fbpx
গুরুত্বপূর্ণপশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

রেশনের আটায় মিলছে প্লাস্টিক! ভয়ে আটা খাওয়া বন্ধ করলেন বর্ধমানের উপভোক্তারা

প্রদীপ চট্টোপাধ্যায়, বর্ধমান: রেশন দোকান থেকে দেওয়া আটার প্যাকেটে পুষ্টি যুক্ত আটা বলে ছাপা অক্ষরে লেখা থাকলেও মিলছে প্লাস্টিক। বিনা মূল্যে পাওয়া রেশনের আটায় রুটি তৈরি করতে গিয়ে এখন চক্ষু ছানাবড়া অবস্থা গৃহিণীদের। এমন ঘটনার কথা শুনে সবার অবাক হওয়াটাই স্বাভাবিক। কিন্তু বাস্তবেই রেশনের আটায় প্ল্যাস্টিক মেলার ঘটনা ঘিরে তুমুল চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে বর্ধমান শহরের আঞ্জিরবাগান এলাকায়।

খবর কানে যেতেই নড়েচড়ে বসেছেন খাদ্য দফতরের কর্তারা। লকডাউন ঘোষণার পর কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের তরফে উপভোক্তাদের বিনামূল্যে খাদ্য সামগ্রী দেওয়া হয় রেশন দোকান থেকে।

বিগত কয়েক সপ্তাহ ধরে বর্ধমান শহরের ২৩ নম্বর ওয়ার্ডের আঞ্জিরবাগান এলাকার উপভোক্তারা স্থানীয় ডিলারের কাছ থেকে বিনামূল্যে খাদ্য সামগ্রী পেয়েছেন। এই সপ্তাহেও তাঁরা রেশন দোকান থেকে চাল ও প্যাকেটে ভর্তি আটা নিয়ে বাড়িতে যান। সেই আটা মেখে রুটি তৈরি করতে গিয়ে উপভোক্তা পরিবারের গৃহিণীদের চোখ কপালে ওঠে।

আঞ্জিরবাগান এলাকার উপভোক্তা রেনু শাহ, পিঙ্কি সিং প্রমুখরা বলেন ,আগের সপ্তাহ গুলিতে রেশন দোকান থেকে যে আটা পেয়েছিলেন সেই আটা ঠিকঠাকই ছিল। রুটি তৈরি করে পরিবারের সবাই মিলে তৃপ্তি করেই খেয়েছেন। কিন্তু এবার রেশন দোকান থেকে প্যাকেটে ভর্তি যে আটা দেওয়া হয়েছে তা একেবারেই খাবার অযোগ্য।

রেনু শাহ বলেন, রেশনের আটা মাখতে গিয়ে তারা দেখেন আটার মধ্যে প্লাষ্টিক।খোঁজ নিয়ে তিনি দেখেন এলাকার সবাই বলছে আটায় প্লাস্টিক রয়েছে। এরপর তারা সবাই ভয়ে রেশনের আটা খাওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। দোকান থেকে আটা কিনে এখন রুটি তৈরি করে খেতে হচ্ছে। এর ফলে তাঁদের মত সকল গরিব পরিবার গুলিকে সমস্যায় পড়তে হয়েছে।

এই বিষয়ে পূর্ব বর্ধমান জেলা পরিষদের খাদ্য কর্মাধ্যক্ষ মেহবুব মন্ডল সাফ জানিয়েছেন ওই আটা উপভোক্তাদের খাবার দরকার নেই। একই সঙ্গে তিনি বলেন , এখনও পর্যন্ত কেউ লিখিত অভিযোগ জানায়নি। তবে খোঁজ নিয়ে দেখা হচ্ছে। রেশন দোকান থেকে খারাপ আটা দেওয়া হয়ে থাকলে অবশ্যই ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close