fbpx
আন্তর্জাতিকহেডলাইন

জরুরি অবস্থা জারি, স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে বিবাদে মাদ্রিদ প্রশাসন

মাদ্রিদ, (সংবাদ সংস্থা): মহামারী করোনার প্রকোপ পুনরায় বাড়ছে। তাই, স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার রাজধানী মাদ্রিদসহ আরও ৯টি শহরে ১৫ দিনের জন্য জরুরি অবস্থা জারি করেছে। আর এদিকে, জরুরি অবস্থা জারি নিয়ে রাজনৈতিক উত্তেজনার কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত হয়েছে রাজধানী মাদ্রিদ। স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকারের অবস্থানকে চ্যালেঞ্জ জানিয়েছে মাদ্রিদ প্রশাসন।
সপ্তাহখানেক আগেই আশিংক লকডাউন বিধিনিষেধ জারি করেছিলে স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকার। পরে এই লকডাউনের বিরুদ্ধে আদালতে চ্যালেঞ্জ জানায় মাদ্রিদ প্রশাসন। কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে বিবাদে জড়ান মাদ্রিদের আঞ্চলিক প্রেসিডেন্ট ইসাবেল ডিয়াজ আয়ুসো। সেসময় তিনি ক্ষোভে টুইট বার্তায় লেখেন, ‘অরাজকতার জন্য ধন্যবাদ, (প্রধানমন্ত্রী) পেদ্রো সানচেজ।’ এসময় আদালতও স্পেনের কেন্দ্রীয় সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রায় দেয়। কিন্তু, তারপরও প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো শানচেজের সরকার জরুরি অবস্থা জারি করেছে।

এদিকে, মাদ্রিদের স্বাস্থ্যমন্ত্রী এনরিক রুইজ এসকুয়েডেরো বলছেন, ‘ইতিমধ্যে জারি থাকা বিধিনিষেধ কাজ করছে। জাতীয় সরকারের এই আদেশ এমন পদক্ষেপ যা মাদ্রিদের কোনও বাসিন্দার কাছেই বোধগম্য নয়।’ আর, নগর কর্তৃপক্ষের লোকজন দাবি করছেন, ‘করোনার সংক্রমণ হ্রাস পেয়েছে এবং এই জরুরি অবস্থা অযৌক্তিক।’

আরও পড়ুন:শিক্ষক প্রোফাইলে যুক্ত হয়নি “নর্মাল সেকশন”! অনলাইন ট্রান্সফার পোর্টালে বিপাকে শিক্ষকরা!

উল্লেখ্য, ইউরোপের বেশ কয়েকটি দেশের মতো স্পেনে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণের হার উল্লেখযোগ্য। তবে, গত সপ্তাহের তুলনায় করোনা সংক্রমণ কিছুটা কমেছে। আগে যেখানে দৈনিক গড়ে ১০ হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছে, এখন সেটি এসে দাড়িয়েছে ৫ হাজারে। তবে সূত্রের খবর, মাদ্রিদের সবচেয়ে বড় হাসপাতালে প্রতি ঘণ্টায় বাড়ছে নতুন রোগী সংখ্যা। অনেকেরই অক্সিজেন দরকার হচ্ছে। খুব শীঘ্রই শহরের অনেক হাসপাতালের আইসিইউ আবারও ভর্তি হয়ে যাবে বলে আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকরা। আর এদিকে তথ্য বলছে, স্পেনে ইতিমধ্যে ৮ লক্ষ ৯০ হাজারের বেশি মানুষ করোনা পজিটিভ শনাক্ত হয়েছেন। মারা গেছেন প্রায় ৩৩ হাজার মানুষ।

Related Articles

Back to top button
Close