fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

কোলাঘাটের ছানা ব্যবসায়ীরা এখন দুধের ফেরিওয়ালা

বাবলু ব্যানার্জি কোলাঘাট:  লকডাউন এর জেরে পূর্ব মেদিনীপুর জেলার কোলাঘাট এর প্রসিদ্ধ ছানা ব্যবসায়ীরা চরম সংকটের মধ্যে পড়েছে। বর্তমানে ছানা তৈরির কাজ বন্ধ। কোলাঘাট ব্লকের ক্ষেত্রহাট , পারিট,যোগীবেড়,পশ্চিম মানিকা, কলাগাছিয়া,সাওড়াবেরিয়া সহ বিভিন্ন এলাকায় প্রায় ৫০থেকে ৬০ টি পরিবার এই ব্যবসার উপর নির্ভর করে দিন কাটায়। লকডাউন এর জেরে গাড়ি চলাচল না করায় এদের তৈরি ছানা এক প্রকার বিক্রি বন্ধ। অগত্যা এই ব্যবসা কে টিকিয়ে রাখার জন্য পাড়ায় পাড়ায় দুধ বিক্রি করে দু’মুঠো অন্নের সংস্থান করতে হচ্ছে এইসব পরিবারগুলিকে। এই চিত্র ব্লকের প্রত্যেকটি অঞ্চলেই লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

ব্যবসায়ী সুবর্ণ বাসুলী ,মম্ভথ বাসুলি, সুদর্শন বাসুলি,শ্যামল মন্ডল রা কথা প্রসঙ্গে বলেন লকডাউন তাদের চরম ক্ষতি করে গেল। এই ক্ষতিকে আগামী দিনে কেমন করে সামাল দেওয়া যাবে তা চিন্তার কারণ এখন, বর্তমানে এলাকায় গরুর সংখ্যা কমছে, সকাল বেলা থেকে একটা পর্যন্ত গ্রামের এক প্রান্ত থেকে আরেক প্রান্তে ঘুরে ঘুরে দুধ সংগ্রহ করতে হয়। যে সমস্ত পরিবারের কাছে দুধ সংগ্রহ করা হয় তাদেরকে নগদ টাকা দিতে হয়। কারণ একটাই ব্যবসাকে টিকিয়ে রাখার জন্য।
বর্তমানে ১ কেজি দুধের দাম ৩৫ টাকা থেকে ৪০ টাকা। একজন গোয়ালা নিত্য ৫০ লিটার এর মত দুধ সংগ্রহ করতে পারে। বাড়িতে বড় বড় হাঁড়িতে ফুটিয়ে ছানা তৈরি করে। এক লিটার দুধ থেকে ২০০ গ্রাম ছানা পাওয়া যায়। এখন ছানার দাম ২০০ টাকা থেকে আড়াইশো টাকার মধ্যে।

আরও পড়ুন: করোনা পজিটিভ ৪, সংশয়ে আলিপুরদুয়ারের ‘গ্রীন জোন’ স্ট্যাটাস

এই ছানার উপর নির্ভর করেই পার্শ্ববর্তী এলাকার মিষ্টি দোকান গুলি চলে। তমলুক,বাগনান,উলুবেরিয়া, সাঁতরাগাছি ,নন্দকুমার সহ বহু দোকান ধরা থাকে এই সব ব্যবসায়ীদের। বিকেল বেলা ছানা গেলে মিষ্টির কারিগররা ভিন্ন ধরনের মিষ্টি তৈরি করে। হাতের কলাকৌশলে ভিন্ন ধরনের মিষ্টি তৈরি করে মিষ্টি পিপাসু মানুষদের মনের ইচ্ছা পূরণ করে এই ছানা থেকেই কারিগররা।

এই এলাকার ছানা ব্যবসায়ীদের অভিযোগের তীর বর্তমান সরকারের প্রতি। এই লকডাউন এ মিষ্টির দোকান খোলা থাকবে না – থাকবে না, গণমাধ্যমের মাধ্যমে বারবার যখন শুনতে পাওয়া যায় তখন একবারের জন্য এই মিষ্টি তৈরি করার জন্য দোকানে জোগান দেওয়া ছানা ব্যবসায়ীদের কথা মনে পড়েনি সরকারের। মান-অভিমান নিজের কাছে রেখে আগামী দিনে তাদের পূর্ব পুরুষের ব্যবসা কে টিকিয়ে রাখার জন্য এতোদিন যেভাবে ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে ,লকডাউন কাটলে সেইভাবেই চালিয়ে যাবেন বলে ব্যবসায়ীরা জানান।

Related Articles

Back to top button
Close