fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

সংক্রমনের থেকে দিনহাটার মানুষকে রক্ষা করতে নয়া উদ্যোগ ব্যবসায়ীদের , চার ঘণ্টার জন্য খোলা থাকবে দোকান

নিজস্ব প্রতিনিধি দিনহাটা: করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা যখন বেড়ে চলছে তখন পরিযায়ী শ্রমিকরা একের পর এক ফিরতে থাকায় করোনা সংক্রমনের থেকে দিনহাটার মানুষকে রক্ষা করতে পুরো প্রশাসকের উপস্থিতিতে বৈঠক করে চার ঘণ্টার জন্য দোকান খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নিল ব্যবসায়ীরা। শুক্রবার দিনহাটা পুরসভার কনফারেন্স হলে প্রশাসক উদয়ন গুহ র সভাপতিত্বে এই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। এদিনের এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন পুরসভার প্রাক্তন কাউন্সিলর গৌরীশংকর মহেশ্বরী, মহকুমা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক রানা গোস্বামী, ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির সম্পাদক উৎপলেন্দু রায়, হোটেল ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক নারায়ন সাহা, শ্রমিক সংগঠনের বিশু ধর , দিলীপ দে , মদন কর্মকার, সুরেন্দ্র কুমার রাঠি , পুলক বোস সহ অনেকেই।

এদিনের এই সভায় দিনহাটার মানুষকে রক্ষা করতে এবং বাজারে ভিড় কমাতে সকাল আটটা থেকে বেলা ১২ টা পর্যন্ত সব ধরনের দোকান খোলা রাখার সিদ্ধান্ত নেন ব্যবসায়ীরা। পুরসভার প্রশাসক বিধায়ক উদয়ন গুহ ব্যবসায়ীদের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান। পাশাপাশি ব্যবসায়ীরাই দিন ঘোষণা করেন দিনহাটা কে সুস্থ রাখতে এদিনের সিদ্ধান্ত রবিবার থেকে কার্যকর শুরু হবে। সেদিন থেকে ১২ টার পর কোন ব্যবসায়ী দোকান খোলা রাখলে তা বন্ধ করে দেওয়া হবে । পুরসভার কনফারেন্স হলে এদিন পুর প্রশাসকের উপস্থিতিতে বৈঠকের পর প্রসাশক উদয়ন গুহ র নেতৃত্বে ব্যবসায়ীরা দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্তর সাথে দেখা করে তার হাতে লিখিত সিদ্ধান্তর প্রতিলিপি তুলে দেন।এরপর ব্যবসায়ীরা মহকুমা শাসকের সাথে দেখা করে তাদের সিদ্ধান্তের লিখিত প্রতিলিপি তুলে দেন। এদিনের এই সভায় সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় আগামী রবিবার থেকে এই সিদ্ধান্ত কার্যকর এর পাশাপাশি ব্যবসায়ী দের সঙ্গে নিয়ে পুরসভার প্রশাসক উদয়ন গুহ সহ অন্যান্যরা মানুষকে নানাভাবে সচেতন করবেন।

আরও পড়ুন: লাফিয়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা, পরিযায়ী শ্রমিক প্রত্যাবর্তনে উদ্বেগ বাড়ছে নদীয়া জেলা প্রশাসনের

মহকুমা ব্যবসায়ী সমিতির সম্পাদক রানা গোস্বামী বলেন। যেভাবে করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ছে তাতে দিনহাটার মানুষকে আগামীতে রক্ষা করা কঠিন হয়ে পড়বে। তাই ইতিপূর্বে একাধিকবার আলোচনার মধ্য দিয়ে ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠান কতক্ষণ খোলা রাখা যায় তা নিয়ে আলোচনা হয়। এদিন পুর প্রশাসকের উপস্থিতিতে সিদ্ধান্ত হয় রবিবার থেকে সকাল আটটা থেকে ১২ টা পর্যন্ত সমস্ত ব্যবসায়ীকে এই সময় দোকান খোলা রাখতে হবে। এই সময়ের বাইরে ব্যতিক্রমী ভাবে কেউ দোকান খোলার রাখার চেষ্টা করলে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিকভাবে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। তাদের সিদ্ধান্ত এদিন দিনহাটা থানার আইসি এবং মহকুমা শাসক কেউ অবগত করা হয় । এদিন ব্যবসায়ীদের পক্ষ থেকে বাসিন্দাদের কাছেও সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে নির্দিষ্ট সময়ে ক্রয়-বিক্রয়ের জন্য ব্যবসায়ীদেরকে সহযোগিতা করার আবেদন জানান হয়।

দিনহাটা পুরসভার প্রশাসক বিধায়ক উদয়ন গুহ বলেন যেভাবে এই করোনা রোগীর সংখ্যা বেড়ে চলছে তাতে উদ্বিগ্ন আমরা। লকডাউনের প্রথম ও দ্বিতীয় ফেস অনেকটাই ভালোভাবে মেনেছে মানুষ। তৃতীয় চতুর্থ হয়েছে দেখা গেছে খানিকটা ঢিলেঢালা ভাব। এই অবস্থায় হাজার হাজার পরিযায়ী শ্রমিক রেড জোন থেকে দিনহাটা গ্রামেগঞ্জে ঢুকছেন। সকলের সাথে মিলেমিশে বাজারঘাট করছেন। এই পরিস্থিতিতে যদি সাবধানতা অবলম্বন করা না যায় তাহলে ভবিষ্যতে বড় বিপদের মধ্যে পড়তে হতে পারে। সেই পরিস্থিতিতে ব্যবসায়ীরা আলোচনায় বসে সিদ্ধান্ত নিলেন সকাল আটটা থেকে বেলা ১২ টা পর্যন্ত দিনহাটার সব ধরনের ব্যবসা এই সময় পর্যন্ত খোলা থাকবে। তাদের এই সিদ্ধান্ত সবাই মেনে চলবেন বলেও ব্যবসায়ীরা পুলিশ ও প্রশাসন কেউ জানান। দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্ত বলেন ব্যবসায়ীরা লিখিতভাবে তাদের সিদ্ধান্ত জানিয়েছেন। তারাও চেষ্টা করবেন মানুষকে আরও সচেতন করতে।

Related Articles

Back to top button
Close