fbpx
অন্যান্যঅফবিটদেশহেডলাইন

মুম্বইয়ে দুর্গাপুজোর হাল হাকিকত

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: আজ অক্টোবরের পাঁচ তারিখ হয়ে গেল। পুজোর আর বাকি মাত্র ১৫-১৬ দিন। সব জায়গায় এখন ব্যস্ততা তুঙ্গে। পশ্চিমবাংলায় ইতিমধ্যেই মুখ্যমন্ত্রী জানিয়ে দিয়েছেন কীভাবে এবছর পুজো করতে হবে। সেই সব নিয়ম মেনে আশা করা যায় এবছর পুজো হবে। কুমোরটুলির কথা অনুযায়ী ৮ ফুটের চেয়ে বড় ঠাকুরের অর্ডার এবার আসেনি। কলকাতার বাইরেও এবার দুর্গার উচ্চতা ওইরকমই।

তেজপাল হলে বম্বে দুর্গাবাড়ি সমিতির দুর্গামূর্তি।

শোনা যাচ্ছে, দিল্লির সি.আর পার্কে এবার পুজো হবে না। অন্যদিকে মুম্বাইতে কোথাও ঘটে কিংবা ছোট মূর্তিতে পুজো হবে এবার। মুম্বাই এর অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য দুর্গাপুজো বম্বে দুর্গাবাড়ি সমিতি-র পুজো। এবছর এই পুজো ৯১ বছরে পা দিল। বর্তমান পরিস্থিতে বম্বে দুর্গাবাড়ির পুজো তেজপাল হল থেকে স্থানান্তরিত হয়ে হয়েছে অগাস্ট ক্রান্তি ময়দানে। এবছর তারা মূর্তিতে নয়, পুজো করবেন ঘটে। কোনও দর্শকের অনুমতি থাকছে না, থাকছে না প্রসাদ বিতরণের ব্যবস্থাও।

আরও পড়ুন:বিজেপির সঙ্গে বিরোধিতা নয়, নীতিশের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গিয়ে এনডিএ ছাড়লেন চিরাগ পাসোয়ান

সমিতির সভাপতি সুস্মিতা মিত্র বলেন, ৯১ বছরে এই প্রথম ঘটে পুজো করছেন তারা। মানুষ যাতে বাড়িতে থেকে সুস্থ থাকতে পারেন সেই কথা ভেবেই এই আয়োজন। তাছাড়া লকডাউনের কারণে মৃৎশিল্পী এনে ঠাকুর তৈরি করাও সম্ভব হয়নি। তিনি আরও জানান, পুজোর সব নিয়ম-কানুন, আরতি, অঞ্জলি সবই বাড়িতে বসে দেখা যাবে স্যোশাল মিডিয়ায়।

বেঙ্গল ক্লাব শিবাজী পার্কের পুজো।

অন্যদিকে বেঙ্গল ক্লাব, শিবাজী পার্কের ৮৫ বছরের পুজোতেও থাকছে কিছু বিধিনিষেধ। কমিটির সদস্য জয় চক্রবর্তী বলেন, এবার তাদের দুর্গা ৪ফুট এবং অন্যান্য মূর্তির উচ্চতা রাখা হচ্ছে ২-৩ ফুট। সমস্ত নিয়ম মেনে প্রতিবারের মতোই পুজো হব, তবে মানুষ নিজের বাড়িতে বসে ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে সব দেখতে পারবেন। অঞ্জলিও দিতে পারবেন। যারা ডোনেশন দিতে চান তারাও অনলাইনে পেমেন্ট করবেন। ভোগপ্রসাদ পৌঁছে যাবে কুরিয়ারের মাধ্যমে। তবে এবছর কোনও ধুনুচি নাচ হবে না, হবে না সিঁদুর খেলাও। এই পুজোর মাধ্যমে যে ফান্ড তৈরি হবে তার কিছুটা অংশ দেওয়া হবে মুম্বই মুখ্যমন্ত্রী কোভিড রিলিফ ফান্ডে এবং বাকি সামাজিক কর্মকাণ্ডে ব্যবহৃত হবে।

আরও পড়ুন:বিনা চিকিৎসায় মৃত্যু বিজেপি নেতার, রাজ্যের বেহাল চিকিৎসা ব্যবস্থার অভিযোগ তুলে সরব বিজেপি কর্মীরা

মুম্বইয়ের অন্যান্য পুজো কমিটির সদস্যরাও প্রতিবছরের মতো এলাহি আয়োজন করতে না পারলেও পুজো করবেন সমস্ত রিচ্যুয়াল মেনে। যে সব পুজো বদ্ধ ঘরে হত তারা প্রায় প্রত্যেকেই নিয়ম মেনে পুজোর ভেনু বড় মাঠে স্থানান্তরিত করেছেন। ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে বাড়িতে বসেই পুজো দেখা এবং উপভোগ করার সুযোগ রাখছেন সকলেই।

Related Articles

Back to top button
Close