fbpx
দেশহেডলাইন

জুলাই থেকে খুলছে স্কুল, আসবে কেবল অষ্টম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়ারা

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  লকডাউনের জেরে দু-আড়াইমাসের ওপর সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ঝুলছে তালা। এক কথায় পড়াশোনা লাটে উঠেছে। শিক্ষার থেকে থাকা চাকাকে ফের সচল করতে জুলাই মাস থেকে দেশের স্কুলগুলি খুলে যাবে, কিন্তু ক্লাস সেভেন পর্যন্ত পড়ুয়াদের আসতে হবে না। স্কুলে আসবে ক্লাস এইট থেকে টুয়েলভ পর্যন্ত পড়ুয়ারা, কিন্তু সমস্ত রকম স্বাস্থ্যবিধি মেনে। মঙ্গলবার সকালে কেন্দ্রীয় সরকারের তরফে ঘোষণা করা হল এমনটাই। মানবসম্পদ উন্নয়ন মন্ত্রী রমেশ পোখরিয়াল বলেন, ‘শিক্ষক এবং পড়ুয়া উভয়ের সুরক্ষার কথা ভেবেই নির্দিষ্ট নির্দেশিকা মেনে চলতে হবে এখন। সামাজিক দূরত্ব হোক বা পরিচ্ছন্নতা — এ বিষয়ে কোনও আপস করা যাবে না।’

নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, আপাতত জোন অনুযায়ী ধাপে ধাপে সমস্ত স্কুল খোলা হবে। যেমন গ্রিন জোনের স্কুলগুলি আগে খোলা হবে এরপর অরেঞ্জ জোনের স্কুলগুলি খোলার নির্দেশ দেওয়া হবে তারপর সব থেকে শেষে রেড জোনের স্কুলগুলি খোলা হবে। তবে স্কুল খুললেও সেখানে পড়ুয়াদের উপস্থিতির হার যেন একদিনে ৩০ শতাংশের বেশি না হয়। অর্থাত্‍ ছাত্র-ছাত্রীদের ঘুরিয়ে ফিরিয়ে স্কুলে আসতে হবে। প্রথম শ্রেণি থেকে সপ্তম শ্রেণি পর্যন্ত কোনও ছাত্র-ছাত্রী অবশ্য স্কুলে আসবে না। স্কুল খোলার নির্দেশিকায় স্পষ্ট ভাবে জানিয়ে দেওয়া হয়েছে, যেহেতু নিচু ক্লাসের পড়ুয়ারা লকডাউনের নিয়মকানুন ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে পারবে না, সে কারণেই ছোটরা বাড়িতে থেকেই পড়াশোনা চালিয়ে যাবে এখন।

আরও পড়ুন: প্রথম দিনেই বাতিল প্রায় ৬৩০টি ফ্লাইট ! চরম হয়রানি

পরবর্তী নির্দেশ অনুসারে যখন সমস্ত স্কুলগুলি খোলা হবে ও পঠনপাঠন পুরোপুরি স্বাভাবিক হবে, তখনই অভিভাবকরা তাঁদের ছেলে-মেয়েদের স্কুলে পাঠাতে পারবেন। ক্লাস এইট থেকে টুয়েলভ পর্যন্ত যে পড়ুয়ারা স্কুলে আসছে, তারাও সামাজিক দূরত্ব মানার বিধি মানছে কিনা, তা ভাল করে দেখতে হবে শিক্ষকদের। শিক্ষক-শিক্ষিকা দের মাস্ক ও গ্লাভস ব্যবহার করতে হবে। প্রতিটা স্কুলে ব্যবস্থা করতে হবে থার্মাল স্ক্রিনিংয়েরও। তিন জন বসার বেঞ্চগুলিতে দু’জনের বেশি পড়ুয়া বসতে পারবে না। স্কুলের নানা জায়গায় ব্যানার ও ফেস্টুন লাগিয়ে সচেতনতা প্রচার চলবে। সিসিটিভিতে নজর রাখা হবে পরিস্থিতির।

Related Articles

Back to top button
Close