fbpx
কলকাতাহেডলাইন

‘দলই বড়’, শুভেন্দু প্রসঙ্গে বললেন কাকলি ঘোষ দস্তিদার

অভিষেক গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: শুভেন্দু অধিকারী এখন ক্লোজড চ্যাপ্টার। গতকালকেই এই কথা জানিয়েছেন প্রবীণ তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। এরপর শুক্রবার তৃণমূল ভবনে বারাসাতের সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার জানান, “দলের উর্ধ্বে কেউ নয়। বরং দলই বড়”। অন্যদিকে কৃষি বিল নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সুর চরিয়ে তৃণমূল সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার জানান অবিলম্বে কেন্দ্রীয় কৃষি আইন প্রত্যাহার করা না হলে দেশজুড়ে আন্দোলনের ডাক দেবে তৃণমূল।
শুভেন্দু অধিকারী এখন দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদান করবেন নাকি নিজস্ব দল তৈরী করবেন তা নিয়ে জল্পনা রয়েছে বিস্তর। এই পরিস্থিতিতে শুভেন্দু অধিকারীর সঙ্গে সম্পর্ক ক্রমশই নিম্নগামী। তাই এখন দলনেত্রীর কথামতো শুভেন্দু পর্বের ইতি ঘটিয়ে সামনের দিকে এগোতে চাইছে তৃণমূল কংগ্রেস।
এদিন তৃণমূল ভবনে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে কাকলি দাবি জানান, “দলের উর্ধ্বে কেউ নয়। দলই বড়। পোক্ত জমির ওপর দাঁড়িয়ে থাকা একজন জনো নেত্রী তৈরি করা দল তৃণমূল কংগ্রেস। তাই দলের বাইরে কেউ এমন নেই যে তার কথা আমাকে এখানে বলতে হবে”।
অন্যদিকে রাজ্যের একাধিক বিধায়ক বিজেপিতে যোগদান করছে এই প্রসঙ্গে কাকলি দেবী কটাক্ষ করে বলেন, “বিজেপি দীর্ঘদিন ধরে বিভ্রান্তি তৈরি করার চেষ্টা করছে। সাধারণ মানুষ বিজেপির চালাকি বোঝেন। তারা অত বোকা নয়”।
 এদিন কেন্দ্রীয় কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিয়ে কাকলি দেবী জানান, “কৃষকদের আন্দোলনকে সমর্থন জানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি ১৪ বছর আগে লড়াই শুরু করেন এই আন্দোলনের। কৃষকদের পাশে আছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়”।
কেন্দ্রের কৃষি আইনের বিরুদ্ধে ভারতব্যাপী আন্দোলন ছড়িয়ে দেওয়ার ডাক দিয়ে তিনি বলেন, “বামফ্রন্টের বিরুদ্ধেই লড়াই করেছেন মমতা। তিনটি আইন চাপিয়ে দেওয়া হলে তৃণমূল কংগ্রেস সর্বতভাবে এর প্রতিবাদ করবে। কৃষি আইন অসাংবিধানিক। কৃষকের বিরুদ্ধে এই হামলা রুখতে হবে।”
একইসঙ্গে কৃষকদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করে কাকলি ঘোষ দস্তিদারের বক্তব্য, “স্বাধীন ভারতকে আবার পরাধীন করতে চাইছে কেন্দ্রীয় সরকার।দেশ বিক্রি করে দেওয়ার চক্রান্ত করছে ভারত সরকার।” ইতিমধ্যেই বিক্ষোভকারী কৃষকদের সঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ফোনে কথা বলেছেন বলেও জানান তিনি।

Related Articles

Back to top button
Close