fbpx
কলকাতাহেডলাইন

তৃণমূল না শোধরালে সময় খুব খারাপ আসছে: দিলীপ ঘোষ

শরণানন্দ দাস,কলকাতা: রাজ্যের শাসক দলকে পরিস্কার হুমকি দিলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, ‘ তৃণমূল না শোধরালে সময় খুব খারাপ আসছে, আমি পরিস্কার বলে দিচ্ছি।’সোমবার রাজ্য বিজেপি দফতরে সাংবাদিক বৈঠকে তিনি এ কথা বলেন। কেন বললেন এ কথা? ঘটনার সূত্রপাত এদিন সকালে। অসুস্থ দলীয় কর্মীকে দেখতে যাওয়ার সময় তৃণমূল কর্মীরা রাজ্য বিজেপির সম্পাদক সব্যসাচী দত্তকে বাধা দেয়, তাঁর গাড়ি ভাঙচুর করা হয়। এই প্রসঙ্গেই দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘আগে অর্জুন সিংকে আটকানো হয়েছে, আমাকে আটকালো হয়েছে। উত্তরবঙ্গে আমাদের নেতা মন্ত্রীদের আটকানো হয়েছে।আজ সব্যসাচী দত্তকে হেনস্থা করা হয়েছে। আসলে তৃণমূল নৈতিকভাবে হেরে গিয়েছে। গণতান্ত্রিকভাবে বিজেপিকে আটকানো পারছে না। তাই এভাবে হামলা করছে। আমি এই ঘটনার তীব্র নিন্দা করছি।’

এরপরই তিনি বলেন, ‘ শুনলাম আমাদের যুবমোর্চার সভাপতি, যুবনেতা মারের বদলা মারের নিদান দিয়েছেন। সত্যি সত্যি যদি এমনটা চলতে থাকে তাহলে কি হবে বলতে পারছি না। আমাদের যুবকর্মীদের সামলানোর ক্ষমতা পুলিশের নেই। আমরাও কতোটা সামলাতে পারবো, বলতে পারছি না। তাই বলছি তৃণমূল না শোধরালে, খুব খারাপ সময় আসছে।’
এদিন আম্ফানে সুন্দরবনের বিপর্যয়কে ‘ম্যানমেড’ বলে অভিহিত করেন মেদিনীপুরের সাংসদ। বিষয়টি ব্যাখ্যা করতে গিয়ে তিনি বলেন, ‘ তৃণমূল সরকার ক্ষমতায় আসার পর দক্ষিণবঙ্গে, ডিভিসি এলাকায় বন্যা হয়েছিল। মুখ্যমন্ত্রী বলেছিলেন, ‘ ম্যানমেড বন্যা’। এবার আম্ফানে সুন্দরবনের বিপর্যয় আমার মতে ম্যানমেড।

আরও পড়ুন: লকডাউন মানা হয়েছিল বলেই অমিত শাহের রাজ্য থেকে বাংলায় করোনা পরিস্থিতি ভালো বিজেপিকে তোপ ফিরহাদের

আয়লার পর রাজ্যকে ৫ হাজার ৩২ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছিল। রাজ্য পুরো টাকা নিতে পারেনি। ৮০০ কোটি টাকা নিয়েছিল। কিন্তু সে টাকাও খরচ করতে পারেনি। যদি সেই সময় ওই টাকায় পাকা কংক্রিটের বাঁধ তৈরি হতো, তাহলে এভাবে কাঁচা বাঁধ ভেঙে এতো বিপর্যয় হতো না। দুর্যোগের পর ১৫ দিন কেটে গেল এখনো উপদ্রুত অঞ্চলে পানীয় জল, খাবার, বিদ্যুৎ কিছুই পৌঁছয় নি। এতো অমানবিক, নিষ্ঠুর এই সরকার।’

এই প্রসঙ্গেই দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী আজ বলেছেন, বিশ্বব্যাংক ২৫ টি শেল্টার তৈরির জন্য ৬০ কোটি টাকা দিয়েছিল। ২০১০- ২০ র মধ্যে সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকার উন্নয়ণের জন্য ৩৪৪ কোটি টাকা দিয়েছে। সেই টাকা কিসে খরচ হলো। কেন এতো কাঁচা বাড়ি থাকবে? আজ যদি বাড়িগুলো পাকা হতো, কংক্রিটের বাঁধ হতো তাহলে এই বিপর্যয় হতো না।’
এদিন মুখ্যমন্ত্রী অমিত শাহের ভার্চুয়াল র্্যালিতে বিজেপি প্রচুর টাকা খরচ করছে বলে অভিযোগ করেছেন। যার জবাবে দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ দিদি জানেন না, হোয়াটসঅ্যাপে, টুইটার, ফেসবুকের মাধ্যমে কোন খরচ হয়না। বিজেপি খরচের ব্যাপারটা বোঝে। আমাদের কর্মীরা বুদ্ধি দিয়ে, মেধা দিয়ে ঐতিহাসিক র্্যালি আয়োজন করছেন। দিদিকে এইজন্য পিকেকে কয়েেক কোটি টাকা দিতে হয়।’ এদিন বিজেপি রাজ্য সভাপতি আমফানে মৃতদের ২ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ,গুরুতর আহতদের ৫০ হাজার টাকা, ফিরে আসা পরিযায়ী শ্রমিকদের কর্মসংস্থান, পূর্ণ সময়ের স্বাস্থ্য মন্ত্রী নিয়োগ সহ একাধিক দাবিতে মুখ্যমন্ত্রীকে চিঠি দিয়েছেন।

Related Articles

Back to top button
Close