর্যটন টানতে গৌতম বুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত স্থানগুলিকে বিকশিত করা দরকার’  

আর গত ২৪ দিনে সংক্রমিত হয়েছেন ৫০ লক্ষের বেশি মানুষ। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, ব্রাজিল, দক্ষিণ আফ্রিকা, ভারত সহ বিশ্বের একাধিক দেশ কার্যত জবুথবু।

সংক্রমণের নিরিখে শীর্ষে থাকা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আক্রান্ত হয়েছেন ৪০ লক্ষ ১০ হাজার ৪০১ জন। দ্বিতীয় স্থানে থাকা ব্রাজিলে আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ২১ লক্ষ ২৯ হাজার ৫৩ জনে। তৃতীয় স্তানে থাকা ভারতে আক্রান্ত হয়েছেন ১১ লক্ষ ৯৪ হাজার ৮৫ জন। চতুর্থস্থানে থাকা রাশিয়ায় আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে হয়েছে ৭ লক্ষ ৮৩ হাজার ৩২৮ জন। দক্ষিণ আফ্রিকায় এখনও পর্যন্ত সংক্রমিত হয়েছেন ৩ লক্ষ ৮১ হাজার ৭৯৮ জন।

আরও পড়ুন:করোনা মোকাবিলায় আফগান ছাত্রীদের আবিষ্কার সাশ্রয়ী ভেন্টিলেটর

মারণ ভাইরাসে মৃত্যুর নিরিখে শীর্ষে থাকা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রাণ হারিয়েছেন ১ লক্ষ ৪৪ হাজার ৭৫১ জন। ব্রাজিলে মারা গিয়েছেন ৮০ হাজার ৪৯৩ জন। তৃতীয় স্থানে থাকা ব্রিটেনে মারা গিয়েছেন ৪৫ হাজার ৪২২ জন। মেক্সিকোতে ৩৯ হাজার ৪৮৫, ইতালিতে ৩৫ হাজার ৭৩, ফ্রান্সে ৩০ হাজার ১৬৫ জন এবং ভারতে ২৮ হাজার ৭৫৬ জন মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েছেন।

যেভাবে মৃত্যু থেকে আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে তাতে পরিস্থিতি কবে  আর কিভাবে নিয়ন্ত্রণে আসবে সেই নিয়ে চিন্তিত বিশ্ব।

 

Related Articles

Back to top button
Close