fbpx
দেশহেডলাইন

তৃতীয় পর্বের ‘কোভিশিল্ড’-এর ট্রায়াল শুরু করল সিরাম ইন্সটিটিউট

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক:  করোনা আবহে অক্সফোর্ডের ফর্মুলায় তৈরি কোভিশিল্ড টিকার ফের ক্লিনিকাল ট্রায়াল  শুরু করার অনুমতি পেয়ে গেছে সেরাম ইনস্টিটিউট। ড্রাগ কন্ট্রোলের অনুমোদনেই পুণের হাসপাতালে কোভিশিল্ড টিকার তৃতীয় পর্বের ট্রায়াল শুরু করে দিল দেশের প্রথম সারির এই ভ্যাকসিন নির্মাতা সংস্থা।

 

জানা গিয়েছে, দ্বিতীয় ও তৃতীয় পর্ব মিলিয়ে মোট ১৬০০ জনকে টিকা দেওয়ার কথা ছিল সেরামের। তবে অ্যাস্ট্রজেনেকার টিকায় এক মহিলা স্বেচ্ছাসেবকের অসুস্থ হয়ে পড়ার ঘটনা সামনে আসার পরে দ্বিতীয় পর্বের ট্রায়াল শেষের দিকে বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয় সেরাম। সংস্থার তরফে জানানো হয়েছে, তৃতীয় স্তরে আরও বেশি জনকে টিকা দেওয়ার পরিকল্পনা আছে তাদের।

 

সূত্রের খবর, স্যাসন জেনারেল হাসপাতালে টিকার পরীক্ষামূলক প্রয়োগ শুরু হয়েছে গতকাল থেকেই। হাসপাতালের প্রধান ডক্টর মুরলিধর তাম্বে বলেছেন, তৃতীয় পর্বে দুটি ডোজে টিকার ট্রায়াল হবে। প্রাথমিকভাবে ১৫০-২০০ জনকে টিকা দেওয়া হচ্ছে এই হাসপাতালে। পরে স্বেচ্ছাসেবকের সংখ্যা বাড়ানো হবে। টিকার ডোজ দেওয়ার পরে তাঁদের পর্যবেক্ষণে রেখে ফলাফল সামনে আনা হবে।

 

এ বিষয়ে সিরাম ইন্সটিটিউট জানিয়েছে, এটাই কোভিশিল্ড টিকার চূড়ান্ত পর্বের ট্রায়াল। দেশের অন্তত ১৭টি হাসপাতালে এই ট্রায়াল চলবে।  যার মধ্যে রয়েছে, দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল কলেজ (এইমস), পুণে বি জে মেডিক্যাল কলেজ, পাটনার রাজেন্দ্র মেমোরিয়াল রিসার্চ ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল কলেজ, চণ্ডীগড়ের পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ, যোধপুর-এইমস, গোরক্ষপুরের নেহরু হাসপাতাল, বিশাখাপত্তনমের অন্ধ্র মেডিক্যাল কলেজ, মাইসোরের জেএসএস অ্যাকাডেমি অব হাইয়ার এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ। এই পর্বে টিকার ট্রায়ালের রিপোর্ট দেখেই উৎপাদন শুরু হয়ে যাবে। আশা করা যাচ্ছে এ বছরের শেষে বা আগামী বছরের শুরুতে টিকা চলে আসবে দেশের বাজারে।

Related Articles

Back to top button
Close