fbpx
কলকাতাহেডলাইন

লকডাউন মানা হয়েছিল বলেই অমিত শাহের রাজ্য থেকে বাংলায় করোনা পরিস্থিতি ভালো বিজেপিকে তোপ ফিরহাদের

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: লকডাউন বিধির সুফলে বাংলা গুজরাতের থেকে ভালো অবস্থায়। তোপ দাগলেন পুরমন্ত্রী তথা পুর প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। সোমবার পুরসভায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিজেপিকে পালটা তোপ দাগলেন ফিরহাদ। তিনি বলেন, ‘লকডাউন মানা হয়েছিল বলেই অমিত শাহের রাজ্য থেকে বাংলায় করোনা পরিস্থিতি ভালো।’ আনলক এক পর্বে গত কয়েক দিনে বাংলায় লাফিয়ে লফিযে বাড়ছে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা। সে কারণে বাংলায় প্রধান বিরোধী দল গুলির অন্যতম বিজেপি বারে বারে তোপ দেগেছেন রাজ্যের শাসক দলের বিরুদ্ধে। আর তাই এবার বিজেপির পালটা প্রতিক্রিয়া জানল ফিরহাদ হাকিম।

তিনি বলেন, ‘গুজরাট আয়তনে অনেক ছোট রাজ্য। পশ্চিমবঙ্গ গুজরাটের প্রায় দ্বিগুণ। তা সত্বেও গুজরাটে আক্রান্তের সংখ্যা অনেক বেশি। বাংলায় পপুলেশন এর তুলনায় আক্রান্তের সংখ্যা অনেকটাই কম। সুতরাং বিজেপির কাছে শিখতে হবে না মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। মুখ্যমন্ত্রী আগাম পরিস্থিতি মোকাবিলা করার জন্য ব্যবস্থা করেছে বলেই বাংলা এত সুন্দর রয়েছে।’

অন্যদিকে বামেরা যেভাবে করোনা ইস্যুতে রাস্তায় নেমেছিল প্রথম দিকে কিন্তু সময় গড়লে সেভাবে তাদের আর দেখা যায়নি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘মিউজিয়ামে গিয়ে দেখুন ওদের।’ইতিমধ্যেই লকডাউন পর্ব থেকে আনলক পর্বে রাজ্য প্রবেশ করেছে। এ বিষয়ে ফিরহাদ বলেন, ‘সামাজিক দূরত্ব বিধি মেনে চলতে হবে সাধারণ মানুষকে। সামাজিক দূরত্ব বিধি না মেনে চললে যেকোনো সময় এই অতি মারি মানব সভ্যতা ধ্বংসের কারণ হয়ে দাঁড়াতে পারে। এজন্য আমরা জেলা স্তর পর্যন্ত মানুষের কাছে বার্তা দেওয়ার চেষ্টা করেছি।’

আরও পড়ুন: বেতন বাড়ল জুনিয়র ডাক্তারদের, ঘোষণা চন্দ্রিমা ভট্টাচার্যের

পাশাপাশি এদিন আম্ফানের বিপর্যয় মোকাবিলার ক্ষতিপূরণের টাকা নিয়েও কেন্দ্র কে কড়া ভাষায় আক্রমণ করে ফিরহাদ বলেন, ‘যে টাকা খরচ হয়েছে তা রাজ্য সরকার নিজেই খরচ করেছে। প্রায় সাড়ে ছয় হাজার কোটি টাকা ঘর বাড়ি মেরামত করার জন্য দেওয়া হয়েছে। এই সময় কেন্দ্রের উচিত ছিল রাজ্যের পাশে দাঁড়ানোর। তা না করে কেন্দ্র সামান্য অনুদান দিয়ে নিজেদের দায় সেরেছে। ৫২ হাজার কোটি টাকা এই মুহূর্তে রাজ্যের পাওনা কেন্দ্রের কাছে। সেই টাকা পেলেও কিছুটা হলেও এক লক্ষ কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি সামলানো যেত। আর মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় আগে থেকেই পরিস্থিতি বুঝতে পেরেছে বলেই এত বড় ঘূর্ণিঝড়ের পরেও বাংলায় সেভাবে প্রাণহানি হয়নি।’ অমিত শাহের ভার্চুয়াল সভা কে কটাক্ষ করে ফিরহাদ হাকিম এদিন বলেন, ‘বিজেপি খবরের বেঁচে থাকতে চায়। তাই এইসব করে বিজেপি খবরে টিকে থাকার জন্য গিমিক রাজনীতি করছে।’

Related Articles

Back to top button
Close