fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

দাদা VS দাদার লড়াই তৃণমূলে! শুভেন্দু অনুগামীদের দেখিয়ে দিতে অভিষেকের ছবি নিয়েই মিছিল…

তারক হরি, পশ্চিম মেদিনীপুর:  দিদির ছবি ছাড়াও অন্য কারও ছবি নিয়ে তৃণমূলের মিছিল দেখল এই প্রথম পশ্চিম মেদিনীপুর জেলাবাসী, মিছিলের আগা গোড়াই অভিষেক ব্যানার্জী। মিছিলরের ব্যানার, হোর্ডিং থেকে বুকে ঝোলানো পোষ্টার যেখানে শুধুই অভিষেক ব্যানার্জীময়। এমন কি অভিষেক ব্যানার্জীর ছবি দেওয়া গেঞ্জিও দেখা গেল মিছিলে।

মঙ্গলবার বেলদা শহরে পি.কের পরামর্শ অনুযায়ী তৃণমূলের সদ্য গড়ে ওঠা ‘যুবশক্তি’র মিছিল ছিল। হাজার তিনেক মানুষের এই মিছিলে পুরোটাই ছিল অভিষেকময়, অবশ্য যুবশক্তি নাম হলেও প্রৌঢ়, বৃদ্ধ, বৃদ্ধা কিংবা অন্য শক্তিরাও ছিলেন সেই মিছিলে। মিছিলের আয়োজক ছিলেন পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা পরিষদের প্রাক্তন কর্মাধ্যক্ষ তথা বেলদার তৃণমূল নেতা সূর্যকান্ত অট্ট। অট্ট বাবু নিজে প্রৌঢ় হলেও তবুও তাক লাগিয়ে দেওয়ার মতো মিছিল করেছেন তিনি। আর সেই মিছিল আক্ষরিক অর্থে ২০২১শে দল ক্ষমতায় এলে অভিষেক ব্যানার্জীর অভিষেক অনুগামীদেরই যেন নিশ্চিত করে দিল।  কেন্দ্রীয় কৃষি আইনের বিরোধিতায় এবং হাথরস কান্ডের প্রতি ধিক্কার জানিয়েই মূলতঃ মিছিল বার করে তৃণমূল। কিন্তু সেই মিছিলে যেটা অবাক করেছে যেটা সেটা হল অভিষেক ব্যানার্জীর ছবি সম্বলিত উপস্থিতি যা এক কথায় নজির বিহীন। অনেকেরই মতে এই মিছিল ছিল কার্যত শুভেন্দু অধিকারী অনুগামী সংগঠন ‘আমরা দাদার অনুগামী’সংগঠনকে টক্কর দেওয়ার মিছিল।

উল্লেখ্য গত কয়েকদিন ধরেই সারা জেলা জুড়ে কার্যত ক্রমে দাপিয়ে বেড়াচ্ছেন ‘দাদার’ অনুগামীরা। সে করোনা হোক বা লকডাউন, একের পর এক পরিস্থিতিতে বিভিন্ন ভাবে মানুষের বিভিন্ন সমস্যায় কাজ করে চলেছেন শুভেন্দুর অনুগামীরা। দুঃস্থ, দুর্গতদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন তাঁরা। তাঁদের দেখা যাচ্ছে  সর্বত্রই তাঁরা বিভিন্ন সমাজ সেবামূলক কাজ করছেন ‘আমরা দাদার অনুগামী।’ ঘাটালের বীরসিংহ গ্রামে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরে ২০০বছর পূর্তিতে সেখানে যাওয়া, করোনা কয়েক হাজার দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়ানো সর্বত্রই তাঁরা ছুটে গেছেন এখান থেকে ওখানে। এরপর শুভেন্দু অধিকারী করোনা আক্রান্ত হওয়ার সময়ও শত শত শুভেন্দু অনুগামীকে রাজ্যে এমনকি রাজ্যের বাইরেও শুভেন্দুর মঙ্গল কামনায় যজ্ঞ পূজা অর্চনা পূজো করতে দেখা গেছে। আর সর্বত্রই এই অনুগামীদের বুকে ঝোলানো প্ল্যাকার্ডে দেখা গেছে ‘আমার দাদার অনুগামী’। আবার মন্ত্রীর ছবি সম্বলিত গেঞ্জিও দেখা গেছে। ক্রমশ দল বাড়ছে এঁদের।

আরও পড়ুন: পুজো শুরু, এখনও বেহাল দশা কৃষ্ণনগরের সাজশিল্পীদের

রাজ্য রাজনীতিতে শুভেন্দু-অভিষেক দ্বৈরথ এখনও সুস্পষ্ট। একের পর এক সরকারি সভা, দলের কর্মসূচি এড়িয়েছেন মন্ত্রী। দলনেত্রীকে নাকি শুভেন্দু আধিকারি স্পষ্ট বলে দিয়েছেন, “আপনি ছাড়া অন্য কারও নেতৃত্ব মানতে পারবনা।” যা স্পষ্টই অভিষেক বিরোধিতাকে বুঝিয়ে দিয়েছে। মঙ্গলবার বেলদায় অভিষেকময় মিছিল এটা প্রমান করল যে, শুভেন্দু অনুগামীদের ছেড়ে কথা বলবেননা শুভেন্দুর বিপরীতে অবস্থানকারী অভিষেকময় তৃণমূলের সদস্যরা। বলাবাহুল্য যে  তৃণমূল VS তৃণমূলের’ এই লড়াই ২০২১ ক্ষমতাই যে দলের মধ্যেই বিভাজনের রাজনীতি গড়াবে তা আর বলার অপেক্ষা রাখেনা। সময়টা শুধু তোলা রইলো।

 

 

Related Articles

Back to top button
Close