fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

উন্নয়নের কাজের টাকা না মেলায় দলীয় কর্মীরাই তালা ঝোলালো তৃণমূল পরিচালিত পঞ্চায়েতে

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: উন্নয়ন খাতের অর্থ বন্টনে অসঙ্গতি নিয়ে ক্ষোভ। তার জেরে তৃণমূলের ঝান্ডা কাঁধে নিয়ে তৃণমূল পরিচালিত গ্রাম পঞ্চায়েতে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে বিক্ষোভ দেখালো তৃণমূলের কর্মীরাই। বুধবার ঘটনাটি ঘটেছে পূর্ব বর্ধমানের মেমারির আমাদপুর গ্রামপঞ্চায়েত অফিসে। এই ঘটনায় শোরগোল পড়ে গিয়েছে মেমারির রাজনৈতিক মহলে।

আমাদপুর গ্রাম পঞ্চায়েতটি তৃণমূল কংগ্রেস পরিচালিত। এই পঞ্চায়েতের দুটি সংসদের দুই সদস্য বাহামনি সরেন ও অনিন্দিতা পাত্রর অভিযোগ উন্নয়নের টাকা প্রধান সাধনা হাজরা সমান ভাবে বন্টন করছেন না। মাত্র গুটি কয়েক সংসদের জন্য তিনি টাকা বরাদ্দ করছেন। উদ্দেশ্য প্রণোদিতভাবে তাদের এলাকায় উন্নয়ন কাজের জন্য টাকা বরাদ্দ করা হচ্ছে না। ফলে তাদের সংসদ এলাকায় কোনও উন্নয়নের কাজ হচ্ছে না। প্রধান নিজের মর্জি মতো টাকা বন্টন করছেন। উন্নয়ন কাজের অর্থ বন্টন নিয়ে প্রধান তাদের সঙ্গে কোনও আলোচনাও করেন না।

দীর্ঘদিন ধরে এই বিষয়ে পঞ্চায়েত প্রধানের দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলেও তিনি তাদের কোনও দাবি মানেননি। উল্টে পঞ্চায়েত প্রধান সাধনা হাজরা শুধু পক্ষপাতিত্বই করে যাচ্ছেন। বাহামনি ও অনিন্দিতা বলেন, বুধবার বোর্ড মিটিং ডেকেও প্রধান হঠাৎ করে তা আবার বাতিলও করে দেন। এইসব ঘটনার প্রতিবাদ জানাতেই এলাকার তৃণমূল কর্মী ও সমর্থকদের সঙ্গে নিয়েই এদিন তারা পঞ্চায়েতে বিক্ষোভ দেখাতে বাধ্য হয়েছেন।

আরও পড়ুন:আজ বৃষ্টিস্নাত তিলোত্তমা, সকাল থেকে চলছে অবিরাম বারিধারা

করোনা আবহে স্বাস্থ্যবিধি শিকেয় তুলে এদিন দলীয় পতাকা কাঁধে নিয়েই তৃণমূলের কর্মী ও সমর্থকরা পঞ্চায়েত অফিসে বিক্ষোভ দেখায়। বিক্ষোভ চলাকালীন গ্রাম পঞ্চায়েত অফিসে তারা তালাও ঝুলিয়ে দেয় বলে অভিযোগ। একে অপরের গায়ে গায়ে ঘেঁসেই চলে বিক্ষোভ প্রদর্শন। বিক্ষোভ ঘিরে চরম উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে পঞ্চায়েত অফিস চত্বরে। খবর পেয়ে মেমারি থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

দুই সদস্যের আনা অভিযোগ সত্য নয় বলে যদিও এদিন দাবি করেছেন পঞ্চায়েত প্রধান সাধনা হাজরা। এদিন তিনি বলেন, “প্রতিটি বোর্ড মিটিংয়ের আলোচনা করেই এলাকার উন্নয়ন কাজের পরিকল্পনা চূড়ান্ত করা হয়।তার পরেও কোনও সমস্যা হলে তা আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করা হয়ে থাকে”।

প্রধান এমনটা বললেও উপপ্রধান রূপা পাল বলেন, “পঞ্চায়েতে কোনও কাজ ঠিক মত হচ্ছে না। উন্নয়নের জন্য টাকা সমানভাবে বরাদ্দ না হওয়াতেই ক্ষিপ্ত হয়ে দলেরই লোকজন এদিন পঞ্চায়েত অফিসে তালা ঝুলিয়ে দিয়ে বিক্ষোভ দেখিয়েছে।”

আরও পড়ুন:টিএমসির গণতন্ত্র ধ্বংসের রাজনীতি বিজেপি শেষ করবে

এলাকার বাসিন্দা আশীষ বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, নিজের মর্জিমাফিক প্রধান পঞ্চায়েত চালাচ্ছেন। তার জন্যই অনেক সংসদে উন্নয়ন কাজ হচ্ছ না। সেই কারণেই ক্ষোভ বিক্ষোভ ছড়াচ্ছে।

মেমারি ১ ব্লক তৃণমূল কংগ্রেস নেতৃত্ব এদিনের এই ঘটনা নিয়ে মুখে কুলুপ এঁটেছেন।

Related Articles

Back to top button
Close