fbpx
আন্তর্জাতিকগুরুত্বপূর্ণহেডলাইন

প্রকৃতি ধ্বংসের কারণেই মহামারীর সম্মুখীন বিশ্ব: রাষ্ট্রপুঞ্জ ও হু

লন্ডন, (সংবাদ সংস্থা): ‘করোনাভাইরাসের মতো মহামারী মানুষের হাতে প্রকৃতি ধ্বংসের ফল। কারণ, এই কঠিন বাস্তবতাকে বিশ্ববাসী দশকের পর দশক ধরে এড়িয়ে চলেছেন।’ ব্রিটিশ গণমাধ্যম ‘দ্য গার্ডিয়ান’কে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এমনটাই জানিয়েছেন রাষ্ট্রপুঞ্জ এবং বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার কর্মকর্তারা।

 

 

তাই, কালবিলম্ব না করে মহামারী  করোনাভাইরাস থেকে পরিত্রাণ পেতে প্রকৃতি ধ্বংস বন্ধ এবং অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস ত্যাগ করার আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপুঞ্জের জৈব বৈচিত্র্য বিষয়ক বিভাগের প্রধান এলিজাবেথ মারুমা ম্রেমা, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা বা হু’র পরিবেশ ও স্বাস্থ্য বিভাগের পরিচালক মারিয়া নীরা এবং ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ফান্ড ফর নেচার (ডব্লিউডব্লিউএফ)-এর প্রধান মার্কো ল্যামবার্টিনি। একইসঙ্গে তারা সবুজ ও স্বাস্থ্যসম্মত জীবনব্যবস্থা গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব আরোপ করেছেন।

 

 

তারা বলেছেন, বন্য প্রাণীর মাধ্যমে জীবাণু সংক্রমিত হয়ে মানুষের দেহে ক্রমবর্ধমান হারে যেসব রোগ সৃষ্টি হচ্ছে, তার মূল কারণ হচ্ছে বন্য প্রাণীর অবৈধ ও অস্থিতিশীল বাণিজ্য এবং বনভূমি ও অন্যান্য বন্য এলাকা উজাড় করার মতো বিষয়গুলো। অন্যদিকে, গত বুধবার ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ফান্ড ফর নেচার’র এক প্রতিবেদনে সতর্ক করে বলা হয়েছে, ভবিষ্যতে নতুন নতুন রোগ দেখা দেওয়ার ঝুঁকি অতীতের যেকোনো সময়ের তুলনায় এখন বেশি। নতুন ধরণের রোগগুলো বন্য প্রাণী থেকে মানুষের দেহে ছড়িয়ে পড়তে পারে। গত মার্চ মাস থেকে প্রকাশিত বিভিন্ন উচ্চ-স্তরের পরিসংখ্যানগুলি একাধিক সতর্কতা জারি করেছে। বিশ্বের শীর্ষস্থানীয় জীববৈচিত্র্য বিশেষজ্ঞরাও বলেছেন যে, প্রাকৃতিক বিশ্বের ক্রমবর্ধমান ধ্বংস দ্রুত থামানো না হলে ভবিষ্যতে আরও মারাত্মক রোগের প্রাদুর্ভাবের সম্ভাবনা রয়েছে।

Related Articles

Back to top button
Close