fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

প্রকৃত ক্ষতিগ্রস্থরা বঞ্চিত, কেন্দ্রীয় সরকারের টাকা নয়ছয় করার প্রতিবাদে বিজেপির গন ডেপুটেশন খারুই ২ গ্রাম পঞ্চায়েতে

বাবলু ব্যানার্জি, কোলাঘাট: সামান্য কয়েকদিন আগে অভিযোগ উঠেছিল, যাদের পাকা বাড়ি আছে তাদের  টাকা ব্যাংক অ্যাকাউন্টে দেওয়া হয়েছে। এবার অভিযোগ, প্রকৃত যাদের পান বোরজ ক্ষতি হয়েছে ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা না দিয়ে, ক্ষতি হয়নি এমন ব্যক্তিদের অ্যাকাউন্টে টাকা গিয়েছে। এমনি গুরুতর অভিযোগের ভিত্তিতে খারুই ২ অঞ্চলের ভারতীয় জনতা পার্টির পক্ষ থেকে মঙ্গলবার গন ডেপুটেশন দিতে গিয়ে অগণিত মানুষজনের ভীড় লক্ষ্য করা গেল অঞ্চল অফিসের সামনে।

স্লোগানের পর স্লোগান উঠলো, এই অঞ্চলের তৃণমূল প্রধান নমিতা ঘোড়া ও  তৃণমূল সদস্য সুনীল দেবাধিকারী কে অবিলম্বে পদত্যাগ করতে হবে। তাদের দাবি, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় ব্যাপকহারে দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রধানকে পদত্যাগ করতে হবে। আজকের এই গন ডেপুটেশনে মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির জেলা নেতা  বামদেব গুছাইত জেলা বিজেপির সাধারণ সম্পাদক নারায়ণ চন্দ্র মাইতি, জেলা বিজেপির সহ-সভাপতি জাগারণ অধিকারী,শহীদ মাতঙ্গিনী ব্লকের মন্ডল সভাপতি   মধুসুধন মন্ডল, সহদেব সামন্ত সহ স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্ব।

দুর্নীতি প্রসঙ্গে ওই অঞ্চলের তৃণমূল প্রধান নমিতা ঘড়া বলেন, আমফান ঝড়ে পাকা বাড়ি থেকে বোরজ নিয়ে ভারতীয় জনতা পার্টি যে অভিযোগ করছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। কারুর নামের যদি টাকা চলে যায় তা ফিরিয়ে আনার ব্যবস্থা করা হবে।  এই অঞ্চলে আমফান, আবাস যোজনা  নিয়ে যে পক্ষপাতিত্ব হয়েছে তা কথা বলা প্রসঙ্গে সেই ইঙ্গিতই পাওয়া গিয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জেলা বিজেপি নেতা  বামদেব গুছাইত বলেন, “পাকাবাড়ি থাকা সত্বেও প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার ঘর পেয়েছে এমন ব্যক্তিদের সংখ্যা অনেক, সেই সঙ্গে পান বোরজ নেই, এমন সংখ্যা ও আছে।যে ৩৯ জনের নামের তালিকা প্রকাশ পেয়েছে তার মধ্যে গড়মিল রয়েছে। তিনি দাবি করেন, পুনরায় প্রকৃত তদন্ত করে যারা পাওয়ার যোগ্য তাদেরকে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। অন্যথায় আগামী দিনে বিজেপির পক্ষ থেকে এই অঞ্চলে বৃহত্তর আন্দোলনে যাওয়া হবে।

Related Articles

Back to top button
Close