fbpx
পশ্চিমবঙ্গহেডলাইন

লকডাউন সার্থক করতে রাস্তা বন্ধ করল যৌনপল্লীর মহিলারা

সোমা কর, দিনহাটা: নিজেদের কাজকর্ম বন্ধ হয়ে গেলেও লকডাউনকে সার্থক করে তুলতে রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছে যৌনপল্লীর মহিলারাও। পল্লীতে যেখানে সারাক্ষণই মানুষের আনাগোনা থাকে সেই চেনা জায়গায় আজ অচেনা পল্লীতে পরিণত হয়ে উঠেছে। পল্লীর তিনদিকে রাস্তায় বাস দিয়ে আটকে দিয়ে লিখে দেওয়া হয়েছে প্রবেশ নিষেধ। পল্লীর কর্মীরা নিশ্চিত জানেন তাদের রুটি-রুজির ব্যাঘাত ঘটবে। তবুও সংক্রমণ রোধে নিজেদের এলাকাতেই লকডাউনে সামিল হয়েছেন তারা। দিনহাটা শহরের ৯ নম্বর ওয়ার্ডের গোপালনগর এলাকায় অবস্থিত যৌনপল্লীর তিন দিকের রাস্তা তারা বাঁশ দিয়ে বন্ধ করে দেওয়ার পাশাপাশি বাইরের লোক যাতে কোনোভাবেই আসতে না পারে তার জন্য নানাভাবে সর্তকতা অবলম্বন করা হয়েছে। পল্লীর মহিলাদের এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানান সমাজের বিভিন্ন স্তরের মানুষ।

জানা গেছে করোনা সংক্রমণ যেভাবে ভয়াবহ আকার ধারণ করছে তা থেকে মানুষকে সচেতন করতে নানাভাবে চেষ্টা চলছে। কেন্দ্রীয় ও রাজ্য সরকারের পাশাপাশি স্থানীয় পুরসভা প্রশাসনের পক্ষ থেকেও বিভিন্নভাবে সচেতনতা প্রচার শুরু হয়েছে। উল্লেখ্য, লকডাউনের প্রথম দিকে পুরসভার চেয়ারম্যান বিধায়ক উদয়ন গুহ পুরসভার মেডিক্যাল অফিসার বিদ্যুৎ কমল সাহা, দিনহাটা মহকুমা হাসপাতালে সুপার রঞ্জিত মন্ডল, দিনহাটা থানার আইসি সঞ্জয় দত্তকে সঙ্গে নিয়ে পল্লীতে গিয়ে তাদেরকে নানাভাবে সচেতন করেন।

পাশাপাশি এই রোগ থেকে নিজেকে বাঁচাতে কি কি করা উচিত সেটাও তুলে ধরেন। হাসপাতালে সুপার রঞ্জিত মন্ডল মহিলাদের কে এই রোগ নিয়ে সচেতন এর পাশাপাশি নানাভাবে প্রতিরোধ কিভাবে করা যায় সেটাও তুলে ধরেন। পুরসভার পক্ষ থেকে পল্লীর মহিলাদের কাছে আবেদন জানানো হয় কোনভাবেই যাতে বাইরের লোককে এই সংক্রমণ চলাকালীন নিজেদেরকে সতর্ক রাখেন তারা। নিজেদের রুটি রুজি তে ব্যাঘাত ঘটলেও এই রোগের হাত থেকে মানুষকে রক্ষা করতে পল্লীর মহিলারা যেভাবে নিজেরাই সচেতনতার পাশাপাশি বাইরের মানুষের অবাধ বিচরণ বন্ধ করতে উদ্যোগী হয়েছেন তার দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে বলেও উল্লেখ করেন অনেকে।

পল্লীর মহিলারা বলেন বর্তমান এই কঠিন সময়ে এ রাজ্যের পাশাপাশি দেশের মানুষকে রক্ষা করতে নানাভাবে সচেতন শুরু হয়েছে। কোনভাবেই যাতে বাইরের মানুষ তাদের পল্লীতে না ঢোকে সেদিকে লক্ষ্য রেখেই তারা নিজেরা অনেক কষ্টে দিন গুজরান করলেও প্রশাসনের কাজে সহযোগিতা করতে তিন দিকের রাস্তা বন্ধ করে লকডাউনে সামিল হয়েছেন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এই মহিলারা বলেন, এই রোগ থেকে সকলকে রক্ষা করতে, বাইরের কেউ যাতে আসতে না পারেন তার জন্যই তারা নিজেদের রাস্তা বন্ধ করে দিয়েছেন। পাশাপাশি তারা আরও বলেন, সরকারি হবে যতদিন লকডাউন না উঠবে তারা ততদিনই লকডাউন মেনে চলবেন।
দিনহাটা পৌরসভার চেয়ারম্যান বিধায়ক উদয়ন গুহ বলেন শহরের যৌনপল্লীর মহিলারা বাইরের লোকের যাতায়াত বন্ধে যেভাবে লকডাউন শামিল হয়েছেন তা সত্যি প্রশংসার যোগ্য।

Related Articles

Back to top button
Close