fbpx
কলকাতাগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

পশ্চিমবঙ্গে দ্বিতীয় তালিবানি শক্তি রাজ করছে, বিশ্বভারতী নিয়ে তোপ দিলীপের

শরণানন্দ দাস, কলকাতা: বিশ্বভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাঙচুরের ঘটনায় ফের শাসকদলের বিরুদ্ধে তোপ দাগলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘যাঁরা ঐতিহ্য নিয়ে গর্ব করেন তাঁদের ভাবতে হবে কোন পার্টিটা রাজ্যের দ্বিতীয় তালিবানি শক্তি হিসেবে সব ভেঙে গুঁড়িয়ে দিচ্ছে।’ বুধবার নিউটাউনের বাসভবনে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি বলেন, ‘শান্তিনিকেতনে যা ঘটেছে তা বাংলার পক্ষে অত্যন্ত লজ্জার এবং দুর্ভাগ্যের। যাঁরা আমাদের বিরুদ্ধে বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙার অভিযোগ করেছিলেন, বদনাম করেছিলেন তাঁরাই আজ শান্তিনিকেতনকে গুঁড়িয়ে দিচ্ছেন। এটাও দেখতে হচ্ছে। অথচ এঁরাই নাকি ভয়ঙ্কর বাঙালি প্রেমী।’

তিনি বলেন,” ভূমি মাফিয়ারা ঝাঁপিয়ে পড়েছে, জায়গা দখল করে দোকান লাগিয়েছে, জমির পর জমি দখল হয়ে যাচ্ছে। উপাচার্য যখন তার বিরোধিতা করে জমিকে সুরক্ষিত করার চেষ্টা  গিয়েছেন তখন তৃণমূলের ছোট বড়ো নেতারা গিয়ে ভাঙচুর চালিয়েছে।’

তিনি প্রশ্ন তুলেছেন, কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয় বলে কি রাজ্যের কোন দায়িত্ব নেই। এখানেও কেন্দ্র রাজ্য লড়াই করতে হবে? উপাচার্য বিশ্ববিদ্যালয়ের জমি বাঁচানোর জন্য পাঁচিল দিয়েছেন। তাঁর বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হল। আর দুষ্কৃতীরা যখন পাঁচিল ভেঙে গুঁড়িয়ে দিল তখন পুলিশ দর্শক। রবীন্দ্রনাথ যদি সুরক্ষিত না থাকেন তাহলে বাংলা ও বাঙালিরা কতোটা সুরক্ষিত তা ভাবতে হবে।’

[আরও পড়ুন- সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যুর বিচার চেয়ে জাতীয় পতাকা  নিয়ে আসানসোলে মিছিল ইয়ং সিটিজেনের]

এদিন তিনি তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ  ডাক্তার শান্তনু সেনের বিরুদ্ধে আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ করেন। তিনি বলেন, ‘শান্তনু সেনের বিরুদ্ধে আগেও অভিযোগ ছিল প্রতি স্কোয়ার ফিটের জন্য কাটমানি নেন। আজও অভিযোগ এসেছে এক বিল্ডারের কাছে ২ লাখ টাকা চেয়েছেন। আমাদের কাছে অভিযোগ আছে পুলিশ, রাজনৈতিক নেতারা মিলে প্রতি স্কোয়ার ফিটে ১৫০ টাকা করে কাটমানি খেয়ে বেআইনি নির্মাণকে লিগাল করে দিচ্ছেন। মেদিনীপুরের সাংসদ বলেন, ‘আমরা এবার দুর্নীতি বিরোধী অভিযানে নামছি। যে কোন ধরনের দুর্নীতির বিরুদ্ধে হেল্পলাইন নম্বর ৭০৪৪০৭০৪৪০ তে সকাল ১০ টা থেকে বিকেল ৫ টায় মধ্যে  অভিযোগ জানানো যাবে।’ এই অভিযানের শিরোনাম ‘বেঙ্গল এগেনস্ট করাপশান’। এছাড়াও ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের দিলীপ দা’ ইমেলেও অভিযোগ জানানো যাবে।’

 

 

Related Articles

Back to top button
Close