fbpx
কলকাতাদেশহেডলাইন

পরিযায়ী শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে ৮টি ট্রেন বরাদ্দ রাজ্যের

যুগশঙ্খ ডিজিটাল ডেস্ক: দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে পড়া শ্রমিকদের ঘরে ফেরাতে বিশেষ ট্রেনের ব্যবস্থা। আর এজন্যে বরাদ্দ করা হল ৮টি ট্রেন। আগামিকাল রবিবার থেকে এক এক করে ট্রেন আসতে শুরু করবে। সেই বিষয়ে এদিন নবান্ন থেকে একটি চিঠি রেল মন্ত্রক এর কাছে পাঠানো হয়েছে বলে সূত্র মারফত জানা গিয়েছে। রাজ্যের শ্রমিকদের যত দ্রুত সম্ভব ফেরাতে বদ্ধ পরিকর মুখ্যমন্ত্রী। ওই ট্রেনে প্রায় ৩০ হাজার শ্রমিককে রাজ্যে ফেরানো হবে । ট্রেনগুলি কোথা থেকে কতজন শ্রমিককে নিয়ে কোথায় ফিরবে, তা জানিয়ে রেল মন্ত্রকে রাজ্যে সরকারের তরফে তালিকা পাঠানো হয়েছে। এই সব বিশেষ ট্রেনে মূলত দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে থাকা উত্তরবঙ্গ এবং জঙ্গলমহলের শ্রমিকদের ফেরত আনা হবে বলে প্রশাসনিক সূত্রে খবর।

আজমের ও কেরল থেকে ইতিমধ্যে পরিযায়ী শ্রমিকদের নিয়ে ২টি ট্রেন এরাজ্যে এসেছে। কিন্তু এখনও দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আটকে রয়েছেন এরাজ্যের বহু পরিযায়ী শ্রমিক। তাঁদের ফিরিয়ে আনতেই আরও ৮টি ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে নবান্ন সূত্র জানা যাচ্ছে। এই ৮টি ট্রেন ছাড়বে যথাক্রমে চণ্ডীগড়, জলন্ধর, বেঙ্গালুরু, ভেলোর ও হায়দরাবাদ স্টেশন থেকে। প্রশাসনিক সূত্রে খবর  এই আটটি ট্রেন ৯ থেকে ১১ মের মধ্যে রওনা দেবে বলে জানা যাচ্ছে। এই দফায় ফিরছেন বাঁকুড়া, ঝাড়গ্রাম, কোচবিহার, আলিপুরদুয়ার, জলপাইগুড়ি, কালিম্পং, দার্জিলিং, পুরুলিয়া, বীরভূম ও পশ্চিম বর্ধমানের শ্রমিকরা। রবিবার সন্ধ্যায় আসছে আরও একটি ট্রেন। তেলঙ্গানা থেকে একটি ট্রেনে ফিরছেন মালদহের ইংরেজবাজারের শ্রমিকরা। এই দফায় ফিরছেন কলকাতা, দুই ২৪ পরগনা, নদিয়া, হাওড়া, পূর্ব ও পশ্চিম বর্ধমান, হুগলি এবং পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুর, হুগলি এবং পূর্ব ও পশ্চিম মেদিনীপুরের বাসিন্দারা। জানা যাচ্ছে, রাজ্যের সঙ্গে কথা বলেই ট্রেনগুলির ব্যবস্থা করা হয়েছে রেলমন্ত্রকের তরফে। এই সিদ্ধান্তে খুশি পরিযায়ী শ্রমিকরা।

আরও পড়ুন: পরিযায়ী শ্রমিকদের দুর্দশা নিয়ে আবার মমতাকে খোঁচা অধীরের

এই খবর প্রকাশ্যে আসতেই লোকসভায় কংগ্রেস দলনেতা তথা মুর্শিদাবাদের সাংসদ অধীর চৌধুরী দাবি করেন, পরিযায়ীদের বাড়ি ফেরাতে তাঁর আন্দোলনের জন্যই শেষ পর্যন্ত রাজ্য সরকার এই সিদ্ধান্ত নিতে বাধ্য হয়েছে।  ‘ট্রেন দেওয়ার জন্য দীর্ঘ দিন ধরে আমরা লড়াই, সংগ্রাম করে চলেছি। সাধারণ মানুষের দুঃখ দুর্দশা কেন্দ্র ও রাজ্য সরকারের কাছে জানিয়েছি। তার কিছু সুফল আমরা লক্ষ্য করছি। আমি গত পরশু অমিত শাহর সঙ্গে কথা বলেছি। তখন অমিত শাহ বলেছিলেন, পশ্চিমবঙ্গ সরকার ট্রেন নিতে চাইছে না। আমরা কী করব? আপনারা সরকারকে বলুন যাতে ট্রেন নেয়। তারপর জেনেছি ৮টা ট্রেন বরাদ্দ করা হয়েছে। তবে এই ৮টা ট্রেনে সমস্যার সমাধান হবে না।’

অধীর চৌধুরী বলেন, ‘বাংলার দুরবস্থা নিয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহর সঙ্গে কথা বলেছি। তারপর উনি বাংলার মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন। যার ফলে আটটি ট্রেনকে এ রাজ্যে ঢোকার অনুমতি দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।’ এদিকে তৃণমূলের মন্ত্রী ও সাংসদরা জানিয়ে দিয়েছেন, পরিযায়ী শ্রমিকদের জন্য রাজ্য কাজ করছে। আরও আটটি ট্রেনের ব্যবস্থা করা হয়েছে। ইতিমধ্যে ৮০ হাজার লোক এখানে ফিরেছ। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজে অন্য রাজ্যগুলির মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে কথা বলছেন।

 

Related Articles

Back to top button
Close