fbpx
দেশহেডলাইন

পাইলটের সঙ্গে ছিলেন ৪৫ বিধায়ক, চাঞ্চল্যকর দাবি গেহলট শিবিরের বিধায়কের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: রাজস্থানের কংগ্রেস সরকারকে নিয়ে ডামাডোল এখনও চলছেই। এই মুহূর্তে নিজেদের বিধায়কদের নিয়ে আত্মগোপন করে রয়েছেন রাজস্থানের মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট ও প্রাক্তন উপমুখ্যমন্ত্রী তথা বিরোধী নেতা শচীন পাইলট। ১৫ অগস্টের পর রাজস্থানের বিধানসভা অধিবেশন শুরু হওয়ার পরে আস্থাভোটের মাধ্যমে শক্তিপরীক্ষা হবে। তার আগে প্রস্তুতি চালাচ্ছে দু’পক্ষই। বৃহষ্পতিবারই গেহলট শিবিরের থাকা এক বিধায়ক হঠাত্‍ই চাঞ্চল্যকর এক মন্তব্য করে বসেছেন। প্রশান্ত বাইরওয়া নামে সেই বিধায়ক জানিয়েছেন শচিন পাইলটের সমর্থনে শুধুমাত্র হরিয়ানার রিসর্টে থাকা ১৮ জন বিধায়কই ছিলেন না, বিক্ষুব্ধ নেতা ও প্রাক্তন উপ মুখ্যমন্ত্রীর শুভাকাঙ্ক্ষীর সংখ্যা ছিল আরও বেশি। সবমিলিয়ে প্রায় ৪০ থেকে ৪৫ বিধায়কের সমর্থন ছিল শচিনের দিকে।

নিজেকে গেহলট শিবিরের বিধায়ক দাবি করে প্রশান্ত বৈরওয়া নামের এক বিধায়ক জানান, ৪০ থেকে ৪৫ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে শচীন পাইলটের দিকে। একসময় তাঁকে পাইলট শিবিরের বিধায়ক বলা হত। কিন্তু বর্তমানে গেহলট শিবিরে রয়েছেন তিনি। জয়সলমীরের সূর্যগড় হোটেল থেকে স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য বেরিয়ে আসার পরই এই মন্তব্য করেন এই কংগ্রেস বিধায়ক। কংগ্রেসের অভিযোগ, রাজস্থানে গেহলট সরকার ফেলার ষড়যন্ত্র করছে বিজেপি। যদিও শচীন পাইলট সহ ১৮ জন বিধায়ক বেরিয়ে গেলেও এখনও ১০২ জন বিধায়কের সমর্থন রয়েছে গেহলটের সঙ্গে।

এই পরিস্থিতিতে কংগ্রেস বিধায়ক প্রশান্ত বলেন, ‘‌শচীন পাইলটের বড় দল রয়েছে। কিন্তু কোনও পরিকল্পনা নেই। যদি উনি প্রথমে আমাদের সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলতেন, আমাদের মতামত নিতেন, তাহলে তাঁর সমর্থনে সংখ্যাটা ৪০ থেকে ৪৫ হত, ১৯ হত না। কারণ ৪০ থেকে ৪৫ জনের সমর্থন রয়েছে পাইলটের দিকে। কিন্তু উনি আমাদের থেকে কোনও মতামত নেননি। আমার মনে হয় এখানে খেলাটা পিছন থেকে অন্য কেউ খেলছে।’‌

আরও পড়ুন: রাম মন্দিরে অনুদান তহবিলে এখনও পর্যন্ত জমা পড়ল ৪১ কোটি টাকা

অবশ্য ৪০ থেকে ৪৫ জনের সমর্থন থাকার মানে এই নয় আস্থাভোটের সময় তাঁরা পাইলটকে সমর্থন করবেন। প্রশান্ত জানিয়েছেন, ‘‌কংগ্রেসে অনেকেই তাঁর শুঙাকাঙ্খী থাকতে পারেন, কিন্তু তার মানে এই নয় তাঁরা কংগ্রেসের হয়ে ভোট দেবেন না। আমরা কংগ্রেসের দিকেই ১০০ শতাংশ ভোট দেব। আস্থাভোটে কংগ্রেসই জিতবে।’‌ রাজস্থানে এই অবস্থার জন্য বিজেপিকেই দায়ী করেছেন প্রশান্ত।

Related Articles

Back to top button
Close